সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘উপসর্গহীনদের লালায় যে পরিমাণ করোনা তাতে অন্যদের সংক্রমিত করবেই’

মো: ইদ্রিস আলী:/= 

করোনাভাইরাসের উপসর্গহীনরা ভাইরাসটি সেভাবে ছড়ায়না বলে অভিমত দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তবে সংস্থাটির এ মতামতের সঙ্গে একমত নন বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ড. বিজন কুমার শীল।

সম্প্রতি তিনি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভাবে অনেক কিছুই। তারা অনেক পরে অনেক কিছু স্বীকার করে। এখন তারা বলছে, উপসর্গ না থাকা রোগীরা সংক্রমণ ঘটায় না। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কিসের ওপর ভিত্তি করে এ কথা বলেছে, আমি জানি না। এই বক্তব্য বা অবস্থানের সঙ্গে দৃঢ়ভাবে দ্বিমত পোষণ করছি।

ড. বিজন কুমার শীল বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত গবেষণা করছি। গবেষণায় প্রমাণ মিলছে, উপসর্গহীন করোনা আক্রান্তদের লালায় প্রচুর পরিমাণে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি। তাদের লালায় যে পরিমাণ ভাইরাস পাচ্ছি, তা অন্যদের সংক্রমিত করবেই। উপসর্গহীনরাও ভাইরাস ছড়ায়, তারা অবশ্যই সংক্রমণের কারণ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, উপসর্গহীন রোগীর থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর ব্যাপারটি এখনো বিরল প্রতীয়মান হচ্ছে।

উপসর্গহীনরাও করোনা ছড়ায় জানিয়ে ড. বিজন শীল এ বিষয়ে বলেন, যাদের শরীরে কোনো প্রকার লক্ষণ নেই তাদের লালাতে প্রচুর পরিমাণে ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যাচ্ছে। এই মানুষগুলো আমাদের জন্য ভয়ের কারণ। তারা অসুস্থ নন, সম্পূর্ণ সুস্থ। কিন্তু, তাদের কথা বলার সময় বা বিভিন্নভাবেই থুতুর সঙ্গে ভাইরাসটি আমাদের মাঝে ছড়াচ্ছে। আর শেষ গ্রুপ হচ্ছে যারা এখনও ভাইরাসটির সংস্পর্শে আসেননি। তাদের সংখ্যা অনেক বেশি। তাদেরও অনেকের মধ্যেই এ ভাইরাসের সংক্রমণ হবে, অনেকের হয়ত কোনো লক্ষণ দেখা যাবে না। তাদের মাধ্যমে ভাইরাসটি আরো ছড়াবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

‘উপসর্গহীনদের লালায় যে পরিমাণ করোনা তাতে অন্যদের সংক্রমিত করবেই’

প্রকাশের সময় : ১২:৩৪:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুন ২০২০

মো: ইদ্রিস আলী:/= 

করোনাভাইরাসের উপসর্গহীনরা ভাইরাসটি সেভাবে ছড়ায়না বলে অভিমত দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তবে সংস্থাটির এ মতামতের সঙ্গে একমত নন বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ড. বিজন কুমার শীল।

সম্প্রতি তিনি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভাবে অনেক কিছুই। তারা অনেক পরে অনেক কিছু স্বীকার করে। এখন তারা বলছে, উপসর্গ না থাকা রোগীরা সংক্রমণ ঘটায় না। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কিসের ওপর ভিত্তি করে এ কথা বলেছে, আমি জানি না। এই বক্তব্য বা অবস্থানের সঙ্গে দৃঢ়ভাবে দ্বিমত পোষণ করছি।

ড. বিজন কুমার শীল বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত গবেষণা করছি। গবেষণায় প্রমাণ মিলছে, উপসর্গহীন করোনা আক্রান্তদের লালায় প্রচুর পরিমাণে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি। তাদের লালায় যে পরিমাণ ভাইরাস পাচ্ছি, তা অন্যদের সংক্রমিত করবেই। উপসর্গহীনরাও ভাইরাস ছড়ায়, তারা অবশ্যই সংক্রমণের কারণ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, উপসর্গহীন রোগীর থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর ব্যাপারটি এখনো বিরল প্রতীয়মান হচ্ছে।

উপসর্গহীনরাও করোনা ছড়ায় জানিয়ে ড. বিজন শীল এ বিষয়ে বলেন, যাদের শরীরে কোনো প্রকার লক্ষণ নেই তাদের লালাতে প্রচুর পরিমাণে ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যাচ্ছে। এই মানুষগুলো আমাদের জন্য ভয়ের কারণ। তারা অসুস্থ নন, সম্পূর্ণ সুস্থ। কিন্তু, তাদের কথা বলার সময় বা বিভিন্নভাবেই থুতুর সঙ্গে ভাইরাসটি আমাদের মাঝে ছড়াচ্ছে। আর শেষ গ্রুপ হচ্ছে যারা এখনও ভাইরাসটির সংস্পর্শে আসেননি। তাদের সংখ্যা অনেক বেশি। তাদেরও অনেকের মধ্যেই এ ভাইরাসের সংক্রমণ হবে, অনেকের হয়ত কোনো লক্ষণ দেখা যাবে না। তাদের মাধ্যমে ভাইরাসটি আরো ছড়াবে।