সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আদালতে নির্দোশ প্রমাণিত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ এমপি আফসানা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ এমপি আফসানা বেগম নির্দোষ ঘোষণা করেছে। তার বিরুদ্ধে ব্রিটেনের আদালতে আনা জালিয়াতির অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাকে ওই অভিযোগ থেকে খালাস দিয়েছেন। ৩১ বছর বয়সী আফসানা বেগম পূর্ব লন্ডনের পপলার অ্যান্ড লাইম আসনের এমপি।

গত নির্বাচনে তিনি লেবার পার্টির টিকিটে এই আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছিল যে, তিনি অসত্য তথ্য দিয়ে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের কাছ থেকে আবাসন ভাতা নিয়েছিলেন।

গত শুক্রবার লন্ডনের স্নেয়ার্সব্রুক কাউন্টি আদালতকে আফসানা বেগম জানান, তার আর্থিক বিষয় দেখাশোনা করতেন তার স্বামী, যিনি সবকিছু ‘নিয়ন্ত্রণ’ করতে চান। তার নামে আবাসনের আবেদন করার বিষয়টি জানার পর তিনি ‘অবাক’ হয়েছিলেন।

আফসানা বেগম আরও অভিযোগ করেন যে, তার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনার পেছনে ‘হীন অভিপ্রায়’ রয়েছে। এরপর আদালত তাকে নির্দোষ বলে রায় দেন, তখন আফসানা বেগম কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে কাঁদতে থাকেন।

পরে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, এই মামলার কারণে তার সুনামের বিরাট ক্ষতি হয়েছে। তাকে বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।

আফসানা বেগম বলেন, তিনি পারিবারিক নির্যাতনের শিকার। তার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগের কারণে গত ১৮ মাসে তাকে অনলাইনে অনেক নারী বিদ্বেষী ও ইসলাম বিদ্বেষী মন্তব্য করেছে। তাকে বিভিন্ন রকম হুমকি দেয়া হয়েছে।

আফসানা বেগম ২০১৯ সালের পার্লামেন্ট নির্বাচনে বড় ব্যবধানে পপলার অ্যান্ড লাইম আসনে জয়ী হন। ২০১১ সালের ২২ জুলাই তিনি টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের হাউজিং রেজিস্টারে তালিকাভুক্ত হন আবাসন সুবিধার জন্য।

খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনা,চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির দোয়া মাহফিল

আদালতে নির্দোশ প্রমাণিত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ এমপি আফসানা

প্রকাশের সময় : ১১:১১:৩৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১ অগাস্ট ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ এমপি আফসানা বেগম নির্দোষ ঘোষণা করেছে। তার বিরুদ্ধে ব্রিটেনের আদালতে আনা জালিয়াতির অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাকে ওই অভিযোগ থেকে খালাস দিয়েছেন। ৩১ বছর বয়সী আফসানা বেগম পূর্ব লন্ডনের পপলার অ্যান্ড লাইম আসনের এমপি।

গত নির্বাচনে তিনি লেবার পার্টির টিকিটে এই আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছিল যে, তিনি অসত্য তথ্য দিয়ে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের কাছ থেকে আবাসন ভাতা নিয়েছিলেন।

গত শুক্রবার লন্ডনের স্নেয়ার্সব্রুক কাউন্টি আদালতকে আফসানা বেগম জানান, তার আর্থিক বিষয় দেখাশোনা করতেন তার স্বামী, যিনি সবকিছু ‘নিয়ন্ত্রণ’ করতে চান। তার নামে আবাসনের আবেদন করার বিষয়টি জানার পর তিনি ‘অবাক’ হয়েছিলেন।

আফসানা বেগম আরও অভিযোগ করেন যে, তার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনার পেছনে ‘হীন অভিপ্রায়’ রয়েছে। এরপর আদালত তাকে নির্দোষ বলে রায় দেন, তখন আফসানা বেগম কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে কাঁদতে থাকেন।

পরে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, এই মামলার কারণে তার সুনামের বিরাট ক্ষতি হয়েছে। তাকে বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।

আফসানা বেগম বলেন, তিনি পারিবারিক নির্যাতনের শিকার। তার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগের কারণে গত ১৮ মাসে তাকে অনলাইনে অনেক নারী বিদ্বেষী ও ইসলাম বিদ্বেষী মন্তব্য করেছে। তাকে বিভিন্ন রকম হুমকি দেয়া হয়েছে।

আফসানা বেগম ২০১৯ সালের পার্লামেন্ট নির্বাচনে বড় ব্যবধানে পপলার অ্যান্ড লাইম আসনে জয়ী হন। ২০১১ সালের ২২ জুলাই তিনি টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের হাউজিং রেজিস্টারে তালিকাভুক্ত হন আবাসন সুবিধার জন্য।