সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বৃদ্ধকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন, অভিযুক্ত তিনজন গ্রেপ্তার

সেলিম রেজা: স্টাফ রিপোর্টার:/=

চিংড়ি প্রকল্পের বর্গা বাবদ পাওনা টাকা চাওয়ায় নুরুল আলম নামে এক বৃদ্ধকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

দুপুরে পুলিশ সদরদপ্তর থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় একথা জানানো হয়েছে। পুলিশ সদরদপ্তর জানায়, কক্সবাজারের চকরিয়ায় বৃদ্ধকে নির্যাতনের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি নজরে আসামাত্রই সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তাৎক্ষণিক অভিযান চালানো হয়। রাতভর অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে কক্সবাজার জেলা পুলিশ। এ ঘটনায় করা মামলার বাকি আসামিদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

কক্সবাজারের চকরিয়ার ঢেমুশিয়া ইউনিয়নে চিংড়ি প্রকল্পের বর্গা বাবদ পাওনা টাকা চাওয়ায় নুরুল আলম নামের এক বৃদ্ধকে উলঙ্গ করে নির্যাতন করে এক ইউপি সদস্যের লোকজন। তারা গ্রামবাসীর সামনে প্রকাশ্যে ওই বৃদ্ধকে মারধর ও পরিধানের কাপড় ছিঁড়ে খুলে নেয়। বৃদ্ধকে উলঙ্গ করে নির্যাতনের একটি ভিডিও মঙ্গলবার বিকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

নির্যাতিত নুরুল আলমের ছেলে আশরাফ হোছাইন জানান, তার বাবা নুরুল আলমসহ একই এলাকার আরও দুই ব্যক্তি ওই এলাকার ইউপি সদস্যা আরজ খাতুনকে ৬ বছরের জন্য একটি চিংড়ি প্রকল্প বর্গা দিয়েছিলেন। কিন্তু আরজ খাতুন প্রতারণা করে নুরুল আলমকে চিংড়ি প্রকল্পের বর্গা বাবদ টাকা পরিশোধ করেননি। ইউপি সদস্য আরজ খাতুনের কাছ থেকে চিংড়ি প্রকল্পের বর্গা বাবদ ১ লাখ ৮২ হাজার টাকা পাওনা থেকে যায়। ওই পাওনা টাকা আজ দিবে কাল দিবে বলে না দিয়ে প্রতারণা করে আসছে। এ নিয়ে অনেক সালিশ-বিচারও হয়েছে। ওই টাকা না দিয়ে ইউপি সদস্যা আরজ খাতুন উল্টো আরও কয়েক বছরের জন্য বর্গা নিয়ে নেয়ার জন্য তার বাবাকে চাপ প্রয়োগ করে আসছেন। কিন্তু নুরুল আলম আগের টাকা না দিলে নতুন করে বর্গা দিতে অস্বীকৃতি জানালে গত ২৪ মে বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ইউপি সদস্যা আরজ খাতুনের লেলিয়ে দেয়া একাধিক মামলার আসামি আনছুর আলম, মিজান, রুবেল, রিয়াজ ও জয়নালসহ আরও বেশ কয়েকজন ঢেমুশিয়া তেচ্ছিরপুল রাস্তার মাথা নামক এলাকায় নুরুল আলমকে ধরে পরিধানের কাপড় খুলে ছিঁড়ে ফেলে গ্রামবাসীর সামনে নির্যাতন করে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বিএনপির নেতাকর্মীদের কারাগারে প্রেরণ সরকারের প্রধান কর্মসূচি -মির্জা ফখরুল

বৃদ্ধকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন, অভিযুক্ত তিনজন গ্রেপ্তার

প্রকাশের সময় : ০৮:৪৪:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুন ২০২০

সেলিম রেজা: স্টাফ রিপোর্টার:/=

চিংড়ি প্রকল্পের বর্গা বাবদ পাওনা টাকা চাওয়ায় নুরুল আলম নামে এক বৃদ্ধকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

দুপুরে পুলিশ সদরদপ্তর থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় একথা জানানো হয়েছে। পুলিশ সদরদপ্তর জানায়, কক্সবাজারের চকরিয়ায় বৃদ্ধকে নির্যাতনের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি নজরে আসামাত্রই সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তাৎক্ষণিক অভিযান চালানো হয়। রাতভর অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে কক্সবাজার জেলা পুলিশ। এ ঘটনায় করা মামলার বাকি আসামিদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

কক্সবাজারের চকরিয়ার ঢেমুশিয়া ইউনিয়নে চিংড়ি প্রকল্পের বর্গা বাবদ পাওনা টাকা চাওয়ায় নুরুল আলম নামের এক বৃদ্ধকে উলঙ্গ করে নির্যাতন করে এক ইউপি সদস্যের লোকজন। তারা গ্রামবাসীর সামনে প্রকাশ্যে ওই বৃদ্ধকে মারধর ও পরিধানের কাপড় ছিঁড়ে খুলে নেয়। বৃদ্ধকে উলঙ্গ করে নির্যাতনের একটি ভিডিও মঙ্গলবার বিকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

নির্যাতিত নুরুল আলমের ছেলে আশরাফ হোছাইন জানান, তার বাবা নুরুল আলমসহ একই এলাকার আরও দুই ব্যক্তি ওই এলাকার ইউপি সদস্যা আরজ খাতুনকে ৬ বছরের জন্য একটি চিংড়ি প্রকল্প বর্গা দিয়েছিলেন। কিন্তু আরজ খাতুন প্রতারণা করে নুরুল আলমকে চিংড়ি প্রকল্পের বর্গা বাবদ টাকা পরিশোধ করেননি। ইউপি সদস্য আরজ খাতুনের কাছ থেকে চিংড়ি প্রকল্পের বর্গা বাবদ ১ লাখ ৮২ হাজার টাকা পাওনা থেকে যায়। ওই পাওনা টাকা আজ দিবে কাল দিবে বলে না দিয়ে প্রতারণা করে আসছে। এ নিয়ে অনেক সালিশ-বিচারও হয়েছে। ওই টাকা না দিয়ে ইউপি সদস্যা আরজ খাতুন উল্টো আরও কয়েক বছরের জন্য বর্গা নিয়ে নেয়ার জন্য তার বাবাকে চাপ প্রয়োগ করে আসছেন। কিন্তু নুরুল আলম আগের টাকা না দিলে নতুন করে বর্গা দিতে অস্বীকৃতি জানালে গত ২৪ মে বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ইউপি সদস্যা আরজ খাতুনের লেলিয়ে দেয়া একাধিক মামলার আসামি আনছুর আলম, মিজান, রুবেল, রিয়াজ ও জয়নালসহ আরও বেশ কয়েকজন ঢেমুশিয়া তেচ্ছিরপুল রাস্তার মাথা নামক এলাকায় নুরুল আলমকে ধরে পরিধানের কাপড় খুলে ছিঁড়ে ফেলে গ্রামবাসীর সামনে নির্যাতন করে।