মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

যশোরে বিদ্যুতের স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার উদ্বোধন

নুরুজ্জামান লিটন #

ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির আওতাধীন যশোর এলাকায় বিদ্যুতের স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটারের উদ্বোধন হয়েছে গতকাল মঙ্গলবার। বিদ্যুৎ, জালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি বলেন, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবারহের লক্ষ্যে সারাদেশে চার কোটি স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করতে চায় সরকার। এরমধ্যে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই এক কোটি মিটার স্থাপন করা হবে। প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপনের পাশাপাশি যশোরে আন্ডার গ্রাউন্ড কেবল স্থাপন করা হবে। সে লক্ষ্যে জরিপও সম্পন্ন হয়েছে।
যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য। তিনি বলেন, সরকারের লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা। ইতোমধ্যে সরকার কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছে গেছে। দেশের বেশির ভাগ গ্রাম বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছে।
ভিডিও কনফারেন্স বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির চেয়ারম্যান ও বিদ্যুৎ, জালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রহমত উল্লাহ দস্তাগীর, যশোর সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, বক্তব্য রাখেন ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির খুলনা বিভাগীয় ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিক উদ্দীন, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির যশোরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও পরিচালন, সংরক্ষণ সার্কেল ও স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার প্রকল্প পরিচালক শহিদুল আলম। আরো বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন।
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন যশোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল হাসান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যশোর জেলা প্রশাসকের বাংলোয় প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হয়।
স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন কার্যক্রম উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির খুলনা বিভাগীয় ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিক উদ্দীন জানান, চার জেলায় ১ লাখ ৮৮ হাজার ১১৩টি প্রিপেমেন্ট মিটার ও ২৭৬টি ট্রান্সফরমার, ৭০ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ৫১ কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন, ৬টি উপকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।
এর মধ্যে যশোরে ৪৫ হাজার ৯৬২ টি সিঙ্গেল ও থ্রি ফেজ মিটার স্থাপন করা হবে। এর মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগ-১ এর আওতায় সিঙ্গেল ২১ হাজার ৫৪৫,৭৪২ টি থ্রি ফেজ মিটার ও বিদ্যুৎ বিভাগ-২ এর আওতায় সিংগেল ২২ হাজার ৯৭৯ ও ৬৯৬ টি থ্রি ফেজ মিটার স্থাপন করা হবে। এছাড়া যশোরে ২২ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ১৯ কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন, ১৫৩ টি ট্রান্সফরমার, ৪টি বিদ্যুতের উপকেন্দ্র স্থাপন কাজ শুরু করা হয়েছে। এর মধ্যে ১টি উপকেন্দ্র পরীক্ষামূলক ভাবে চালু করা হয়েছে। পরে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে। যশোরে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবারহের জন্য আন্ডারগ্রাউন্ড কেবল স্থাপন করা হবে। এ কাজের জন্য এশিয়া ব্যাংকের সাথে আলোচনা করা হয়েছে। খুব শিগগির কাজ শুরু করা হবে।
এছাড়া মাগুরা সিঙ্গেল ১৪ হাজার ৮৪৮ ও থ্রি ফেজ ২২৯ প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হবে। ১টি বিদ্যুতের উপকেন্দ্র, ৪৬টি ট্রান্সফরমার, ২২ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ১৩ কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন করা হয়েছে। সাতক্ষীরা সিঙ্গেল ২৩ হাজার ৫৩০ও ৮৫৮থ্রি ফেজ মিটার স্থাপন করা হবে। ১টি বিদ্যুতের উপকেন্দ্র, ৪০টি ট্রান্সফরমার, ১৫ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ৯কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন করা হয়েছে। নড়াইল সিংগেল ৯হাজার ৭৮৬ ও ২১২ থ্রি ফেজ স্থাপন করা হবে। ৩৭টি ট্রান্সফরমার, ১১ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ১০ কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন করা হয়েছে।
বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম জানান যশোরে ৩৫ হাজার ৯৬২ মিটার স্থানের লক্ষ্যমাত্রা হয়েছে। ইতোমধ্যে যশোরে ৯ হাজার স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

লেখকের সম্পর্কে

Shahriar Hossain

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

শুরু হচ্ছে দেশের প্রথম পাতাল রেলের নির্মাণকাজ

যশোরে বিদ্যুতের স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার উদ্বোধন

প্রকাশের সময় : ০৭:৪৫:০৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২০

নুরুজ্জামান লিটন #

ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির আওতাধীন যশোর এলাকায় বিদ্যুতের স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটারের উদ্বোধন হয়েছে গতকাল মঙ্গলবার। বিদ্যুৎ, জালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি বলেন, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবারহের লক্ষ্যে সারাদেশে চার কোটি স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করতে চায় সরকার। এরমধ্যে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই এক কোটি মিটার স্থাপন করা হবে। প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপনের পাশাপাশি যশোরে আন্ডার গ্রাউন্ড কেবল স্থাপন করা হবে। সে লক্ষ্যে জরিপও সম্পন্ন হয়েছে।
যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য। তিনি বলেন, সরকারের লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা। ইতোমধ্যে সরকার কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছে গেছে। দেশের বেশির ভাগ গ্রাম বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছে।
ভিডিও কনফারেন্স বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির চেয়ারম্যান ও বিদ্যুৎ, জালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রহমত উল্লাহ দস্তাগীর, যশোর সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, বক্তব্য রাখেন ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির খুলনা বিভাগীয় ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিক উদ্দীন, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির যশোরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও পরিচালন, সংরক্ষণ সার্কেল ও স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার প্রকল্প পরিচালক শহিদুল আলম। আরো বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন।
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন যশোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল হাসান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যশোর জেলা প্রশাসকের বাংলোয় প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হয়।
স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন কার্যক্রম উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির খুলনা বিভাগীয় ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিক উদ্দীন জানান, চার জেলায় ১ লাখ ৮৮ হাজার ১১৩টি প্রিপেমেন্ট মিটার ও ২৭৬টি ট্রান্সফরমার, ৭০ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ৫১ কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন, ৬টি উপকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।
এর মধ্যে যশোরে ৪৫ হাজার ৯৬২ টি সিঙ্গেল ও থ্রি ফেজ মিটার স্থাপন করা হবে। এর মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগ-১ এর আওতায় সিঙ্গেল ২১ হাজার ৫৪৫,৭৪২ টি থ্রি ফেজ মিটার ও বিদ্যুৎ বিভাগ-২ এর আওতায় সিংগেল ২২ হাজার ৯৭৯ ও ৬৯৬ টি থ্রি ফেজ মিটার স্থাপন করা হবে। এছাড়া যশোরে ২২ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ১৯ কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন, ১৫৩ টি ট্রান্সফরমার, ৪টি বিদ্যুতের উপকেন্দ্র স্থাপন কাজ শুরু করা হয়েছে। এর মধ্যে ১টি উপকেন্দ্র পরীক্ষামূলক ভাবে চালু করা হয়েছে। পরে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে। যশোরে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবারহের জন্য আন্ডারগ্রাউন্ড কেবল স্থাপন করা হবে। এ কাজের জন্য এশিয়া ব্যাংকের সাথে আলোচনা করা হয়েছে। খুব শিগগির কাজ শুরু করা হবে।
এছাড়া মাগুরা সিঙ্গেল ১৪ হাজার ৮৪৮ ও থ্রি ফেজ ২২৯ প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হবে। ১টি বিদ্যুতের উপকেন্দ্র, ৪৬টি ট্রান্সফরমার, ২২ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ১৩ কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন করা হয়েছে। সাতক্ষীরা সিঙ্গেল ২৩ হাজার ৫৩০ও ৮৫৮থ্রি ফেজ মিটার স্থাপন করা হবে। ১টি বিদ্যুতের উপকেন্দ্র, ৪০টি ট্রান্সফরমার, ১৫ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ৯কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন করা হয়েছে। নড়াইল সিংগেল ৯হাজার ৭৮৬ ও ২১২ থ্রি ফেজ স্থাপন করা হবে। ৩৭টি ট্রান্সফরমার, ১১ কিলোমিটার নতুন লাইন স্থাপন, ১০ কিলোমিটার লাইন পুনর্বাসন করা হয়েছে।
বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম জানান যশোরে ৩৫ হাজার ৯৬২ মিটার স্থানের লক্ষ্যমাত্রা হয়েছে। ইতোমধ্যে যশোরে ৯ হাজার স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হয়েছে।