শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চায়ের সঙ্গে কী খাওয়া যাবে, কী খাওয়া যাবে না তা জেনে নিন

হেয়া মহসিন ।। 

চায়ের সঙ্গে কী খাওয়া যাবে, কী খাওয়া যাবে না তা নিয়ে পুষ্টি বিজ্ঞানীরা অনেক দিন ধরেই গবেষণা করে আসছেন। চায়ের সঙ্গে কী কী চলতে পারে না বা চলা উচিত নয় একেবারেই? কেউই জানতে চান না। আর চান না বলেই, হাসিমুখে বিষপান করে চলেছেন রোজ। অনেক খাবার আছে যা চায়ের সঙ্গে খেতে ভালো লাগলেও একেবারেই খাওয়া উচিত নয়। এতে শরীর খারাপ হয়। কোনগুলো সেসব? জেনে নিন এই প্রতিবেদনে।

আয়রন সমৃদ্ধ খাবার : চায়ের ট্যানিন এবং অক্সালেট জাতীয় কিছু যৌগ আয়রন সমৃদ্ধ খাবার থেকে আয়রন শোষণে বাধা দেয়। ব্ল্যাক টিতে সবচেয়ে বেশি ট্যানিন থাকে। গ্রিন টি, সাদা চায়ে তুলনায় কম। তাই চায়ের সঙ্গে বাদাম, সবুজ পাতাওয়ালা শাক, দানা শস্য এড়িয়ে চলুন। খালি পেটেও চা খাওয়া এড়িয়ে চলুন।

আয়োডিন সমৃদ্ধ খাবারের সঙ্গে কী কী নয় : ব্রক্কোলি, ব্রাসেলস স্প্রাউট এবং বাঁধাকপির মতো সবজিতে গ্লুকোসিনোলেট নামে একটি যৌগ থাকে। যা আয়োডিন শোষণ বন্ধ করে দেয়। যার ফলে থাইরয়েড গ্রন্থির ক্ষরণ কমে যায়। যার ফলে থাইরয়েডের সমস্যায় ভুগতে হতে পারে। তাই এই সবজির সঙ্গে আয়োডিন সমৃদ্ধ খাবার মাছ, দুগ্ধজাত পণ্য এবং চায়ের সঙ্গে খাবেন না।

ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবারের সঙ্গে শুকনো বাদাম :বাদামে থাকে ফাইটিক অ্যাসিড। যা ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং জিঙ্কের শোষণে বাধা দেয়। তাই বাদামের সঙ্গে চা, সয়াবিন, মসুর, ডাল, আখরোট, মটরশুটি খাবেন না।। খাবেন না ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ অন্যান্য খাবার।

দুধ এবং টকদই :দুধ আর দই একই উপকরণ থেকে তৈরি হলেও একসঙ্গে খেলে অনেকেরই হজমের সমস্যা দেখা দেয়। গলা-বুক জ্বালা করে গ্যাস, অম্বলে। বিশেষ করে চায়ের সঙ্গে কখনোই কোনও দুগ্ধজাত খাবার খাওয়া উচিত নয়।

দুধ আর আয়রন সমৃদ্ধ খাবার :ক্যালসিয়াম আর আয়রন সমৃদ্ধ খাবার একেবারেই নয়। অনেক সময়েই ক্যালসিয়াম আয়রন শোষণে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। তাই চায়ের সঙ্গে একসঙ্গে কোনোটাই নয়।

মেলনের সঙ্গে আর কিছুই নয় :তরমুজ এমন একটি ফল যা অন্য কোনও কিছুর সঙ্গেই হজম হয় না। জোর করে খেলে তাই পেট ও হজমের সমস্যার ভোগেন বেশির ভাগ মানুষ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

চায়ের সঙ্গে কী খাওয়া যাবে, কী খাওয়া যাবে না তা জেনে নিন

প্রকাশের সময় : ০৩:৪০:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ এপ্রিল ২০২০

হেয়া মহসিন ।। 

চায়ের সঙ্গে কী খাওয়া যাবে, কী খাওয়া যাবে না তা নিয়ে পুষ্টি বিজ্ঞানীরা অনেক দিন ধরেই গবেষণা করে আসছেন। চায়ের সঙ্গে কী কী চলতে পারে না বা চলা উচিত নয় একেবারেই? কেউই জানতে চান না। আর চান না বলেই, হাসিমুখে বিষপান করে চলেছেন রোজ। অনেক খাবার আছে যা চায়ের সঙ্গে খেতে ভালো লাগলেও একেবারেই খাওয়া উচিত নয়। এতে শরীর খারাপ হয়। কোনগুলো সেসব? জেনে নিন এই প্রতিবেদনে।

আয়রন সমৃদ্ধ খাবার : চায়ের ট্যানিন এবং অক্সালেট জাতীয় কিছু যৌগ আয়রন সমৃদ্ধ খাবার থেকে আয়রন শোষণে বাধা দেয়। ব্ল্যাক টিতে সবচেয়ে বেশি ট্যানিন থাকে। গ্রিন টি, সাদা চায়ে তুলনায় কম। তাই চায়ের সঙ্গে বাদাম, সবুজ পাতাওয়ালা শাক, দানা শস্য এড়িয়ে চলুন। খালি পেটেও চা খাওয়া এড়িয়ে চলুন।

আয়োডিন সমৃদ্ধ খাবারের সঙ্গে কী কী নয় : ব্রক্কোলি, ব্রাসেলস স্প্রাউট এবং বাঁধাকপির মতো সবজিতে গ্লুকোসিনোলেট নামে একটি যৌগ থাকে। যা আয়োডিন শোষণ বন্ধ করে দেয়। যার ফলে থাইরয়েড গ্রন্থির ক্ষরণ কমে যায়। যার ফলে থাইরয়েডের সমস্যায় ভুগতে হতে পারে। তাই এই সবজির সঙ্গে আয়োডিন সমৃদ্ধ খাবার মাছ, দুগ্ধজাত পণ্য এবং চায়ের সঙ্গে খাবেন না।

ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবারের সঙ্গে শুকনো বাদাম :বাদামে থাকে ফাইটিক অ্যাসিড। যা ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং জিঙ্কের শোষণে বাধা দেয়। তাই বাদামের সঙ্গে চা, সয়াবিন, মসুর, ডাল, আখরোট, মটরশুটি খাবেন না।। খাবেন না ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ অন্যান্য খাবার।

দুধ এবং টকদই :দুধ আর দই একই উপকরণ থেকে তৈরি হলেও একসঙ্গে খেলে অনেকেরই হজমের সমস্যা দেখা দেয়। গলা-বুক জ্বালা করে গ্যাস, অম্বলে। বিশেষ করে চায়ের সঙ্গে কখনোই কোনও দুগ্ধজাত খাবার খাওয়া উচিত নয়।

দুধ আর আয়রন সমৃদ্ধ খাবার :ক্যালসিয়াম আর আয়রন সমৃদ্ধ খাবার একেবারেই নয়। অনেক সময়েই ক্যালসিয়াম আয়রন শোষণে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। তাই চায়ের সঙ্গে একসঙ্গে কোনোটাই নয়।

মেলনের সঙ্গে আর কিছুই নয় :তরমুজ এমন একটি ফল যা অন্য কোনও কিছুর সঙ্গেই হজম হয় না। জোর করে খেলে তাই পেট ও হজমের সমস্যার ভোগেন বেশির ভাগ মানুষ।