শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নাসিমের জানাজায় গিয়ে মরতেও রাজি জাফরুল্লাহ

নুরুজ্জামান লিটন:/=

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় অংশ নেয়ার বিষয়ে গণসাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, আমি যদি মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় গিয়ে মারাও যাই, তবুও আমি তার জানাজায় যেতে চাই।

রোববার দুপুরে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ফেসবুক পেজে গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মু‌হিব উল্লাহ খোন্দকার বলেছেন, গতকাল রাতে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী যখন জানতে পারেন যে, তিনি করোনামুক্ত হয়েছেন, তখনই মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় যাওয়ার প্রবল ইচ্ছা পোষণ করেন। মোহাম্মদ নাসিমের সঙ্গে হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্ক ছিল-উল্লেখ করে গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের চিকিৎসক-নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের তিনি বলেন, আমি যদি মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় গিয়ে মারাও যাই, তবুও আমি তার জানাজায় যেতে চাই।

মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় অংশ নিয়েছেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। রোববার সকালে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে মোহাম্মদ নাসিমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর সেখানে উপস্থিত হয়ে আওয়ামী লীগ নেতা ও অন্যান্যরা মোহাম্মদ নাসিমকে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানান। পরে তাকে মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়।

এর আগে সকাল ৯টা ৩৫ মিনিটে রাজধানীর ধানমন্ডিতে সোবহানবাগ মসজিদে প্রথম এবং ১০টা ৩৫ মিনিটে বনানীতে তার দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

আটদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে শনিবার বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর শ্যামলী বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মোহাম্মদ নাসিম।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

ব্রায়ান লারার অপরাজিত ৪০০ রানের রেকর্ড, দু’দশক আজ

নাসিমের জানাজায় গিয়ে মরতেও রাজি জাফরুল্লাহ

প্রকাশের সময় : ০৫:৫৪:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুন ২০২০

নুরুজ্জামান লিটন:/=

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় অংশ নেয়ার বিষয়ে গণসাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, আমি যদি মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় গিয়ে মারাও যাই, তবুও আমি তার জানাজায় যেতে চাই।

রোববার দুপুরে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ফেসবুক পেজে গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মু‌হিব উল্লাহ খোন্দকার বলেছেন, গতকাল রাতে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী যখন জানতে পারেন যে, তিনি করোনামুক্ত হয়েছেন, তখনই মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় যাওয়ার প্রবল ইচ্ছা পোষণ করেন। মোহাম্মদ নাসিমের সঙ্গে হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্ক ছিল-উল্লেখ করে গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের চিকিৎসক-নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের তিনি বলেন, আমি যদি মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় গিয়ে মারাও যাই, তবুও আমি তার জানাজায় যেতে চাই।

মোহাম্মদ নাসিমের জানাজায় অংশ নিয়েছেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। রোববার সকালে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে মোহাম্মদ নাসিমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর সেখানে উপস্থিত হয়ে আওয়ামী লীগ নেতা ও অন্যান্যরা মোহাম্মদ নাসিমকে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানান। পরে তাকে মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়।

এর আগে সকাল ৯টা ৩৫ মিনিটে রাজধানীর ধানমন্ডিতে সোবহানবাগ মসজিদে প্রথম এবং ১০টা ৩৫ মিনিটে বনানীতে তার দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

আটদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে শনিবার বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর শ্যামলী বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মোহাম্মদ নাসিম।