শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মন্ত্রিসভায় রদবদলের জোর গুঞ্জন,আসছে নতুন মুখ,

নুরুজ্জামান লিটন:/=

মন্ত্রিসভায় রদবদলের জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়সহ কয়েকটি মন্ত্রণালয়ে পরিবর্তন আসছে। মন্ত্রিসভায় যুক্ত হতে পারে কয়েকটি নতুন মুখও। তবে কবে, কখন ও কাকে কোন দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে সে বিষয়ে নিশ্চিত তথ্য নেই আওয়ামী লীগ নেতাদের কাছে। তারা বলছেন, সবই নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তের ওপর।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে টানা তৃতীয়বার সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ। ৭ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২৪ মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী ও ৩ উপমন্ত্রী নিয়ে ৪৭ সদস্যের মন্ত্রিসভার যাত্রা শুরু হয়।

এরপর থেকেই মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের কাজের মূল্যায়ন শুরু হয়। প্রায় দেড় বছরে সমালোচনা হয়েছে বেশ কয়েকজনকে নিয়ে। গত বছর দেশে ডেঙ্গুর প্রকোপের মধ্যে সপরিবারে মালয়েশিয়ায় যাওয়ায় প্রশ্নবিদ্ধ হন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। করোনা মহামারিতেও তার বিরুদ্ধে অক্ষমতার অভিযোগ উঠেছে। মন্ত্রিসভায় এর প্রতিফলন দেখা যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে, প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহর মৃত্যুর পর ফাঁকা হয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। মন্ত্রিসভা পুনর্বিন্যাসে এ মন্ত্রণালয়ের শূন্যতা ঘোচানোও বিবেচনায় থাকছে। এর পাশাপাশি পূর্ণমন্ত্রী নেই আরো ১১টিতে। এসব জায়গায় বসতে পারেন নতুন কেউ।

শেষবার মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ হয় ২০১৯ সালের ১৩ জুলাই। সেদিন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ পদোন্নতি পেয়ে পূর্ণমন্ত্রী হন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

ব্রায়ান লারার অপরাজিত ৪০০ রানের রেকর্ড, দু’দশক আজ

মন্ত্রিসভায় রদবদলের জোর গুঞ্জন,আসছে নতুন মুখ,

প্রকাশের সময় : ০৪:০৩:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ জুলাই ২০২০

নুরুজ্জামান লিটন:/=

মন্ত্রিসভায় রদবদলের জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়সহ কয়েকটি মন্ত্রণালয়ে পরিবর্তন আসছে। মন্ত্রিসভায় যুক্ত হতে পারে কয়েকটি নতুন মুখও। তবে কবে, কখন ও কাকে কোন দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে সে বিষয়ে নিশ্চিত তথ্য নেই আওয়ামী লীগ নেতাদের কাছে। তারা বলছেন, সবই নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তের ওপর।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে টানা তৃতীয়বার সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ। ৭ জানুয়ারি আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২৪ মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী ও ৩ উপমন্ত্রী নিয়ে ৪৭ সদস্যের মন্ত্রিসভার যাত্রা শুরু হয়।

এরপর থেকেই মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের কাজের মূল্যায়ন শুরু হয়। প্রায় দেড় বছরে সমালোচনা হয়েছে বেশ কয়েকজনকে নিয়ে। গত বছর দেশে ডেঙ্গুর প্রকোপের মধ্যে সপরিবারে মালয়েশিয়ায় যাওয়ায় প্রশ্নবিদ্ধ হন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। করোনা মহামারিতেও তার বিরুদ্ধে অক্ষমতার অভিযোগ উঠেছে। মন্ত্রিসভায় এর প্রতিফলন দেখা যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে, প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহর মৃত্যুর পর ফাঁকা হয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। মন্ত্রিসভা পুনর্বিন্যাসে এ মন্ত্রণালয়ের শূন্যতা ঘোচানোও বিবেচনায় থাকছে। এর পাশাপাশি পূর্ণমন্ত্রী নেই আরো ১১টিতে। এসব জায়গায় বসতে পারেন নতুন কেউ।

শেষবার মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ হয় ২০১৯ সালের ১৩ জুলাই। সেদিন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ পদোন্নতি পেয়ে পূর্ণমন্ত্রী হন।