মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর ওপারে ভালো থাকুক, শান্তিতে থাকুক: রুনা লায়লা

রোকনুজ্জামান রিপন:/=

এন্ড্রু কিশোরের চলে যাওয়া নিয়ে গভীর শোক প্রকাশ করেছে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা। তিনি বলেন, তার না থাকা নিয়ে আমাকে কিছু বলতে হবে, তা কখনও কল্পনাও করিনি। একসঙ্গে কত গান করেছি আমরা, কত গান তার জনপ্রিয় হয়েছে তা প্রকাশ করার ভাষা নেই।

এন্ড্রু বিশেষ করে রেকর্ডিংয়ের ক্ষেত্রে  ছিল খুবই মনোযোগী। সে কম কথা বলতো, কাজ করতো পুরো মনোযোগ দিয়ে। তার সঙ্গে রেকর্ডিং করতে গিয়ে দেখেছি সে কতোটা ডেডিকেটেড ছিল কাজের প্রতি।

আমি মূলত একাই শো করি, সে জন্যই হয়তো এমন। একসঙ্গে শো না করা হলেও তার সঙ্গে আমার যোগাযোগ প্রায়ই হতো। তার একটা কাজ আমার খুব ভালো লাগত, সুস্থ থাকার সময়গুলোতে প্রতি ক্রিসমাসে সে আমার বাসায় কেক পাঠাত। এটা সত্যিই ভালো লাগার একটি বিষয় ছিল। কখনও সে এ কাজটা মিস করত না।

কষ্ট হচ্ছে খুব, সে আমাদের মাঝে আর নেই। জানি না আমিও কবে চলে যাই। আগামী ক্রিসমাস পর্যন্ত যদি আল্লাহ আমাকে বাঁচিয়ে রাখেন, তাহলে সে দিনটিতে তাকে খুব বেশি মিস করব। হয়তো মনের অজান্তে তার কেকের জন্য অপেক্ষাও করব।

তার শেষ দিনগুলোতে নিয়মিতই খোঁজ নিতাম। শেষ অবস্থাটা জানতাম। সে আর ফিরবে না, কিন্তু এখনও বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে এন্ড্রু নেই। যার সঙ্গে এত এত কাজ করেছি, তার চলে যাওয়া কত কষ্টের তা বলে বোঝাতে পারব না। এটুকুই বলতে চাই, এন্ড্রু ওপারে ভালো থাকুক, শান্তিতে থাকুক।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর ওপারে ভালো থাকুক, শান্তিতে থাকুক: রুনা লায়লা

প্রকাশের সময় : ১২:৫১:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ জুলাই ২০২০

রোকনুজ্জামান রিপন:/=

এন্ড্রু কিশোরের চলে যাওয়া নিয়ে গভীর শোক প্রকাশ করেছে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা। তিনি বলেন, তার না থাকা নিয়ে আমাকে কিছু বলতে হবে, তা কখনও কল্পনাও করিনি। একসঙ্গে কত গান করেছি আমরা, কত গান তার জনপ্রিয় হয়েছে তা প্রকাশ করার ভাষা নেই।

এন্ড্রু বিশেষ করে রেকর্ডিংয়ের ক্ষেত্রে  ছিল খুবই মনোযোগী। সে কম কথা বলতো, কাজ করতো পুরো মনোযোগ দিয়ে। তার সঙ্গে রেকর্ডিং করতে গিয়ে দেখেছি সে কতোটা ডেডিকেটেড ছিল কাজের প্রতি।

আমি মূলত একাই শো করি, সে জন্যই হয়তো এমন। একসঙ্গে শো না করা হলেও তার সঙ্গে আমার যোগাযোগ প্রায়ই হতো। তার একটা কাজ আমার খুব ভালো লাগত, সুস্থ থাকার সময়গুলোতে প্রতি ক্রিসমাসে সে আমার বাসায় কেক পাঠাত। এটা সত্যিই ভালো লাগার একটি বিষয় ছিল। কখনও সে এ কাজটা মিস করত না।

কষ্ট হচ্ছে খুব, সে আমাদের মাঝে আর নেই। জানি না আমিও কবে চলে যাই। আগামী ক্রিসমাস পর্যন্ত যদি আল্লাহ আমাকে বাঁচিয়ে রাখেন, তাহলে সে দিনটিতে তাকে খুব বেশি মিস করব। হয়তো মনের অজান্তে তার কেকের জন্য অপেক্ষাও করব।

তার শেষ দিনগুলোতে নিয়মিতই খোঁজ নিতাম। শেষ অবস্থাটা জানতাম। সে আর ফিরবে না, কিন্তু এখনও বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে এন্ড্রু নেই। যার সঙ্গে এত এত কাজ করেছি, তার চলে যাওয়া কত কষ্টের তা বলে বোঝাতে পারব না। এটুকুই বলতে চাই, এন্ড্রু ওপারে ভালো থাকুক, শান্তিতে থাকুক।