সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনা এক্সপ্রেসই মমতা সরকারকে বাংলার বাইরে পাঠাবে — অমিত শাহ

রোকনুজ্জামান রিপন:/=

জনসংবাদ র‌্যালি’-র মাধ্যমে বাংলায় (West Bengal) এবার পরিবর্তনের ডাক দিলেন অমিত শাহ। সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করে রাজ্যের মানুষকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) নেতৃত্বাধীন তৃণমূল সরকার হঠানোর ডাক দিলেন বিজেপির চাণক্য (Amit Shah)। মঙ্গলবারের ওই ভার্চুয়াল র‍্যালিতে অংশ নিয়েছেন রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতারাও। “আমরা রাজনীতি করছি না, রাজনীতি করছেন মমতাদি”, আক্রমণাত্মক ঢঙে এমন কথা বলেই রাজ্যের তৃণমূল সরকারকে বেঁধেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। কেন্দ্রের নানা সুবিধা থেকে পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দাদের বঞ্চিত করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কৃষকদের বঞ্চিত করছেন তিনি।  নরেন্দ্র মোদি ক্রমেই এ রাজ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠছেন, এই ভয়ে ভুগছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, একথাও বলেন অমিত শাহ।

খুব তাড়াতাড়ি বাংলায় বিজেপি সরকার আসতে চলেছে, এমন কথাও বলেন বিজেপির পোড় খাওয়া নেতা। ‘করোনা এক্সপ্রেস’ই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে বাংলা থেকে বাইরে পাঠিয়ে দেবে, পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রতি তৃণমূল সরকারের বঞ্চনার অভিযোগ তুলে ধরে বলেন অমিত শাহ।

মঙ্গলবার ভার্চুয়াল সমাবেশের মাধ্যমে রীতিমতো পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের জন্যে বিজেপির সুর বেঁধে দিলেন অমিত শাহ। “বাংলা থেকে বামেদের সরিয়ে রাজ্যের মানুষ তৃণমূল সরকার এনে ভুগছেন, একবার বিজেপি সরকারকে সুযোগ দিয়ে দেখুন পস্তাবেন না”, এভাবেই বলেন ওই বিজেপি নেতা। পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কাছে গত ১০ বছরের কাজের হিসাব চাইলেন অমিত শাহ।

‘সোনার বাংলা’ গড়ার ডাক দিয়ে মঙ্গলবার অমিত শাহ বলেন, “যে রাজ্যে একসময় রবীন্দ্রসঙ্গীতের সুর শোনা যেত, সেখানে এখন শুধুই বোমা ও গোলাগুলির আওয়াজ শোনা যায়”। রাজ্যে লাগাতার রাজনৈতিক হিংসা চলছে, তাই এই পরিস্থিতির পরিবর্তন চাইলে রাজ্যের মানুষ ভারতীয় জনতা পার্টিকে সুযোগ দিক, দরাজ কণ্ঠে আহ্বান জানান তিনি।

পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি সামলাতে ব্যর্থ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার, সরাসরি এই অভিযোগও করেন অমিত শাহ। পাশাপাশি রাজ্য সরকার বাংলায় করোনা যোদ্ধাদের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ, একথাও বলেন তিনি।

আয়ুষ্মান প্রকল্পের মতো কার্যকরী কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন না বাংলার মানুষ, এবিষয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে দোষারোপ করে অমিত শাহ বলেন, “আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের মাধ্যমে সারা দেশে সুবিধা পাচ্ছেন গরিব মানুষ, কিন্তু এরাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওই প্রকল্প চালু করতে দেননি। তবে কি বাংলার মানুষ স্বাস্থ্যের অধিকার পাবেন না?” যদি আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে পালাবদল হয় এবং বিজেপি সরকার গঠন করতে পারে তবে পশ্চিমবঙ্গের মানুষও আয়ুষ্মান প্রকল্পের সুবিধা পাবেন, এমন নিশ্চয়তা দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, “নির্বাচন শেষ হতে দিন, রাজ্যে বিজেপি সরকার এলেই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প চালু হবে”।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

বিএনপির নেতাকর্মীদের কারাগারে প্রেরণ সরকারের প্রধান কর্মসূচি -মির্জা ফখরুল

করোনা এক্সপ্রেসই মমতা সরকারকে বাংলার বাইরে পাঠাবে — অমিত শাহ

প্রকাশের সময় : ০৭:৪১:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুন ২০২০

রোকনুজ্জামান রিপন:/=

জনসংবাদ র‌্যালি’-র মাধ্যমে বাংলায় (West Bengal) এবার পরিবর্তনের ডাক দিলেন অমিত শাহ। সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করে রাজ্যের মানুষকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) নেতৃত্বাধীন তৃণমূল সরকার হঠানোর ডাক দিলেন বিজেপির চাণক্য (Amit Shah)। মঙ্গলবারের ওই ভার্চুয়াল র‍্যালিতে অংশ নিয়েছেন রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতারাও। “আমরা রাজনীতি করছি না, রাজনীতি করছেন মমতাদি”, আক্রমণাত্মক ঢঙে এমন কথা বলেই রাজ্যের তৃণমূল সরকারকে বেঁধেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। কেন্দ্রের নানা সুবিধা থেকে পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দাদের বঞ্চিত করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কৃষকদের বঞ্চিত করছেন তিনি।  নরেন্দ্র মোদি ক্রমেই এ রাজ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠছেন, এই ভয়ে ভুগছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, একথাও বলেন অমিত শাহ।

খুব তাড়াতাড়ি বাংলায় বিজেপি সরকার আসতে চলেছে, এমন কথাও বলেন বিজেপির পোড় খাওয়া নেতা। ‘করোনা এক্সপ্রেস’ই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে বাংলা থেকে বাইরে পাঠিয়ে দেবে, পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রতি তৃণমূল সরকারের বঞ্চনার অভিযোগ তুলে ধরে বলেন অমিত শাহ।

মঙ্গলবার ভার্চুয়াল সমাবেশের মাধ্যমে রীতিমতো পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের জন্যে বিজেপির সুর বেঁধে দিলেন অমিত শাহ। “বাংলা থেকে বামেদের সরিয়ে রাজ্যের মানুষ তৃণমূল সরকার এনে ভুগছেন, একবার বিজেপি সরকারকে সুযোগ দিয়ে দেখুন পস্তাবেন না”, এভাবেই বলেন ওই বিজেপি নেতা। পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কাছে গত ১০ বছরের কাজের হিসাব চাইলেন অমিত শাহ।

‘সোনার বাংলা’ গড়ার ডাক দিয়ে মঙ্গলবার অমিত শাহ বলেন, “যে রাজ্যে একসময় রবীন্দ্রসঙ্গীতের সুর শোনা যেত, সেখানে এখন শুধুই বোমা ও গোলাগুলির আওয়াজ শোনা যায়”। রাজ্যে লাগাতার রাজনৈতিক হিংসা চলছে, তাই এই পরিস্থিতির পরিবর্তন চাইলে রাজ্যের মানুষ ভারতীয় জনতা পার্টিকে সুযোগ দিক, দরাজ কণ্ঠে আহ্বান জানান তিনি।

পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি সামলাতে ব্যর্থ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার, সরাসরি এই অভিযোগও করেন অমিত শাহ। পাশাপাশি রাজ্য সরকার বাংলায় করোনা যোদ্ধাদের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ, একথাও বলেন তিনি।

আয়ুষ্মান প্রকল্পের মতো কার্যকরী কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন না বাংলার মানুষ, এবিষয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে দোষারোপ করে অমিত শাহ বলেন, “আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের মাধ্যমে সারা দেশে সুবিধা পাচ্ছেন গরিব মানুষ, কিন্তু এরাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওই প্রকল্প চালু করতে দেননি। তবে কি বাংলার মানুষ স্বাস্থ্যের অধিকার পাবেন না?” যদি আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে পালাবদল হয় এবং বিজেপি সরকার গঠন করতে পারে তবে পশ্চিমবঙ্গের মানুষও আয়ুষ্মান প্রকল্পের সুবিধা পাবেন, এমন নিশ্চয়তা দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, “নির্বাচন শেষ হতে দিন, রাজ্যে বিজেপি সরকার এলেই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প চালু হবে”।