বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনা বুঝিয়ে দিলো টাকা, ক্ষমতা এগুলো কিচ্ছু না: প্রসেনজিৎ

নজরুল ইসলাম ।।  

পয়লা বৈশাখ বললে কত স্মৃতি ভিড় করে আসে। আজ সে সব কই? আজ আর কিছুই ভাল লাগছে না। ভাবিনি, কোনও দিন এ রকম পয়লা বৈশাখ কাটাতে হবে। কথা গুলো বলেছেন টলিউডের খ্যাতিমান অভিনেতা বুম্বাদা খ্যাত প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

তিনি আরও বললেন, সারা বিশ্ব এই করোনার ত্রাসে কেঁপে উঠছে। না দেখা, না চেনা ‘বায়োলজিক্যাল ওয়ার’। কী ভয়ানক যুদ্ধ! এই যুদ্ধে আমি আমার শত্রুকে চিনি না। ওই যে লোকে বলে, ‘আই অ্যাম সুপ্রিম! আমার অনেক টাকা আছে!’ এ সব টাকা, ক্ষমতা কিচ্ছু না, বুঝিয়ে দিল এই করোনা, এই নববর্ষ। দু’জন আছেন— এক জন ঈশ্বর, আর এক জন প্রকৃতি। তারাই পারবেন কিছু করতে।

এই মুহূর্তে আর কি করার আছে মনে করে বুম্বাদা বলেন, এখন কী করছে সারা বিশ্বের মানুষ? ঈশ্বরকে ডাকছে। অনেক সময় দিতে পারছি আমরা ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করার। আর প্রকৃতির প্রতি শ্রদ্ধা বেড়ে গিয়েছে আমাদের।

এই লকডাউনে কি করছেন প্রসঞ্জিত, জানালেন, বাড়িতে আছি। বাবার সঙ্গে মুম্বাইতে রোজ কথা হচ্ছে। খোঁজ নিচ্ছি ঠিক আছে কি না। যে যার মতো করে ঠিক থাকার চেষ্টা করছে। সত্যি বলতে কি, মনেই হচ্ছে না আজ পয়লা বৈশাখ! ভেতর থেকেই আসছে না। নতুন জামা পরার তো প্রশ্নই ওঠে না। খুব খারাপ লাগছে। কিন্তু এটাই জীবন। ভাবতে হবে, আমরা যদি ঠিক থাকি তবে নিশ্চয়ই পরের পয়লা বৈশাখ আমরা ধুমধাম করে কাটাতে পারব।

আক্ষেপ নিয়ে প্রসঞ্জিত আরও বলেন, আজ নতুন জামার গন্ধ নেই। আনন্দের হাসি নেই। হাসির রোল নেই আমার শহরে। পাঞ্জাবি আর শাড়িরা আজ গৃহবন্দি। আছে তো কেবল বৈশাখের হাওয়া, যা বলে যাচ্ছে পরের বৈশাখে বাঙালি নববর্ষকে বদলে যাওয়া জীবনের আলোয় আবার সাজিয়ে তুলবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

করোনা বুঝিয়ে দিলো টাকা, ক্ষমতা এগুলো কিচ্ছু না: প্রসেনজিৎ

প্রকাশের সময় : ০৪:১১:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ এপ্রিল ২০২০
নজরুল ইসলাম ।।  

পয়লা বৈশাখ বললে কত স্মৃতি ভিড় করে আসে। আজ সে সব কই? আজ আর কিছুই ভাল লাগছে না। ভাবিনি, কোনও দিন এ রকম পয়লা বৈশাখ কাটাতে হবে। কথা গুলো বলেছেন টলিউডের খ্যাতিমান অভিনেতা বুম্বাদা খ্যাত প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

তিনি আরও বললেন, সারা বিশ্ব এই করোনার ত্রাসে কেঁপে উঠছে। না দেখা, না চেনা ‘বায়োলজিক্যাল ওয়ার’। কী ভয়ানক যুদ্ধ! এই যুদ্ধে আমি আমার শত্রুকে চিনি না। ওই যে লোকে বলে, ‘আই অ্যাম সুপ্রিম! আমার অনেক টাকা আছে!’ এ সব টাকা, ক্ষমতা কিচ্ছু না, বুঝিয়ে দিল এই করোনা, এই নববর্ষ। দু’জন আছেন— এক জন ঈশ্বর, আর এক জন প্রকৃতি। তারাই পারবেন কিছু করতে।

এই মুহূর্তে আর কি করার আছে মনে করে বুম্বাদা বলেন, এখন কী করছে সারা বিশ্বের মানুষ? ঈশ্বরকে ডাকছে। অনেক সময় দিতে পারছি আমরা ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করার। আর প্রকৃতির প্রতি শ্রদ্ধা বেড়ে গিয়েছে আমাদের।

এই লকডাউনে কি করছেন প্রসঞ্জিত, জানালেন, বাড়িতে আছি। বাবার সঙ্গে মুম্বাইতে রোজ কথা হচ্ছে। খোঁজ নিচ্ছি ঠিক আছে কি না। যে যার মতো করে ঠিক থাকার চেষ্টা করছে। সত্যি বলতে কি, মনেই হচ্ছে না আজ পয়লা বৈশাখ! ভেতর থেকেই আসছে না। নতুন জামা পরার তো প্রশ্নই ওঠে না। খুব খারাপ লাগছে। কিন্তু এটাই জীবন। ভাবতে হবে, আমরা যদি ঠিক থাকি তবে নিশ্চয়ই পরের পয়লা বৈশাখ আমরা ধুমধাম করে কাটাতে পারব।

আক্ষেপ নিয়ে প্রসঞ্জিত আরও বলেন, আজ নতুন জামার গন্ধ নেই। আনন্দের হাসি নেই। হাসির রোল নেই আমার শহরে। পাঞ্জাবি আর শাড়িরা আজ গৃহবন্দি। আছে তো কেবল বৈশাখের হাওয়া, যা বলে যাচ্ছে পরের বৈশাখে বাঙালি নববর্ষকে বদলে যাওয়া জীবনের আলোয় আবার সাজিয়ে তুলবে।