শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রবীন্দ্রভারতীর বসন্ত উৎসবে মেয়েদের খোলা পিঠে লেখা অশ্লীল শব্দ

কোলকাতা ব্যুরো :=

কোলকাতার রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিটি রোড ক্যাম্পাসে বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) দোল উৎসবের কিছু ছবি ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে সেই ছবি। যা নিয়ে শুরু হয়েছে হইচই।

ছবিগুলিতে দেখা গিয়েছে, শাড়ি পরা কিছু মেয়েদের খোলা পিঠে আবির দিয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান বিকৃত করে অশ্লীল শব্দ লেখা রয়েছে। অশ্লীল শব্দ লেখা রয়েছে ছেলেদের বুকেও।

অশ্লীল শব্দ প্রয়োগ করে রবীন্দ্রগানের একটি লাইন পিঠে লেখা পড়ুয়াদের চিহ্নিত করেছে কর্তৃপক্ষ। খবর নিউজ ১৮।

যদিও তার আগেই সিঁথি থানায় অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিল রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সব্যসাচী বসু রায়চৌধুরী এদিন সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দিয়েছেন, অভিযুক্ত সকলেই বহিরাগত। তাঁরা প্রত্যেকেই নদিয়ার বিভিন্ন কলেজের পড়ুয়া।

তিনি আরও জানান, এটা অনভিপ্রেত ও নেক্কারজনক ঘটনা। আগে রবীন্দ্রভারতীতে কখনও ঘটেনি। আমরা সিঁথি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। পুলিশের সঙ্গে সহযোগিতা করব। সিসিটিভি ফুটেজ চাইলেও তা জমা দেবো। তবে সকলের নজর এড়িয়ে কীভাবে এই ঘটনা ঘটে গেলো সেটা নিয়ে চিন্তিত উপাচার্য।

তিনি এই বিষয়ে জানিয়েছেন, আগামী দিনে কর্মসমিতির বৈঠকে আলোচনা করা হবে। অনুষ্ঠানে বহিরাগতদের প্রবেশ করতে দেওয়া হবে কি না; তা নিয়ে কর্মসমিতির বৈঠকের পরই সিদ্ধান্ত হবে।

অপরদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের দাবি, বৃহস্পতিবার দুপুরেই ঘটনাটি আমাদের নজরে আসে। তারপরেই আমরা উপাচার্যের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ জানাই। তিনি ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছিলেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অন্য এক ছাত্রী বলেন, ‘ওরা ৬ জন ছিল। তার মধ্যে পাঁচজনকে চিহ্নিত করা গিয়েছে। এটা বিকৃত মানসিকতার লক্ষণ।’

তবে শুক্রবার দুপুরে কয়েকজন পড়ুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিটি রোড ক্যাম্পাসে হাজির হয়ে দাবি করেন, এই ঘটনার সঙ্গে তাঁরাই যুক্ত। এবং পুরো ঘটনার জন্য তাঁরা অনুতপ্ত এবং ক্ষমাপ্রার্থী।

তবে পুরো ঘটনার নিন্দা করে বিশিষ্টজনেরা জানিয়েছেন, সোশাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিংয়ের হাওয়ায় গা ভাসাতে গিয়ে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের মানসিকতার অবনমন হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

ব্রায়ান লারার অপরাজিত ৪০০ রানের রেকর্ড, দু’দশক আজ

রবীন্দ্রভারতীর বসন্ত উৎসবে মেয়েদের খোলা পিঠে লেখা অশ্লীল শব্দ

প্রকাশের সময় : ০৮:০৪:১২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ মার্চ ২০২০
কোলকাতা ব্যুরো :=

কোলকাতার রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিটি রোড ক্যাম্পাসে বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) দোল উৎসবের কিছু ছবি ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে সেই ছবি। যা নিয়ে শুরু হয়েছে হইচই।

ছবিগুলিতে দেখা গিয়েছে, শাড়ি পরা কিছু মেয়েদের খোলা পিঠে আবির দিয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান বিকৃত করে অশ্লীল শব্দ লেখা রয়েছে। অশ্লীল শব্দ লেখা রয়েছে ছেলেদের বুকেও।

অশ্লীল শব্দ প্রয়োগ করে রবীন্দ্রগানের একটি লাইন পিঠে লেখা পড়ুয়াদের চিহ্নিত করেছে কর্তৃপক্ষ। খবর নিউজ ১৮।

যদিও তার আগেই সিঁথি থানায় অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিল রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সব্যসাচী বসু রায়চৌধুরী এদিন সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দিয়েছেন, অভিযুক্ত সকলেই বহিরাগত। তাঁরা প্রত্যেকেই নদিয়ার বিভিন্ন কলেজের পড়ুয়া।

তিনি আরও জানান, এটা অনভিপ্রেত ও নেক্কারজনক ঘটনা। আগে রবীন্দ্রভারতীতে কখনও ঘটেনি। আমরা সিঁথি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। পুলিশের সঙ্গে সহযোগিতা করব। সিসিটিভি ফুটেজ চাইলেও তা জমা দেবো। তবে সকলের নজর এড়িয়ে কীভাবে এই ঘটনা ঘটে গেলো সেটা নিয়ে চিন্তিত উপাচার্য।

তিনি এই বিষয়ে জানিয়েছেন, আগামী দিনে কর্মসমিতির বৈঠকে আলোচনা করা হবে। অনুষ্ঠানে বহিরাগতদের প্রবেশ করতে দেওয়া হবে কি না; তা নিয়ে কর্মসমিতির বৈঠকের পরই সিদ্ধান্ত হবে।

অপরদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের দাবি, বৃহস্পতিবার দুপুরেই ঘটনাটি আমাদের নজরে আসে। তারপরেই আমরা উপাচার্যের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ জানাই। তিনি ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছিলেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অন্য এক ছাত্রী বলেন, ‘ওরা ৬ জন ছিল। তার মধ্যে পাঁচজনকে চিহ্নিত করা গিয়েছে। এটা বিকৃত মানসিকতার লক্ষণ।’

তবে শুক্রবার দুপুরে কয়েকজন পড়ুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিটি রোড ক্যাম্পাসে হাজির হয়ে দাবি করেন, এই ঘটনার সঙ্গে তাঁরাই যুক্ত। এবং পুরো ঘটনার জন্য তাঁরা অনুতপ্ত এবং ক্ষমাপ্রার্থী।

তবে পুরো ঘটনার নিন্দা করে বিশিষ্টজনেরা জানিয়েছেন, সোশাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিংয়ের হাওয়ায় গা ভাসাতে গিয়ে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের মানসিকতার অবনমন হচ্ছে।