শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

তালেবানদের সাথে তুমুল যুদ্ধ, ১৯ আফগান সেনা নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।আফগানিস্তানের বিভিন্ন এলাকায় সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়ছে তালেবান যোদ্ধারা। এসব সংঘর্ষে বৃহস্পতিবারের আগের ২৪ ঘণ্টায় সেনাবাহিনীর অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছেন। যার মধ্যে তিনজন গণপ্রতিরোধ বাহিনীর সদস্য।আফগানিস্তানের গণমাধ্যম টোলো নিউজ এ তথ্য জানায়।

খবরে বলা হয়, তালেবানের সঙ্গে সরকারি বাহিনীর তীব্র সংঘর্ষ হচ্ছে দেশের বিভিন্ন এলাকায়। সংঘর্ষের ফলে মৃত্যু হয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীর ১৯ জনের। এ ছাড়া হেলমান্দ প্রদেশের মারজাহ ও গার্মসির জেলা ছেড়ে চলে গেছেন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। এর পর এ দুই জেলা দখলে নিয়েছে তালেবান।

সেনাদের সরে যাওয়ার বিষয়ে পার্লামেন্টের সদস্য কারিম আতা বলেন, এটি একটি কৌশলগত পদক্ষেপ, সেখানে পুনরায় কার্যক্রম চালানোর ক্ষেত্রে কিছু সমস্যার কারণে সুরক্ষা বাহিনীকে লস্করগাহ শহরে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর একটি সূত্র জানায়, কুনার প্রদেশের গাজী আবাদ জেলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তালেবানের তীব্র লড়াই হয়।

আর হেলমান্দ, কাপিসা, কুন্দুজ, তাকার, বাদাখশান, লোগার, কান্দাহার এবং জাওজান প্রদেশের বিভিন্ন এলাকায় এখনও তীব্র সংঘর্ষ হচ্ছে।

এসব সংঘর্ষে বৃহস্পতিবারের আগের ২৪ ঘণ্টায় তালেবানের ৬০ সদস্য নিহত হয়েছে বলে দাবি নিরাপত্তা বাহিনীর।

তীব্র লড়াইয়ের মধ্যেও থেমে নেই তালেবানের অগ্রযাত্রা

তীব্র লড়াইয়ের মধ্যে একের পর এক জেলা দখল করছে তালেবান। সংঘাতপূর্ণ ফারিয়াব প্রদেশের ১৩ জেলার দখল নিয়েছে গোষ্ঠীটি। বর্তমানে শুধু প্রদেশের রাজধানী মায়মানা এবং আকিনা ও আন্দখোই বন্দরে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন রাখা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার প্রক্রিয়ার মধ্যে আফগানিস্তানের ২১৫টি জেলার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবান। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থলবন্দরও রয়েছে।

তালেবানদের সাথে তুমুল যুদ্ধ, ১৯ আফগান সেনা নিহত

প্রকাশের সময় : ০৩:১৭:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।আফগানিস্তানের বিভিন্ন এলাকায় সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়ছে তালেবান যোদ্ধারা। এসব সংঘর্ষে বৃহস্পতিবারের আগের ২৪ ঘণ্টায় সেনাবাহিনীর অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছেন। যার মধ্যে তিনজন গণপ্রতিরোধ বাহিনীর সদস্য।আফগানিস্তানের গণমাধ্যম টোলো নিউজ এ তথ্য জানায়।

খবরে বলা হয়, তালেবানের সঙ্গে সরকারি বাহিনীর তীব্র সংঘর্ষ হচ্ছে দেশের বিভিন্ন এলাকায়। সংঘর্ষের ফলে মৃত্যু হয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীর ১৯ জনের। এ ছাড়া হেলমান্দ প্রদেশের মারজাহ ও গার্মসির জেলা ছেড়ে চলে গেছেন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। এর পর এ দুই জেলা দখলে নিয়েছে তালেবান।

সেনাদের সরে যাওয়ার বিষয়ে পার্লামেন্টের সদস্য কারিম আতা বলেন, এটি একটি কৌশলগত পদক্ষেপ, সেখানে পুনরায় কার্যক্রম চালানোর ক্ষেত্রে কিছু সমস্যার কারণে সুরক্ষা বাহিনীকে লস্করগাহ শহরে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর একটি সূত্র জানায়, কুনার প্রদেশের গাজী আবাদ জেলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তালেবানের তীব্র লড়াই হয়।

আর হেলমান্দ, কাপিসা, কুন্দুজ, তাকার, বাদাখশান, লোগার, কান্দাহার এবং জাওজান প্রদেশের বিভিন্ন এলাকায় এখনও তীব্র সংঘর্ষ হচ্ছে।

এসব সংঘর্ষে বৃহস্পতিবারের আগের ২৪ ঘণ্টায় তালেবানের ৬০ সদস্য নিহত হয়েছে বলে দাবি নিরাপত্তা বাহিনীর।

তীব্র লড়াইয়ের মধ্যেও থেমে নেই তালেবানের অগ্রযাত্রা

তীব্র লড়াইয়ের মধ্যে একের পর এক জেলা দখল করছে তালেবান। সংঘাতপূর্ণ ফারিয়াব প্রদেশের ১৩ জেলার দখল নিয়েছে গোষ্ঠীটি। বর্তমানে শুধু প্রদেশের রাজধানী মায়মানা এবং আকিনা ও আন্দখোই বন্দরে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন রাখা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার প্রক্রিয়ার মধ্যে আফগানিস্তানের ২১৫টি জেলার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবান। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থলবন্দরও রয়েছে।