বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনায় আক্রান্ত কুখ্যাত আন্ডার ওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিমের মৃত্যু

প্রফেসর জিন্নাত আলী:/=

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে কুখ্যাত আন্ডার ওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিমের। গোয়েন্দা সূত্রে এমনটাই খবর। পাকিস্তানের করাচি শহরের লিয়াকত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসা চলছিল মুম্বই ধারাবাহিক বিস্ফোরণের অন্যতন চক্রীর।

সূত্রের খবর, শুক্রবার রাতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে দাউদের। গতকাল থেকেই করাচির লিয়াকত সামরিক হাসপাতালে চূড়ান্ত ব্যস্ততা দেখা গিয়েছে। পাক সেনার শীর্ষই আধিকারিক ও গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের বেশ কয়েকজন অফিসারকে ওই হাসপাতালে গম্ভীর মুখে প্রবেশ করতে ও বেরতে দেখা গিয়েছে।

আগেই করাচির সামরিক হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত হয়ে সস্ত্রীক ভরতি রয়েছে দাউদ বলে জানা যায়। যদিও ডনের ভাই অনিস ইব্রাহিমের দাবি, তার দাদা ও বৌদি কারোরই শরীরে কোভিড জীবাণু মেলেনি। তবে সূত্রের খবর, দাউদের সমস্ত রক্ষী  সহচরদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দাউদ যে সপরিবারে পাকিস্তানে লুকিয়ে রয়েছে এবং সেখান থেকে অপরাধ জগতের রিমোট কন্ট্রোল হাতে রেখেছে তা আগেই ইসলামাবাদকে তথ্যপ্রমাণ-সহ জানিয়েছে নয়াদিল্লি।

কিন্তু সে তথ্য বারবার স্বভাবসিদ্ধ ঢঙেই অস্বীকার করেছে পাকিস্তান। দুবাই-শারজাতেও দাউদের আনাগোনার প্রমাণ হাতে এসেছে ভারতীয় ইন্টেলিজেন্সের।

রাডারে থাকলেও কূটনীতির বেড়াজালে বহুবার দাউদ ফস্কেছে ভারতের হাত থেকে। এদিকে, আমেরিকা দাউদকে জঙ্গি তকমা দেওয়ায় পাকিস্তান ছাড়াও কঠিন হয়ে গিয়েছে মাফিয়া ডনের। পাক গুপ্তচর সংস্থা ISI ঢালের মতো দাউদকে হামলার হাত থেকে বারবার বাঁচায়। প্রসঙ্গত, শুক্রবার পর্যন্ত পাকিস্তানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৯,২৪৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক ৪৮৯৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ১৮৩৮ জনের। কিন্তু এহেন পরিস্থিতিতেও আন্তর্জাতিক বিশেষ করে ভারত বিরোধী সন্ত্রাসবাদীদের মদত দেওয়া থামাচ্ছে না দেশটি।সুত্র: বাংলাদেশ পোস্ট

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

করোনায় আক্রান্ত কুখ্যাত আন্ডার ওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিমের মৃত্যু

প্রকাশের সময় : ০৭:৪২:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুন ২০২০

প্রফেসর জিন্নাত আলী:/=

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে কুখ্যাত আন্ডার ওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিমের। গোয়েন্দা সূত্রে এমনটাই খবর। পাকিস্তানের করাচি শহরের লিয়াকত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসা চলছিল মুম্বই ধারাবাহিক বিস্ফোরণের অন্যতন চক্রীর।

সূত্রের খবর, শুক্রবার রাতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে দাউদের। গতকাল থেকেই করাচির লিয়াকত সামরিক হাসপাতালে চূড়ান্ত ব্যস্ততা দেখা গিয়েছে। পাক সেনার শীর্ষই আধিকারিক ও গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের বেশ কয়েকজন অফিসারকে ওই হাসপাতালে গম্ভীর মুখে প্রবেশ করতে ও বেরতে দেখা গিয়েছে।

আগেই করাচির সামরিক হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত হয়ে সস্ত্রীক ভরতি রয়েছে দাউদ বলে জানা যায়। যদিও ডনের ভাই অনিস ইব্রাহিমের দাবি, তার দাদা ও বৌদি কারোরই শরীরে কোভিড জীবাণু মেলেনি। তবে সূত্রের খবর, দাউদের সমস্ত রক্ষী  সহচরদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দাউদ যে সপরিবারে পাকিস্তানে লুকিয়ে রয়েছে এবং সেখান থেকে অপরাধ জগতের রিমোট কন্ট্রোল হাতে রেখেছে তা আগেই ইসলামাবাদকে তথ্যপ্রমাণ-সহ জানিয়েছে নয়াদিল্লি।

কিন্তু সে তথ্য বারবার স্বভাবসিদ্ধ ঢঙেই অস্বীকার করেছে পাকিস্তান। দুবাই-শারজাতেও দাউদের আনাগোনার প্রমাণ হাতে এসেছে ভারতীয় ইন্টেলিজেন্সের।

রাডারে থাকলেও কূটনীতির বেড়াজালে বহুবার দাউদ ফস্কেছে ভারতের হাত থেকে। এদিকে, আমেরিকা দাউদকে জঙ্গি তকমা দেওয়ায় পাকিস্তান ছাড়াও কঠিন হয়ে গিয়েছে মাফিয়া ডনের। পাক গুপ্তচর সংস্থা ISI ঢালের মতো দাউদকে হামলার হাত থেকে বারবার বাঁচায়। প্রসঙ্গত, শুক্রবার পর্যন্ত পাকিস্তানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৯,২৪৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক ৪৮৯৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ১৮৩৮ জনের। কিন্তু এহেন পরিস্থিতিতেও আন্তর্জাতিক বিশেষ করে ভারত বিরোধী সন্ত্রাসবাদীদের মদত দেওয়া থামাচ্ছে না দেশটি।সুত্র: বাংলাদেশ পোস্ট