মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাড়ে ৬ লাখ তরুণ-তরুণীকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের করে দেয়ার ট্রাম্পের পরিকল্পনা আটকে গেল সুপ্রিম কোর্টে

প্রফেসর জিন্নাত আলী:/= 

বৈধ কাগজপত্র না থাকায় সাড়ে ৬ লাখ তরুণ-তরুণীকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের করে দিতে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি পরিকল্পনা আটকে দিয়েছে মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট।

বিবিসি জানায়, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে এসব তরুণ-তরুণীদের যুক্তরাষ্ট্রে অস্থায়ীভাবে থাকা ও কাজের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। বাবা-মা’র সঙ্গে বৈধ কাগজপত্র ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে আসেন অনিবন্ধিত এসব তরুণ-তরুণীরা। ‘ড্রিমার্স’ নামে তারা পরিচিত।

তাদের বহিঃসমর্পণ আটকাতে ২০১২ সালে ওবামা প্রশাসন  ‘ডেফার্ড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইভাল’ (ডাকা) নামে একটি কর্মসূচি  নিয়েছিল। প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর ট্রাম্প এ সুরক্ষা কর্মসূচি বাতিলের সিদ্ধান্ত নেন। যার ফলে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা ও কাজের সুযোগ হারাবেন এসব তরুণ-তরুণীরা।

তবে বৃহস্পতিবার মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারক কর্মসূচিটি বাতিলে ট্রাম্প প্রশাসনের পরিকল্পনার বিপক্ষে অবস্থান নেন। ২০১৭ সালে এক সিদ্ধান্তে দেশটির নিম্ন আদালত  ট্রাম্প প্রশাসনের সিদ্ধান্তকে ‘বিধিবহির্ভূত’ বলে জানায়।

বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের ৫ বিচারক নিম্ন আদালতের সেই রায়কে বহাল রাখার পক্ষে অবস্থান নেন। তবে এর বিপক্ষে থাকেন ৪ জন বিচারক। এসব অভিবাসী তরুণদের সুরক্ষা দিতে ডাকা কর্মসূচি বাতিলে যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের পদক্ষেপকে ‘খামখেয়ালি ও অবিবেচনাপ্রসূত’ কাজ বলে অভিহিত করেন বিচারকেরা।

ফলে সুপ্রিম কোর্টের এই আদেশের ফলে অস্থায়ীভাবে থাকা প্রায় সাড়ে ৬ লাখ তরুণ-তরুণী যুক্তরাষ্ট্রে আরও দুই বছর কাজ করার সুযোগ পেলেন। তবে আদালতের এ আদেশের পরও ট্রাম্প ডাকা কর্মসূচি বাতিলের জন্য ফের পদক্ষেপ নিতে পারবেন। যদিও নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে এ নিয়ে তিনি নতুন করে কোনো আইনি লড়াইয়ে যাবেন না বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

সাড়ে ৬ লাখ তরুণ-তরুণীকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের করে দেয়ার ট্রাম্পের পরিকল্পনা আটকে গেল সুপ্রিম কোর্টে

প্রকাশের সময় : ০৭:৫০:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুন ২০২০

প্রফেসর জিন্নাত আলী:/= 

বৈধ কাগজপত্র না থাকায় সাড়ে ৬ লাখ তরুণ-তরুণীকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের করে দিতে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি পরিকল্পনা আটকে দিয়েছে মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট।

বিবিসি জানায়, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে এসব তরুণ-তরুণীদের যুক্তরাষ্ট্রে অস্থায়ীভাবে থাকা ও কাজের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। বাবা-মা’র সঙ্গে বৈধ কাগজপত্র ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে আসেন অনিবন্ধিত এসব তরুণ-তরুণীরা। ‘ড্রিমার্স’ নামে তারা পরিচিত।

তাদের বহিঃসমর্পণ আটকাতে ২০১২ সালে ওবামা প্রশাসন  ‘ডেফার্ড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইভাল’ (ডাকা) নামে একটি কর্মসূচি  নিয়েছিল। প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর ট্রাম্প এ সুরক্ষা কর্মসূচি বাতিলের সিদ্ধান্ত নেন। যার ফলে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা ও কাজের সুযোগ হারাবেন এসব তরুণ-তরুণীরা।

তবে বৃহস্পতিবার মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারক কর্মসূচিটি বাতিলে ট্রাম্প প্রশাসনের পরিকল্পনার বিপক্ষে অবস্থান নেন। ২০১৭ সালে এক সিদ্ধান্তে দেশটির নিম্ন আদালত  ট্রাম্প প্রশাসনের সিদ্ধান্তকে ‘বিধিবহির্ভূত’ বলে জানায়।

বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের ৫ বিচারক নিম্ন আদালতের সেই রায়কে বহাল রাখার পক্ষে অবস্থান নেন। তবে এর বিপক্ষে থাকেন ৪ জন বিচারক। এসব অভিবাসী তরুণদের সুরক্ষা দিতে ডাকা কর্মসূচি বাতিলে যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের পদক্ষেপকে ‘খামখেয়ালি ও অবিবেচনাপ্রসূত’ কাজ বলে অভিহিত করেন বিচারকেরা।

ফলে সুপ্রিম কোর্টের এই আদেশের ফলে অস্থায়ীভাবে থাকা প্রায় সাড়ে ৬ লাখ তরুণ-তরুণী যুক্তরাষ্ট্রে আরও দুই বছর কাজ করার সুযোগ পেলেন। তবে আদালতের এ আদেশের পরও ট্রাম্প ডাকা কর্মসূচি বাতিলের জন্য ফের পদক্ষেপ নিতে পারবেন। যদিও নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে এ নিয়ে তিনি নতুন করে কোনো আইনি লড়াইয়ে যাবেন না বলে ধারণা করা হচ্ছে।