রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১১ আগস্ট থেকে চলবে গণপরিবহন

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা ব্যুরো ।।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান বিধিনিষেধ শেষ হচ্ছে মঙ্গলবার (১০ আগস্ট)। এর পর থেকে আসনের সমপরিমাণ যাত্রী নিয়ে সবধরনের গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে। তবে তা মোট গণপরিবহনের অর্ধেক। রোববার (৮ আগস্ট) এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মো. রেজাউল ইসলামের সই করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সড়ক, রেল ও নৌ পথে আসন সংখ্যার সমপরিমাণ যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন/যানবাহন চলাচল করতে পারবে।

সড়ক পথে গণপরিবহন চলাচলের ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রশাসন (সিটি করপোরেশন এলাকায় বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা পর্যায়ে জেলা প্রশাসক) নিজ নিজ অধিক্ষেত্রের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সংশ্লিষ্ট দফতর বা সংস্থা, মালিক, শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে আলোচনা করে প্রতিদিন মোট পরিবহন সংখ্যার অর্ধেক চালাতে পারবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রী সংখ্যা সমপরিমাণই বহন করা যাবে।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ১ জুলাই থেকে বিধিনিষেধ আরোপের পর থেকে সবধরনের গণপরিবহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর ১৫ জুলাই থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত সীমিত সংখ্যক যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেওয়া হলেও ২৪ জুলাই থেকে আবার বন্ধ ঘোষণা করে দেওয়া হয়। এরপর ৩১ জুলাই ১৬ ঘণ্টার জন্য খুলে দেওয়া হয়।

১১ আগস্ট থেকে চলবে গণপরিবহন

প্রকাশের সময় : ০৬:২২:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৮ অগাস্ট ২০২১

ঢাকা ব্যুরো ।।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান বিধিনিষেধ শেষ হচ্ছে মঙ্গলবার (১০ আগস্ট)। এর পর থেকে আসনের সমপরিমাণ যাত্রী নিয়ে সবধরনের গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে। তবে তা মোট গণপরিবহনের অর্ধেক। রোববার (৮ আগস্ট) এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মো. রেজাউল ইসলামের সই করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সড়ক, রেল ও নৌ পথে আসন সংখ্যার সমপরিমাণ যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন/যানবাহন চলাচল করতে পারবে।

সড়ক পথে গণপরিবহন চলাচলের ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রশাসন (সিটি করপোরেশন এলাকায় বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা পর্যায়ে জেলা প্রশাসক) নিজ নিজ অধিক্ষেত্রের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সংশ্লিষ্ট দফতর বা সংস্থা, মালিক, শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে আলোচনা করে প্রতিদিন মোট পরিবহন সংখ্যার অর্ধেক চালাতে পারবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রী সংখ্যা সমপরিমাণই বহন করা যাবে।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ১ জুলাই থেকে বিধিনিষেধ আরোপের পর থেকে সবধরনের গণপরিবহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর ১৫ জুলাই থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত সীমিত সংখ্যক যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেওয়া হলেও ২৪ জুলাই থেকে আবার বন্ধ ঘোষণা করে দেওয়া হয়। এরপর ৩১ জুলাই ১৬ ঘণ্টার জন্য খুলে দেওয়া হয়।