মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঝালকাঠিতে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌছে দিলেন ছাত্রলীগ

মোঃ আসলাম হাওলদার, ঝালকাঠিঃ-
শ্রমিক সংকটে ঝালকাঠির সদর উপজেলার কেউড়া ইউনিয়নের রণমতি গ্রামের কৃষক আবদুস ছত্তার’র একবিঘা জমিতে বোরো ধানের আবাদ করে সোনালী ফসল ঘরে তুলতে না পেরে পড়েছে বিপাকে।
আবহাওয়া খারাপ থাকায় তিন দিন ধরে থেমে থেমে বৃষ্টি হয়ে ধান মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। বৃদ্ধের অসহাত্মের খবর পেয়ে রণমতি গ্রামে ছুটে যায় জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। কৃষক আবদুস ছত্তারের দুরবস্থার কথা শুনে একবিঘা জমির বোরো ধান কেটে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় তাঁরা। মঙ্গলবার সকালে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক ও সাধারণ সম্পাদক এস এম আল-আমিনের নেতৃত্বে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ধান কাটতে শুরু করে।  ৪ ঘণ্টায় তাঁরা এক বিঘা জমির ধান কাটেন। পরে তাঁরা আটি বেধে ওই কৃষকের বাড়িতে ধান পৌছে দেন। ধান কেটে দেওয়ায় খুশি কৃষক ছত্তার।
জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, করোনায় ঝালকাঠি জেলায় শ্রমিক সংকট দেখা দেওয়ায় কৃষকরা তাদের ধান কাটার শ্রমিক পাচ্ছে না। খবর পেয়ে জেলা ছাত্রলীগ একটি টিম গঠন করে। যেখানেই শ্রমিক সংকট, সেখানেই ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা উপস্থিত হয়ে কৃষকের ধান কেটে দিবে। আজ থেকে এ কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

কৃষক আবদুস ছত্তার বলেন, আমি গরিব মানুষ কোথাও ধান কাটার শ্রমিক পাচ্ছিলাম না। ছাত্রলীগ এসে আমার ধান কেটে বাড়িতে দিয়ে গেছে। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

ঝালকাঠিতে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌছে দিলেন ছাত্রলীগ

প্রকাশের সময় : ০৪:১৪:৪৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ এপ্রিল ২০২০

মোঃ আসলাম হাওলদার, ঝালকাঠিঃ-
শ্রমিক সংকটে ঝালকাঠির সদর উপজেলার কেউড়া ইউনিয়নের রণমতি গ্রামের কৃষক আবদুস ছত্তার’র একবিঘা জমিতে বোরো ধানের আবাদ করে সোনালী ফসল ঘরে তুলতে না পেরে পড়েছে বিপাকে।
আবহাওয়া খারাপ থাকায় তিন দিন ধরে থেমে থেমে বৃষ্টি হয়ে ধান মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। বৃদ্ধের অসহাত্মের খবর পেয়ে রণমতি গ্রামে ছুটে যায় জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। কৃষক আবদুস ছত্তারের দুরবস্থার কথা শুনে একবিঘা জমির বোরো ধান কেটে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় তাঁরা। মঙ্গলবার সকালে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক ও সাধারণ সম্পাদক এস এম আল-আমিনের নেতৃত্বে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ধান কাটতে শুরু করে।  ৪ ঘণ্টায় তাঁরা এক বিঘা জমির ধান কাটেন। পরে তাঁরা আটি বেধে ওই কৃষকের বাড়িতে ধান পৌছে দেন। ধান কেটে দেওয়ায় খুশি কৃষক ছত্তার।
জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, করোনায় ঝালকাঠি জেলায় শ্রমিক সংকট দেখা দেওয়ায় কৃষকরা তাদের ধান কাটার শ্রমিক পাচ্ছে না। খবর পেয়ে জেলা ছাত্রলীগ একটি টিম গঠন করে। যেখানেই শ্রমিক সংকট, সেখানেই ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা উপস্থিত হয়ে কৃষকের ধান কেটে দিবে। আজ থেকে এ কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

কৃষক আবদুস ছত্তার বলেন, আমি গরিব মানুষ কোথাও ধান কাটার শ্রমিক পাচ্ছিলাম না। ছাত্রলীগ এসে আমার ধান কেটে বাড়িতে দিয়ে গেছে। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।