রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের হিড়িক চলছে –মির্জা ফখরুল ইসলাম

আলহাজ্ব মতিয়ার রহমান:/=

দেশব্যাপী বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দিয়ে গ্রেফতারের হিড়িক চলছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গণমাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, গত পরশু রাতে সাটুরিয়া থানা পুলিশ তিল্লি গ্রামের বিএনপি নেতার কন্যা ও বিএনপি নেত্রী মাহমুদা পলি আক্তারকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার এবং গুজব ছড়ানোর মিথ্যা অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার চন্দনাইশ উপজেলার ছাত্রদলের নেতা সাজ্জাদ হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের গ্রেফতারে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দিয়ে গ্রেফতারের হিড়িক চলছে দেশব্যাপী। বর্তমান গণবিরোধী সরকার বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নারী, পুরুষ নির্বিশেষে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে হয়রানি করার মূল উদ্দেশ্য হলো বিশ্বব্যাপী এই করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেও কেউ যেন টু শব্দ করতে না পারে। সরকার নিজেদের অবৈধ সত্তা নিয়ে সবসময় আতঙ্কের মধ্যে আছে। তাই সমালোচনাকে যমের মতো ভয় পাচ্ছে। এক অজানা আতঙ্কের মধ্যে সরকার হাবুডুবু খাচ্ছে। চারদিকে সীমাহীন ব্যর্থতা, করোনাভাইরাসের প্রকোপে বাঁধভাঙা পানির স্রোতের মতো দেশের জনগণ আক্রান্ত হচ্ছে, মৃত্যুর সারি দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। কোভিড-১৯ আক্রান্ত মানুষের এ দেশে কোনো চিকিৎসা নেই। হাসপাতালে করোনারোগীদের ভর্তি যেন এক দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘হাসপাতালে আইসিইউ ও অক্সিজেনের অভাবে আক্রান্ত রোগীরা অসহায়ভাবে কাতরাচ্ছেন। রোগীর তুলনায় শয্যা একেবারেই ন্যূনতম। আক্রান্ত মানুষ এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে ছুটতে ছুটতে রাস্তার মধ্যেই মারা যাচ্ছেন। চারদিকে ক্ষুধার জ্বালায় কর্মহীন মানুষ হাহাকার করছেন। এক দুর্ভিক্ষের ঘন-ছায়া সারাদেশে বিস্তার লাভ করছে। এই কঠিন দুঃসময় সরকার সম্মিলিতভাবে মোকাবিলা না করে বরং মিথ্যা অহমিকায় জনগণের কাছে সত্যের অপলাপ করছে। আর বিএনপিসহ বিরোধী দল ও মত যাতে মাথাচাড়া দিতে না পারে সেজন্য আগের মতোই রাষ্ট্রযন্ত্রকে কাজে লাগানো হচ্ছে নির্দয়-নিষ্ঠুরভাবে। পলির মতো একজন নারী নেত্রীও গ্রেফতারের হাত থেকে রেহায় পায়নি। এই করোনাকালেও পলি ও সাজ্জাদের মতো বিএনপির নেতাকর্মীরা সরকারি নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। সরকারের এহেন কর্মকাণ্ড অমানবিক ও কাপুরুষোচিত।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমি অবিলম্বে মাহমুদা পলি আক্তার ও ছাত্রদলনেতা সাজ্জাদ হোসেনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের হিড়িক চলছে –মির্জা ফখরুল ইসলাম

প্রকাশের সময় : ০৬:৫৫:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুন ২০২০

আলহাজ্ব মতিয়ার রহমান:/=

দেশব্যাপী বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দিয়ে গ্রেফতারের হিড়িক চলছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গণমাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, গত পরশু রাতে সাটুরিয়া থানা পুলিশ তিল্লি গ্রামের বিএনপি নেতার কন্যা ও বিএনপি নেত্রী মাহমুদা পলি আক্তারকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার এবং গুজব ছড়ানোর মিথ্যা অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার চন্দনাইশ উপজেলার ছাত্রদলের নেতা সাজ্জাদ হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের গ্রেফতারে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দিয়ে গ্রেফতারের হিড়িক চলছে দেশব্যাপী। বর্তমান গণবিরোধী সরকার বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নারী, পুরুষ নির্বিশেষে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে হয়রানি করার মূল উদ্দেশ্য হলো বিশ্বব্যাপী এই করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেও কেউ যেন টু শব্দ করতে না পারে। সরকার নিজেদের অবৈধ সত্তা নিয়ে সবসময় আতঙ্কের মধ্যে আছে। তাই সমালোচনাকে যমের মতো ভয় পাচ্ছে। এক অজানা আতঙ্কের মধ্যে সরকার হাবুডুবু খাচ্ছে। চারদিকে সীমাহীন ব্যর্থতা, করোনাভাইরাসের প্রকোপে বাঁধভাঙা পানির স্রোতের মতো দেশের জনগণ আক্রান্ত হচ্ছে, মৃত্যুর সারি দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। কোভিড-১৯ আক্রান্ত মানুষের এ দেশে কোনো চিকিৎসা নেই। হাসপাতালে করোনারোগীদের ভর্তি যেন এক দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘হাসপাতালে আইসিইউ ও অক্সিজেনের অভাবে আক্রান্ত রোগীরা অসহায়ভাবে কাতরাচ্ছেন। রোগীর তুলনায় শয্যা একেবারেই ন্যূনতম। আক্রান্ত মানুষ এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে ছুটতে ছুটতে রাস্তার মধ্যেই মারা যাচ্ছেন। চারদিকে ক্ষুধার জ্বালায় কর্মহীন মানুষ হাহাকার করছেন। এক দুর্ভিক্ষের ঘন-ছায়া সারাদেশে বিস্তার লাভ করছে। এই কঠিন দুঃসময় সরকার সম্মিলিতভাবে মোকাবিলা না করে বরং মিথ্যা অহমিকায় জনগণের কাছে সত্যের অপলাপ করছে। আর বিএনপিসহ বিরোধী দল ও মত যাতে মাথাচাড়া দিতে না পারে সেজন্য আগের মতোই রাষ্ট্রযন্ত্রকে কাজে লাগানো হচ্ছে নির্দয়-নিষ্ঠুরভাবে। পলির মতো একজন নারী নেত্রীও গ্রেফতারের হাত থেকে রেহায় পায়নি। এই করোনাকালেও পলি ও সাজ্জাদের মতো বিএনপির নেতাকর্মীরা সরকারি নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। সরকারের এহেন কর্মকাণ্ড অমানবিক ও কাপুরুষোচিত।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমি অবিলম্বে মাহমুদা পলি আক্তার ও ছাত্রদলনেতা সাজ্জাদ হোসেনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।