মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মনিরামপুরে ইউএনও সেই তিন বৃদ্ধের বাড়িতে গিয়ে ক্ষমা চাইলেন

নজরুল ইসলাম :=

যশোরের মনিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহসান উল্লাহ শরিফী তিন বৃদ্ধের বাড়ি গিয়ে ক্ষমা চাইলেন। শনিবার (২৮ মার্চ) দুপুরে তিনি উপজেলার চিনাটোলা এলাকায় ওই তিন বৃদ্ধের বাড়ি যান।মাস্ক না পরায় কান ধরিয়ে ছবি তোলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসান।

ইউএনও আহসান উল্লাহ শরিফী শুক্রবার (২৭ মার্চ) বিকেলের ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়ে তিন পরিবারকে ১০ কেজি করে চাল দেন। তাদের নিরাপদে বাড়িতে থাকার জন্য বলেন। এরপর যদি খাবার ফুরিয়ে যায় তাহলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য বলেন। তাদের বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন ইউএনও।

এর আগে শুক্রবার বিকেলে মনিরামপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালান। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চিনাটোলা বাজারে অভিযানের সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে পড়েন প্রথমে দুই বৃদ্ধ। এর মধ্যে একজন বাইসাইকেল চালিয়ে আসছিলেন, অপরজন রাস্তার পাশে বসে কাঁচা তরকারি বিক্রি করছিলেন। তাদের মুখে মাস্ক ছিল না।

এ সময় পুলিশ ওই দুই বৃদ্ধকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে সাইয়েমা হাসান শাস্তি হিসেবে তাদের কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। শুধু তাই নয়, এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজেই তার মোবাইল ফোনে এ চিত্র ধারণ করেন। এছাড়া পরে অপর এক ভ্যানচালককে অনুরূপভাবে কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন।

এ ঘটনার ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে। এর জেরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

মনিরামপুরে ইউএনও সেই তিন বৃদ্ধের বাড়িতে গিয়ে ক্ষমা চাইলেন

প্রকাশের সময় : ০৯:৪৫:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০
নজরুল ইসলাম :=

যশোরের মনিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহসান উল্লাহ শরিফী তিন বৃদ্ধের বাড়ি গিয়ে ক্ষমা চাইলেন। শনিবার (২৮ মার্চ) দুপুরে তিনি উপজেলার চিনাটোলা এলাকায় ওই তিন বৃদ্ধের বাড়ি যান।মাস্ক না পরায় কান ধরিয়ে ছবি তোলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসান।

ইউএনও আহসান উল্লাহ শরিফী শুক্রবার (২৭ মার্চ) বিকেলের ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়ে তিন পরিবারকে ১০ কেজি করে চাল দেন। তাদের নিরাপদে বাড়িতে থাকার জন্য বলেন। এরপর যদি খাবার ফুরিয়ে যায় তাহলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য বলেন। তাদের বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন ইউএনও।

এর আগে শুক্রবার বিকেলে মনিরামপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালান। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চিনাটোলা বাজারে অভিযানের সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে পড়েন প্রথমে দুই বৃদ্ধ। এর মধ্যে একজন বাইসাইকেল চালিয়ে আসছিলেন, অপরজন রাস্তার পাশে বসে কাঁচা তরকারি বিক্রি করছিলেন। তাদের মুখে মাস্ক ছিল না।

এ সময় পুলিশ ওই দুই বৃদ্ধকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে সাইয়েমা হাসান শাস্তি হিসেবে তাদের কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। শুধু তাই নয়, এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজেই তার মোবাইল ফোনে এ চিত্র ধারণ করেন। এছাড়া পরে অপর এক ভ্যানচালককে অনুরূপভাবে কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন।

এ ঘটনার ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে। এর জেরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে