শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

এসএসসি-এইচএসসির সঙ্গে ষষ্ঠ-নবম শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট স্থগিত

প্রভাষক মামুনুর রশিদ ।।

করোনাভাইরাস মহামারি পরিস্থিতিতে চলমান ‘কঠোর বিধিনিষেধ’র কারণে ২০২২ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট বিতরণ-গ্রহণ কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। একইসঙ্গে স্থগিত থাকবে নিম্ন-মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক স্তরের এ একই কার্যক্রম। রোববার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) পৃথক দুই স্মারকে এ তথ্য জানানো হয়। আদেশ বাস্তবায়নে সংস্থাটির মাঠপ্রশাসনকে নির্দেশনা দিয়েছে।

মাউশি মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক জানান, শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের চলাচলে সরকারি বিধিনিষেধ আছে। এ কারণে অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম পরবর্তী সিদ্ধান্ত না নেওয়া পর্যন্ত স্থগিত থাকবে। তবে ২০২১ এসএসসি পরীক্ষার্থীদের দেওয়া ৩ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ঘরে বসে সম্পন্ন করবে তারা। আর কাল (আজ) এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করা হবে না। সরকারি বিধিনিষেধ প্রত্যাহারের পর এ স্তরের অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হবে। তাদের অ্যাসাইনমেন্ট প্রস্তুত আছে।

১৮ মার্চ রাতে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করে সরকার। তাতে ৫ আগস্ট পর্যন্ত ৩ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হয়। ঘোষণা অনুযায়ী, এ পরীক্ষার্থীরা শুধু নৈর্বাচনিক তিনটি করে বিষয়ের ২৪টি অ্যাসাইনমেন্ট করবে। তবে এসএসসিতে বিজ্ঞান, মানবিক ও বিজনেস স্টাডিজের ১১টি বিষয় আছে। প্রত্যেকটির জন্যই তিনটি করে অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে এইচএসসিতে বিভিন্ন বিভাগের ২৭টি নৈর্বাচনিক বিষয় আছে। প্রত্যেক বিষয়ের তিনটি করে অ্যাসাইনমেন্ট তৈরি করে মাউশির কাছে হস্তান্তর করেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। ঘোষণা অনুযায়ী এ দুই পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের কোনো আবশ্যিক ও অতিরিক্ত বিষয়ে অ্যাসাইনমেন্ট করতে হবে না। এ ধরনের বিষয়ের ওপর কোনো পরীক্ষাও হবে না।

করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় কয়েক দফা উদ্যোগ নিয়েও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সচল করা যায়নি। শুধু তাই নয়, এ সময় কোনো পাবলিক পরীক্ষায়ও বসতে পারেনি শিক্ষার্থীরা। গত বছরের এইচএসসি, পিইসি, জেএসসিসহ সব পাবলিক পরীক্ষা বাতিল হয়েছে। পেয়েছে ‘অটো পাশ’। এবারের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা যথাক্রমে ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলে নির্ধারিত ছিল। কিন্তু এখন পর্যন্ত নেওয়া যায়নি।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তাদের পরিমার্জিত সিলেবাস দেওয়া হয়েছে। এর ওপরে এখন অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হচ্ছে। পরিস্থিতি অনুকূলে এলে নভেম্বর-ডিসেম্বরে তাদের পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

এসএসসি-এইচএসসির সঙ্গে ষষ্ঠ-নবম শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট স্থগিত

প্রকাশের সময় : ০১:২২:৩১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১

প্রভাষক মামুনুর রশিদ ।।

করোনাভাইরাস মহামারি পরিস্থিতিতে চলমান ‘কঠোর বিধিনিষেধ’র কারণে ২০২২ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট বিতরণ-গ্রহণ কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। একইসঙ্গে স্থগিত থাকবে নিম্ন-মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক স্তরের এ একই কার্যক্রম। রোববার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) পৃথক দুই স্মারকে এ তথ্য জানানো হয়। আদেশ বাস্তবায়নে সংস্থাটির মাঠপ্রশাসনকে নির্দেশনা দিয়েছে।

মাউশি মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক জানান, শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের চলাচলে সরকারি বিধিনিষেধ আছে। এ কারণে অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম পরবর্তী সিদ্ধান্ত না নেওয়া পর্যন্ত স্থগিত থাকবে। তবে ২০২১ এসএসসি পরীক্ষার্থীদের দেওয়া ৩ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ঘরে বসে সম্পন্ন করবে তারা। আর কাল (আজ) এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করা হবে না। সরকারি বিধিনিষেধ প্রত্যাহারের পর এ স্তরের অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হবে। তাদের অ্যাসাইনমেন্ট প্রস্তুত আছে।

১৮ মার্চ রাতে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করে সরকার। তাতে ৫ আগস্ট পর্যন্ত ৩ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হয়। ঘোষণা অনুযায়ী, এ পরীক্ষার্থীরা শুধু নৈর্বাচনিক তিনটি করে বিষয়ের ২৪টি অ্যাসাইনমেন্ট করবে। তবে এসএসসিতে বিজ্ঞান, মানবিক ও বিজনেস স্টাডিজের ১১টি বিষয় আছে। প্রত্যেকটির জন্যই তিনটি করে অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে এইচএসসিতে বিভিন্ন বিভাগের ২৭টি নৈর্বাচনিক বিষয় আছে। প্রত্যেক বিষয়ের তিনটি করে অ্যাসাইনমেন্ট তৈরি করে মাউশির কাছে হস্তান্তর করেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। ঘোষণা অনুযায়ী এ দুই পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের কোনো আবশ্যিক ও অতিরিক্ত বিষয়ে অ্যাসাইনমেন্ট করতে হবে না। এ ধরনের বিষয়ের ওপর কোনো পরীক্ষাও হবে না।

করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় কয়েক দফা উদ্যোগ নিয়েও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সচল করা যায়নি। শুধু তাই নয়, এ সময় কোনো পাবলিক পরীক্ষায়ও বসতে পারেনি শিক্ষার্থীরা। গত বছরের এইচএসসি, পিইসি, জেএসসিসহ সব পাবলিক পরীক্ষা বাতিল হয়েছে। পেয়েছে ‘অটো পাশ’। এবারের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা যথাক্রমে ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলে নির্ধারিত ছিল। কিন্তু এখন পর্যন্ত নেওয়া যায়নি।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তাদের পরিমার্জিত সিলেবাস দেওয়া হয়েছে। এর ওপরে এখন অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হচ্ছে। পরিস্থিতি অনুকূলে এলে নভেম্বর-ডিসেম্বরে তাদের পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।