Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১রবিবার , ১৪ মার্চ ২০২১
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন

অনেক কর্মকর্তা কর্মচারীই মন্ত্রী পরিষদের আইন মানছেন না

বার্তাকন্ঠ
মার্চ ১৪, ২০২১ ৮:৪৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সজীব আকবর, ঢাকা ব্যুরো ## সরকারি অনেক কর্মকর্তা কর্মচারীই মন্ত্রী পরিষদের আইনকানুন মানছেন না বলে আবারো অভিযোগ উঠেছে। অনেক আগেই  মাঠপর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সকাল ৯টা থেকে ৯টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত অফিসে থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কিন্তু এখনো অনেক কর্মকর্তা এই সময়ে অফিসে উপস্থিত থাকছেন না বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। এ জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ আবারও এক নির্দেশনায় মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবশ্যিকভাবে এই সময়ে অফিসে অবস্থান করার জন্য কঠোর নির্দেশনা দিয়েছে।

১০ মার্চের জারিকৃত এই নির্দেশনাপত্র সব বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে পাঠিয়েছে মন্ত্রীপরিষদ। আগের এক নির্দেশনাপত্রের সূত্র ধরে নতুন করে এই নির্দেশনাপত্র দেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

জারিকৃত এই আদেশে বলা হয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মাঠপর্যায়ের দপ্তরগুলোর কার্যক্রম নিয়মিতভাবে তদারকি করা হয়। কিন্তু মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার ক্ষেত্রে অনেক কর্মকর্তাকে যথাসময়ে অফিসকক্ষে উপস্থিত পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ মন্ত্রীপরিষদের। আর এ কারণে জনসাধারণ ও অন্যান্য সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রয়োজনীয় সংযোগ স্থাপন করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। ফলে সাধারণ নাগরিকেরা যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন, তেমনি সরকারি কাজের গতিও নাজেহাল হয়ে পড়ছে শম্ভূকগতিতে।

ইতোপূর্বে আগে ২০১৯ সালের আগস্টে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক পরিপত্রে মাঠপর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সকাল ৯টা থেকে ৯টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত অফিসে থাকতে বলা হয়েছিলো। তবে অফিসের নির্ধারিত সময় সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা— আগের মতোই থাকবে।

সেবাগ্রহণকারী নাগরিকদের সুবিধা এবং সরকারি কর্মকাণ্ডে গতি আনতে ও সমন্বয় বাড়ানোর জন্য এই সময়ে অফিসে অবস্থান করে অফিসের কার্যক্রম পরিচালনা করতে বলেছিলো মন্ত্রী পরিষদ।

দাপ্তরিক কর্মসূচি প্রণয়নের সময়ও সকাল ৯টা থেকে ৯টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত অফিসে অবস্থান যাতে ব্যাহত না হয়, সে বিষয়টি লক্ষ রাখতেও বলা হয়েছিল ওই পরিপত্রে।

তবে ভিভিআইপি বা ভিআইপিদের প্রটোকল, আকস্মিকভাবে সংঘটিত কোনো বড় ধরনের দুর্ঘটনা মোকাবিলা, গুরুত্বপূর্ণ সভায় যোগ দেওয়া এবং অনুমোদিত ভ্রমণসূচি অনুযায়ী সফরের ক্ষেত্রে এই বাধ্যবাধকতা প্রযোজ্য হবে না বলেই স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন মন্ত্রী পরিষদ।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।