বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরিশালে সাংবাদিক পেটানোর ঘটনায় ৩ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

বরিশাল ব্যুরো :=

বরিশালে সাংবাদিককে পেটানোর ঘটনায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ফাঁড়ির তিন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।রোববার (২৯ মার্চ) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরিশাল মেট্রোপলিটন বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন তালুকদার।প্রত্যাহার হওয়া পুলিশ সদস্যরা হলেন, নায়েক মহসিন, কনস্টেবল কাওসার ও জাহিদুল।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন তালুকদার জানান, ওই তিন পুলিশ সদস্য বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। সাংবাদিক পেটানোর ঘটনা আমাদের কারো জানা ছিল না। শনিবার জানতে পেরে পুলিশ কমিশনার স্যারের নির্দেশে রাতভর তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় অভিযুক্তদের প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে।

এদিকে দুই সাংবাদিককে পেটানোর সময় সেখানে উপস্থিত থাকা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মোশারেফ হোসেনের কোন সম্পৃক্ততা ছিল কিনা সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে বরিশাল জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত ব্রিজের ঢালে করোনাভাইরাস সংক্রমণ সংক্রান্ত সরকারি প্রচারণার ছবি তুলতে গিয়ে পুলিশের পিটুনিতে আঞ্চলিক দৈনিক দেশ জনপদ পত্রিকার ফটোসাংবাদিক সাফিন আহমেদ রাতুল ও দৈনিক দখিনের মুখ পত্রিকার ফটোসাংবাদিক নাছির উদ্দিন গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনার বিচার দাবি করেন আহত দুই সাংবাদিকসহ বরিশাল শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত প্রেসক্লাব, বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটি ও বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বরিশালে সাংবাদিক পেটানোর ঘটনায় ৩ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

প্রকাশের সময় : ০৬:৫৫:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ মার্চ ২০২০
বরিশাল ব্যুরো :=

বরিশালে সাংবাদিককে পেটানোর ঘটনায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ফাঁড়ির তিন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।রোববার (২৯ মার্চ) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরিশাল মেট্রোপলিটন বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন তালুকদার।প্রত্যাহার হওয়া পুলিশ সদস্যরা হলেন, নায়েক মহসিন, কনস্টেবল কাওসার ও জাহিদুল।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন তালুকদার জানান, ওই তিন পুলিশ সদস্য বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। সাংবাদিক পেটানোর ঘটনা আমাদের কারো জানা ছিল না। শনিবার জানতে পেরে পুলিশ কমিশনার স্যারের নির্দেশে রাতভর তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় অভিযুক্তদের প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে।

এদিকে দুই সাংবাদিককে পেটানোর সময় সেখানে উপস্থিত থাকা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মোশারেফ হোসেনের কোন সম্পৃক্ততা ছিল কিনা সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে বরিশাল জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত ব্রিজের ঢালে করোনাভাইরাস সংক্রমণ সংক্রান্ত সরকারি প্রচারণার ছবি তুলতে গিয়ে পুলিশের পিটুনিতে আঞ্চলিক দৈনিক দেশ জনপদ পত্রিকার ফটোসাংবাদিক সাফিন আহমেদ রাতুল ও দৈনিক দখিনের মুখ পত্রিকার ফটোসাংবাদিক নাছির উদ্দিন গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনার বিচার দাবি করেন আহত দুই সাংবাদিকসহ বরিশাল শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত প্রেসক্লাব, বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটি ও বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।