শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

যশোরের পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেনের মহানুভবতায় করোনা পজিটিভ পরিবার ক্ষুধার যন্ত্রনা থেকে রেহাই পেলো

রোকনুজ্জামান রিপন:/=

যশোরের পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেনের মহানুভবতায় করোনা পজিটিভ ৫ সদস্যের একটি পরিবার ক্ষুধার যন্ত্রনা থেকে রেহাই পেলো। পুলিশের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে করোনা পজেটিভ কলেজ ছাত্রীর আবেগঘন  স্ট্যাটাস পেয়ে ব্যাগভর্তি নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী নিয়ে পুলিশের একটি দল হাজির হন করোনা পজেটিভ কলেজ ছাত্রীর বাড়িতে।এভাবেই দিন রাত সেবা দিয়ে যাচ্ছে যশোর জেলা পুলিশ । পুলিশের দ্রুত বাড়িতে খাবার নিয়ে আসা একে বারেই বিস্বাস করতে পারছিল না কলেজ ছাত্রীর পরিবার।

জেলা পুলিশ যশোরের অফিশিয়াল ফেসবুক পেইজ এ একজন করোনা পজেটিভ কলেজ ছাত্রীর আবেগঘন ম্যাসেজ, স্যার আমি একজন করোনা পজিটিভ। গত সাত দিন হলো আমার করোনা পজেটিভ এসেছে।

‘এই সাত দিন যাবত আমিসহ আমার পরিবারের পাঁচ জন সদস্য ঘর বন্দি ভাবে দিন কাটাচ্ছি, এমতাবস্থায় আমাদের বাসার খাবার ও নগদ অর্থ শেষ হয়ে গেছে। স্যার এভাবে চলতে থাকলে হয়তো আগামীকাল থেকে শুধু ভাত আর পানি খেয়ে আমাদের থাকতে হবে। স্যার আমাদের জন্য কিছু একটা ব্যবস্থা করেন প্লিজ।’

ম্যাসেজ টি সম্পর্কে পুলিশ মিডিয়া সেল এর ইনচার্জ সোহেল মাতুব্বর পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেনকে অবহিত করে।

পুলিশ সুপার মিডিয়া সেলকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করেন। পুলিশ মিডিয়া সেল এর ইনচার্জ সোহেল মাতুব্বর বিষয়টি কেসবপুর থানার ওসি জসীম উদ্দীনকে জানান।

কেসবপুর থানার ওসি ব্যাগভর্তি নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী নিয়ে হাজির হন করোনা পজেটিভ কলেজ ছাত্রীর বাড়িতে, খাবার সামগ্রী তুলে দেন তার হাতে এবং খোঁজ নেন তার পরিবার কিভাবে চলছে।

কলেজ ছাত্রী বলেন, সত্যি আমি ভাবতেই পারেনি এভাবে আমার বাড়িতে এতো দ্রুত বাজার নিয়ে হাজির হবে পুলিশ।

কলেজ ছাত্রী পুলিশ সুপারের এমন মহানুভবতার জন্য বাংলাদেশ পুলিশকে স্যালুট জানান।আজ শনিবার যশোর জেলা পুলিশের ফেসবুক পেজ থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

যশোরের পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেনের মহানুভবতায় করোনা পজিটিভ পরিবার ক্ষুধার যন্ত্রনা থেকে রেহাই পেলো

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৩:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জুন ২০২০

রোকনুজ্জামান রিপন:/=

যশোরের পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেনের মহানুভবতায় করোনা পজিটিভ ৫ সদস্যের একটি পরিবার ক্ষুধার যন্ত্রনা থেকে রেহাই পেলো। পুলিশের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে করোনা পজেটিভ কলেজ ছাত্রীর আবেগঘন  স্ট্যাটাস পেয়ে ব্যাগভর্তি নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী নিয়ে পুলিশের একটি দল হাজির হন করোনা পজেটিভ কলেজ ছাত্রীর বাড়িতে।এভাবেই দিন রাত সেবা দিয়ে যাচ্ছে যশোর জেলা পুলিশ । পুলিশের দ্রুত বাড়িতে খাবার নিয়ে আসা একে বারেই বিস্বাস করতে পারছিল না কলেজ ছাত্রীর পরিবার।

জেলা পুলিশ যশোরের অফিশিয়াল ফেসবুক পেইজ এ একজন করোনা পজেটিভ কলেজ ছাত্রীর আবেগঘন ম্যাসেজ, স্যার আমি একজন করোনা পজিটিভ। গত সাত দিন হলো আমার করোনা পজেটিভ এসেছে।

‘এই সাত দিন যাবত আমিসহ আমার পরিবারের পাঁচ জন সদস্য ঘর বন্দি ভাবে দিন কাটাচ্ছি, এমতাবস্থায় আমাদের বাসার খাবার ও নগদ অর্থ শেষ হয়ে গেছে। স্যার এভাবে চলতে থাকলে হয়তো আগামীকাল থেকে শুধু ভাত আর পানি খেয়ে আমাদের থাকতে হবে। স্যার আমাদের জন্য কিছু একটা ব্যবস্থা করেন প্লিজ।’

ম্যাসেজ টি সম্পর্কে পুলিশ মিডিয়া সেল এর ইনচার্জ সোহেল মাতুব্বর পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেনকে অবহিত করে।

পুলিশ সুপার মিডিয়া সেলকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করেন। পুলিশ মিডিয়া সেল এর ইনচার্জ সোহেল মাতুব্বর বিষয়টি কেসবপুর থানার ওসি জসীম উদ্দীনকে জানান।

কেসবপুর থানার ওসি ব্যাগভর্তি নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী নিয়ে হাজির হন করোনা পজেটিভ কলেজ ছাত্রীর বাড়িতে, খাবার সামগ্রী তুলে দেন তার হাতে এবং খোঁজ নেন তার পরিবার কিভাবে চলছে।

কলেজ ছাত্রী বলেন, সত্যি আমি ভাবতেই পারেনি এভাবে আমার বাড়িতে এতো দ্রুত বাজার নিয়ে হাজির হবে পুলিশ।

কলেজ ছাত্রী পুলিশ সুপারের এমন মহানুভবতার জন্য বাংলাদেশ পুলিশকে স্যালুট জানান।আজ শনিবার যশোর জেলা পুলিশের ফেসবুক পেজ থেকে এসব তথ্য জানা যায়।