শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংকে ফের শিক্ষক লাঞ্চিত

মোস্তাফিজুর রহমান, লালমনিরহাট।। লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় সোলানী ব্যাংকে এবার ফজিলাতুন নেছা নামে এক প্রধান শিক্ষিকাকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে ব্যাংক কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান রাজুর বিরুদ্ধে। ফজিলাতুন নেছা মধ্য সিংগীমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা।মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দুপুরে হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংক শাখায় এ ঘটনাটি ঘটে এনিয়ে শিক্ষক সমাজে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

শিক্ষক সহ অনেক গ্রাহক অভিযোগ করে বলেন শুধু শিক্ষক নয় এনি সাধারন গ্রাহক ও সুবিধাভোগীদের সাথে  চরম দুঃব্যাবহার করেন। অভিযুক্ত  আসাদুজ্জামান রাজু হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংক শাখার ম্যানেজার।জানাগেছে, মঙ্গলবার দুপরে সোনালী ব্যাংকে টাকা উত্তোলন করতে যান ফজিলাতুন নেছা। টাকা উত্তলোনে দেরি হওয়ার ব্যাংক ম্যানেজারের কক্ষে গিয়ে বসেন তিনি। এ সময় ব্যাংক কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান রাজু কোন কারণ ছাড়াই ওই প্রধান  শিক্ষকের উপর চড়াও হয়।

এরপর তার উপর উত্তেজিত হয়ে গালমন্দ করে কক্ষ থেকে বের করে দেয়। এ সময় তার স্বামী জরজিজ আলম দরদী প্রতিবাদ করলে তার উপরও চড়াও হয় ব্যাংক ম্যানেজার রাজু ।এ বিষয়ে ফজিলাতুন নেছা বলেন, আমি আর আমার স্বামী ব্যাংকে টাকা উত্তোলন করতে যাই। টাকা তুলতে দেরি হওয়ার ব্যাংক ম্যানেজারের কক্ষে গিয়ে বসি। এ সময় ব্যাংক কর্মকর্তা কোন কারণ ছাড়াই আমার উপর উত্তেজিত হয়ে গালমন্দ করে। এরপর আমাকে রুম থেকে বের করে দেয়। আমি একজন শিক্ষক আমার সাথে তারা এমন আচরণ করলো। তাহলে সাধারণ মানুষের সাথে তারা কেমন ব্যবহার করে।

এ বিষয়ে ওই শিক্ষকের স্বামী জরজিজ আলম দরদী বলেন, আমি এনিয়ে প্রতিবাদ করায় ব্যাংক কর্মকর্তা  আমার উপরও চড়াও হয়। এ সময় তারা বলেন আপনাদের কিছু করার থাকলে করেন।এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি নূরনবী বলেন, বিষয়টি শুনেছি। এটি দুঃখ জনক ঘটনা। আগামীকাল এ নিয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।এ বিষয়ে হাতীবান্ধা সোলানী ব্যাংক শাখার ম্যানেজার আসাদুজ্জামান রাজু বলেন, তাদের সাথে কোন খারাপ ব্যবহার করা হয়নি।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের মে মাসের ০৬ তারিখ এই সোনালী ব্যাংক শাখা থেকে নাজমা আক্তার নামে এক সহকারী শিক্ষকের ৪০ হাজার টাকা ছিনতাই হয়। এ নিয়ে ওই শিক্ষক ব্যাংক ম্যানেজার আসাদুজ্জামান রাজুকে অবগত করলে ওই ব্যাংক কর্মকর্তা ওই শিক্ষককে গালমন্দ করে জোরপূর্বক ব্যাংক থেকে বের করে দেয়।

হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংকে ফের শিক্ষক লাঞ্চিত

প্রকাশের সময় : ১০:৩০:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১

মোস্তাফিজুর রহমান, লালমনিরহাট।। লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় সোলানী ব্যাংকে এবার ফজিলাতুন নেছা নামে এক প্রধান শিক্ষিকাকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে ব্যাংক কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান রাজুর বিরুদ্ধে। ফজিলাতুন নেছা মধ্য সিংগীমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা।মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দুপুরে হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংক শাখায় এ ঘটনাটি ঘটে এনিয়ে শিক্ষক সমাজে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

শিক্ষক সহ অনেক গ্রাহক অভিযোগ করে বলেন শুধু শিক্ষক নয় এনি সাধারন গ্রাহক ও সুবিধাভোগীদের সাথে  চরম দুঃব্যাবহার করেন। অভিযুক্ত  আসাদুজ্জামান রাজু হাতীবান্ধা সোনালী ব্যাংক শাখার ম্যানেজার।জানাগেছে, মঙ্গলবার দুপরে সোনালী ব্যাংকে টাকা উত্তোলন করতে যান ফজিলাতুন নেছা। টাকা উত্তলোনে দেরি হওয়ার ব্যাংক ম্যানেজারের কক্ষে গিয়ে বসেন তিনি। এ সময় ব্যাংক কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান রাজু কোন কারণ ছাড়াই ওই প্রধান  শিক্ষকের উপর চড়াও হয়।

এরপর তার উপর উত্তেজিত হয়ে গালমন্দ করে কক্ষ থেকে বের করে দেয়। এ সময় তার স্বামী জরজিজ আলম দরদী প্রতিবাদ করলে তার উপরও চড়াও হয় ব্যাংক ম্যানেজার রাজু ।এ বিষয়ে ফজিলাতুন নেছা বলেন, আমি আর আমার স্বামী ব্যাংকে টাকা উত্তোলন করতে যাই। টাকা তুলতে দেরি হওয়ার ব্যাংক ম্যানেজারের কক্ষে গিয়ে বসি। এ সময় ব্যাংক কর্মকর্তা কোন কারণ ছাড়াই আমার উপর উত্তেজিত হয়ে গালমন্দ করে। এরপর আমাকে রুম থেকে বের করে দেয়। আমি একজন শিক্ষক আমার সাথে তারা এমন আচরণ করলো। তাহলে সাধারণ মানুষের সাথে তারা কেমন ব্যবহার করে।

এ বিষয়ে ওই শিক্ষকের স্বামী জরজিজ আলম দরদী বলেন, আমি এনিয়ে প্রতিবাদ করায় ব্যাংক কর্মকর্তা  আমার উপরও চড়াও হয়। এ সময় তারা বলেন আপনাদের কিছু করার থাকলে করেন।এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি নূরনবী বলেন, বিষয়টি শুনেছি। এটি দুঃখ জনক ঘটনা। আগামীকাল এ নিয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।এ বিষয়ে হাতীবান্ধা সোলানী ব্যাংক শাখার ম্যানেজার আসাদুজ্জামান রাজু বলেন, তাদের সাথে কোন খারাপ ব্যবহার করা হয়নি।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের মে মাসের ০৬ তারিখ এই সোনালী ব্যাংক শাখা থেকে নাজমা আক্তার নামে এক সহকারী শিক্ষকের ৪০ হাজার টাকা ছিনতাই হয়। এ নিয়ে ওই শিক্ষক ব্যাংক ম্যানেজার আসাদুজ্জামান রাজুকে অবগত করলে ওই ব্যাংক কর্মকর্তা ওই শিক্ষককে গালমন্দ করে জোরপূর্বক ব্যাংক থেকে বের করে দেয়।