শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুক্তি পেলেন কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ

Australia's batsman Mitch Marsh (L) and teammate Marnus Labuschagne run between the wickets during the first one-day international (ODI) cricket match between Australian and New Zealand in Sydney on March 13, 2020. (Photo by Saeed KHAN / AFP) / -- IMAGE RESTRICTED TO EDITORIAL USE - STRICTLY NO COMMERCIAL USE --

কোলকাতা ব্যুরো := ভারত নিয়ন্ত্রিত বিতর্কিত কাশ্মীর উপত্যকার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকে আটক করে রাখার সাত মাস পর অবশেষে মুক্তি দিল দেশটির কর্তৃপক্ষ। ভারতীয় পার্লামেন্ট লোকসভার প্রবীণ এই সদস্য এবং অশীতিপর রাজনীতিবিদ গত বছরের আগস্টে কাশ্মীরকে দিখণ্ডিত করার সময় থেকে বন্দী ছিলেন।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, আজ শুক্রবার ফারুক আবদুল্লাহর মুক্তির নির্দেশ জারি হয়। তবে ওই নির্দেশে তাকে মুক্ত করে দেওয়ার কোনো কারণ উল্লেখ করেনি ভারতে মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার। তার মুক্তির আদেশে সই করেন নবগঠিত জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের মুখ্যসচিব শালীন কাবরা।

মুক্ত হওয়ার পর ফারুক আবদুল্লাহ বলেন, তার মুক্তির জন্য যারা লড়াই করেছে তিনি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। এছাড়া কাশ্মীরের বন্দী অন্যান্য নেতারও মুক্তির দাবি জানান তিনি। আগস্টে কাশ্মীরকে দিখণ্ডিত করার বিল পাশের আগে কাশ্মীরে হাজারো নেতার সঙ্গে তাকে গৃহবন্দী করা হয়।

মোদি সরকার বিতর্কিত অঞ্চল কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নিয়ে তাকে দিখণ্ডিত করার সময় উপত্যকায় ৫০ হাজারের বেশি সেনা মোতায়েন করে। যোগাযোগসহ সকল সুবিধা বিচ্ছিন্ন করে মাসের পর মাস অবরুদ্ধ করে রাখা হয় সেখানকার বাসিন্দাদের। গ্রেফতার করা হয় কাশ্মীরিদের নেতাদের।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

মুক্তি পেলেন কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ

প্রকাশের সময় : ০৭:৪০:৫৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৪ মার্চ ২০২০

কোলকাতা ব্যুরো := ভারত নিয়ন্ত্রিত বিতর্কিত কাশ্মীর উপত্যকার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকে আটক করে রাখার সাত মাস পর অবশেষে মুক্তি দিল দেশটির কর্তৃপক্ষ। ভারতীয় পার্লামেন্ট লোকসভার প্রবীণ এই সদস্য এবং অশীতিপর রাজনীতিবিদ গত বছরের আগস্টে কাশ্মীরকে দিখণ্ডিত করার সময় থেকে বন্দী ছিলেন।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, আজ শুক্রবার ফারুক আবদুল্লাহর মুক্তির নির্দেশ জারি হয়। তবে ওই নির্দেশে তাকে মুক্ত করে দেওয়ার কোনো কারণ উল্লেখ করেনি ভারতে মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার। তার মুক্তির আদেশে সই করেন নবগঠিত জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের মুখ্যসচিব শালীন কাবরা।

মুক্ত হওয়ার পর ফারুক আবদুল্লাহ বলেন, তার মুক্তির জন্য যারা লড়াই করেছে তিনি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। এছাড়া কাশ্মীরের বন্দী অন্যান্য নেতারও মুক্তির দাবি জানান তিনি। আগস্টে কাশ্মীরকে দিখণ্ডিত করার বিল পাশের আগে কাশ্মীরে হাজারো নেতার সঙ্গে তাকে গৃহবন্দী করা হয়।

মোদি সরকার বিতর্কিত অঞ্চল কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নিয়ে তাকে দিখণ্ডিত করার সময় উপত্যকায় ৫০ হাজারের বেশি সেনা মোতায়েন করে। যোগাযোগসহ সকল সুবিধা বিচ্ছিন্ন করে মাসের পর মাস অবরুদ্ধ করে রাখা হয় সেখানকার বাসিন্দাদের। গ্রেফতার করা হয় কাশ্মীরিদের নেতাদের।