সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোলায় সংবাদকর্মী সাগর চৌধুরীর উপর সন্ত্রাসী হামলা, বিভিন্ন মহলের নিন্দা ও প্রতিবাদ

কামরুজ্জামান শাহীন :নিজস্ব প্রতিনিধি॥
ভোলার বোরহানউদ্দিনে সংবাদকর্মী সাগর চৌধুরীর উপর হামলা চালিয়েছে আ’লীগ সভাপতির পুত্র সন্ত্রাসী নাবিল হায়দার। সংবাদকর্মীর উপর হামলার সময় সন্ত্রাসী নাবিল সেই দৃশ্য ভিডিও লাইভ ধারণ করেন নিজের ফেসবুকে।
মঙ্গলবার(৩১মার্চ) সকাল ৯ টার দিকে ভোলার বোরহানউদ্দিন শহরের রাজমনি সিনেমা হলের সামনে এই হামলার ঘটনা ঘটে।
সন্ত্রাসী নাবিল হায়দার ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও বড় মানিকা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জসিম হায়দারের ছেলে।
সংবাদকর্মী সাগর চৌধুরী এই প্রতিনিধিকে জানান, ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও বড় মানিকা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জসিম হায়দার জেলেদের নামে বরাদ্দকৃত চাল রাতের আধারে চুরি করে নেওয়ার ঘটনাটি উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাকে জানান। তাই আ’লীগ সভাপতি ও চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী পুত্র নাবিল হায়দার সংবাদকর্মী সাগর চৌধুরীকে মোবাইল চোর,ছিনতাইকারী অপবাদ দিয়ে মারধর করেন। এ সময় সে গুরুতর আহত হয়েছে।
নির্যাতিত সংবাদকর্মী তার উপর হামলার ঘটনায় বোরহানউদ্দিন থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে থানা পুলিশ মামলা নেয়নি। সভাপতি আর চেয়ারম্যানের প্রভাবে থানা পুলিশ মামলা নেননি বলে সংবাদকর্মী জানান।
স্থানীয়রা জানান,মতার অপ-ব্যবহার করে এভাবে জনসমে একজন সংবাদকর্মীকে পেটালো আর পাশে দাঁড়িয়ে মানুষগুলো দেখলো প্রতিবাদের সাহস না পেয়ে সিনেমার দৃশ্যের মতো তাকিয়ে দেখলো। আ’লীগের সভাপতির ছেলে বলেই এভাবে দেশের ক্রান্তিকাল সময়ে একজন সাংবাদিককে পেটানোর সাহস পেয়েছে বলে তারা আক্ষেপ করেন।
সংবাদকর্মীর উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ভোলার সাংবাদিক এবং অনলাইন এডিটরস কাউন্সিল ও বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স সোসাইটির পে সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদ ও মাহমুদ হোসেন মোয়াজ্জেম গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন। এবং হামলাকারী সন্ত্রসী নাবিলকে অবিলম্বে গ্রেপ্তারের করার দাবী জানিয়েছেন।
এছারা সংবাদকর্মীর উপর হামলাকারী সন্ত্রসাী নাবিল হায়দার ও তার আশ্রয়দাতাকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন ভোলায় কর্মরত বিভিন্ন সাংবাদিকরা।
কামরুজ্জামান শাহীন

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বিএনপির নেতাকর্মীদের কারাগারে প্রেরণ সরকারের প্রধান কর্মসূচি -মির্জা ফখরুল

ভোলায় সংবাদকর্মী সাগর চৌধুরীর উপর সন্ত্রাসী হামলা, বিভিন্ন মহলের নিন্দা ও প্রতিবাদ

প্রকাশের সময় : ০৮:১৪:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০
কামরুজ্জামান শাহীন :নিজস্ব প্রতিনিধি॥
ভোলার বোরহানউদ্দিনে সংবাদকর্মী সাগর চৌধুরীর উপর হামলা চালিয়েছে আ’লীগ সভাপতির পুত্র সন্ত্রাসী নাবিল হায়দার। সংবাদকর্মীর উপর হামলার সময় সন্ত্রাসী নাবিল সেই দৃশ্য ভিডিও লাইভ ধারণ করেন নিজের ফেসবুকে।
মঙ্গলবার(৩১মার্চ) সকাল ৯ টার দিকে ভোলার বোরহানউদ্দিন শহরের রাজমনি সিনেমা হলের সামনে এই হামলার ঘটনা ঘটে।
সন্ত্রাসী নাবিল হায়দার ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও বড় মানিকা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জসিম হায়দারের ছেলে।
সংবাদকর্মী সাগর চৌধুরী এই প্রতিনিধিকে জানান, ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও বড় মানিকা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জসিম হায়দার জেলেদের নামে বরাদ্দকৃত চাল রাতের আধারে চুরি করে নেওয়ার ঘটনাটি উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাকে জানান। তাই আ’লীগ সভাপতি ও চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী পুত্র নাবিল হায়দার সংবাদকর্মী সাগর চৌধুরীকে মোবাইল চোর,ছিনতাইকারী অপবাদ দিয়ে মারধর করেন। এ সময় সে গুরুতর আহত হয়েছে।
নির্যাতিত সংবাদকর্মী তার উপর হামলার ঘটনায় বোরহানউদ্দিন থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে থানা পুলিশ মামলা নেয়নি। সভাপতি আর চেয়ারম্যানের প্রভাবে থানা পুলিশ মামলা নেননি বলে সংবাদকর্মী জানান।
স্থানীয়রা জানান,মতার অপ-ব্যবহার করে এভাবে জনসমে একজন সংবাদকর্মীকে পেটালো আর পাশে দাঁড়িয়ে মানুষগুলো দেখলো প্রতিবাদের সাহস না পেয়ে সিনেমার দৃশ্যের মতো তাকিয়ে দেখলো। আ’লীগের সভাপতির ছেলে বলেই এভাবে দেশের ক্রান্তিকাল সময়ে একজন সাংবাদিককে পেটানোর সাহস পেয়েছে বলে তারা আক্ষেপ করেন।
সংবাদকর্মীর উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ভোলার সাংবাদিক এবং অনলাইন এডিটরস কাউন্সিল ও বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স সোসাইটির পে সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদ ও মাহমুদ হোসেন মোয়াজ্জেম গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন। এবং হামলাকারী সন্ত্রসী নাবিলকে অবিলম্বে গ্রেপ্তারের করার দাবী জানিয়েছেন।
এছারা সংবাদকর্মীর উপর হামলাকারী সন্ত্রসাী নাবিল হায়দার ও তার আশ্রয়দাতাকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন ভোলায় কর্মরত বিভিন্ন সাংবাদিকরা।
কামরুজ্জামান শাহীন