বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুসলিম শিক্ষার্থীর সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে ইতিহাস, পশ্চিমবংগে

আজ শুক্রবার আনন্দবাজার পত্রিকা অনলাইনকে রুমানা সুলতানা বলেন, তার নামের আগে মুসলিম না বললেই ভালো হয়। কেবল ছাত্রী বললে বেশি ভালো হয় এবং এটা নিয়ে কোনো বিতর্কের সৃষ্টি না হলে আরও ভালো।

এর আগে বৃহস্পতিবার ফলাফল ঘোষণা করার সময় পশ্চিমবঙ্গের উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের প্রধান মহুয়া দাস বলেছিলেন, সর্বোচ্চ নম্বরের ভিত্তিতে একটা ইতিহাস হয়েছে এবং তা বলতে ইচ্ছে করছে। যিনি সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছেন তিনি মুর্শিদাবাদ জেলা থেকে এক মুসলিম কন্যা। এককভাবে সে সর্বোচ্চ ৪৯৯ নম্বর অর্জন করেছেন।

তবে তিনি নাম উল্লেখ করেননি। বলেছেন, অনলাইনে গিয়ে দেখতে। মূলত এরপর থেকেই বিতর্ক শুরু। অনেকের বক্তব্য, একজন মুসলিম মেয়ে এত ভালো ফল করায় তা অবশ্যই বলা উচিত। কারণ, রাজ্যে এখনো মুসলিম মেয়ে ও নারীদের অনেক বাধা পার হতে হয়।

আবার অনেকের বক্তব্য, কেনো ভালো ফলাফলের ক্ষেত্রে জাত বা ধর্ম উল্লেখ করতে হবে। কারণ, এর মধ্য দিয়ে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়।

রুমানার বাবা রবিউল আলম পেশায় স্কুলশিক্ষক এবং মা সুলতানা পারভিন শিক্ষিকা। তবে তারা বিতর্কের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

মুসলিম শিক্ষার্থীর সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে ইতিহাস, পশ্চিমবংগে

প্রকাশের সময় : ০৬:৫৫:৩৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১

আজ শুক্রবার আনন্দবাজার পত্রিকা অনলাইনকে রুমানা সুলতানা বলেন, তার নামের আগে মুসলিম না বললেই ভালো হয়। কেবল ছাত্রী বললে বেশি ভালো হয় এবং এটা নিয়ে কোনো বিতর্কের সৃষ্টি না হলে আরও ভালো।

এর আগে বৃহস্পতিবার ফলাফল ঘোষণা করার সময় পশ্চিমবঙ্গের উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের প্রধান মহুয়া দাস বলেছিলেন, সর্বোচ্চ নম্বরের ভিত্তিতে একটা ইতিহাস হয়েছে এবং তা বলতে ইচ্ছে করছে। যিনি সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছেন তিনি মুর্শিদাবাদ জেলা থেকে এক মুসলিম কন্যা। এককভাবে সে সর্বোচ্চ ৪৯৯ নম্বর অর্জন করেছেন।

তবে তিনি নাম উল্লেখ করেননি। বলেছেন, অনলাইনে গিয়ে দেখতে। মূলত এরপর থেকেই বিতর্ক শুরু। অনেকের বক্তব্য, একজন মুসলিম মেয়ে এত ভালো ফল করায় তা অবশ্যই বলা উচিত। কারণ, রাজ্যে এখনো মুসলিম মেয়ে ও নারীদের অনেক বাধা পার হতে হয়।

আবার অনেকের বক্তব্য, কেনো ভালো ফলাফলের ক্ষেত্রে জাত বা ধর্ম উল্লেখ করতে হবে। কারণ, এর মধ্য দিয়ে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়।

রুমানার বাবা রবিউল আলম পেশায় স্কুলশিক্ষক এবং মা সুলতানা পারভিন শিক্ষিকা। তবে তারা বিতর্কের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।