মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনার  মধ্যেও শার্শায় পটল ক্ষেতে সদ্যজাতক শিশুর কান্না

এম ওসমান ।। শার্শা ব্যুরো ।। 

করোনার  মধ্যেও  যশোরের শার্শা উপজেলায় পটল ক্ষেতে ফেলে যাওয়া সদ্য নবজাতক এক শিশুকে জীবিত উদ্ধার করেছেন বজলুর রহমান নামে এক কৃষক। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার কাঠুরিয়া গ্রামের একটি পটলের ক্ষেতের আইলের উপর থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করেন তিনি।

কৃষক বজলুর রহমান জানান, ভোরে পটলের ক্ষেতে কাজ করতে গিয়ে আইলের উপর একটি বস্তা পড়ে থাকতে দেখি। একটু কাছে গিয়ে দেখি ভেতর কিছু নড়াচড়া করছে।

তখন বস্তার মুখ খুলতেই দেখি সদ্য নবজাতক একটি শিশু কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় ছটফট করছে। শিশুটিকে বাড়িতে এনে প্রাথমিক পরিচর্যা করছি।এ ঘটনা মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক এলাকাবাসী শিশুটিকে একনজর দেখার জন্য ছুটে আসেন।

উলাশী ইউনিয়নের মহিলা ইউপি সদস্য মমতাজ বেগম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি এবং বজলুর রহমানের বাড়িতে গিয়ে শিশুটি বিষয় খোঁজ খবর নিয়েছি।

কৃষক বজলুর রহমান দম্পতিও নিঃসন্তান হওয়ায় তিনি শিশুটিকে নিজের সন্তানের মতোই লালন পালন করতে ইচ্ছে প্রকাশ করেন।

স্থানীয় চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবহিত করে বজলুর রহমানের হাতে শিশুটিকে তুলে দেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, রাখে আল্লাহ মারে কে, কে বা কারা শিশুটিকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে ফেলে দিয়ে যায়।আল্লাহর অশেষ মেহেরবানিতে জীবিত অবস্থায় নিঃসন্তান কৃষকের ঘরে ঠাঁই হলো তার।

শার্শা থানার ‍ ওসি আতাউর রহমান জানান, সদ্য নবজাতক একটি শিশু কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় পটল ক্ষেত থেকে উদ্ধার  হয়ে  কৃষক বজলুর রহমান নিঃসন্তান দম্পতি কাছে আছে।শিশুটিকে তার বাড়িতে ভালো আছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

করোনার  মধ্যেও শার্শায় পটল ক্ষেতে সদ্যজাতক শিশুর কান্না

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৪:৪৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল ২০২০

এম ওসমান ।। শার্শা ব্যুরো ।। 

করোনার  মধ্যেও  যশোরের শার্শা উপজেলায় পটল ক্ষেতে ফেলে যাওয়া সদ্য নবজাতক এক শিশুকে জীবিত উদ্ধার করেছেন বজলুর রহমান নামে এক কৃষক। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার কাঠুরিয়া গ্রামের একটি পটলের ক্ষেতের আইলের উপর থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করেন তিনি।

কৃষক বজলুর রহমান জানান, ভোরে পটলের ক্ষেতে কাজ করতে গিয়ে আইলের উপর একটি বস্তা পড়ে থাকতে দেখি। একটু কাছে গিয়ে দেখি ভেতর কিছু নড়াচড়া করছে।

তখন বস্তার মুখ খুলতেই দেখি সদ্য নবজাতক একটি শিশু কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় ছটফট করছে। শিশুটিকে বাড়িতে এনে প্রাথমিক পরিচর্যা করছি।এ ঘটনা মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক এলাকাবাসী শিশুটিকে একনজর দেখার জন্য ছুটে আসেন।

উলাশী ইউনিয়নের মহিলা ইউপি সদস্য মমতাজ বেগম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি এবং বজলুর রহমানের বাড়িতে গিয়ে শিশুটি বিষয় খোঁজ খবর নিয়েছি।

কৃষক বজলুর রহমান দম্পতিও নিঃসন্তান হওয়ায় তিনি শিশুটিকে নিজের সন্তানের মতোই লালন পালন করতে ইচ্ছে প্রকাশ করেন।

স্থানীয় চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবহিত করে বজলুর রহমানের হাতে শিশুটিকে তুলে দেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, রাখে আল্লাহ মারে কে, কে বা কারা শিশুটিকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে ফেলে দিয়ে যায়।আল্লাহর অশেষ মেহেরবানিতে জীবিত অবস্থায় নিঃসন্তান কৃষকের ঘরে ঠাঁই হলো তার।

শার্শা থানার ‍ ওসি আতাউর রহমান জানান, সদ্য নবজাতক একটি শিশু কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় পটল ক্ষেত থেকে উদ্ধার  হয়ে  কৃষক বজলুর রহমান নিঃসন্তান দম্পতি কাছে আছে।শিশুটিকে তার বাড়িতে ভালো আছে।