মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চীন-রাশিয়ার যৌথ সামরিক মহড়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

চীন ও রাশিয়া বড় ধরনের একটি সামরিক মহড়া শুরু করেছে। চীনের উত্তর-মধ্যাঞ্চলীয় নিংজিয়া অঞ্চলে এটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মানবাধিকার ও আঞ্চলিক নিরাপত্তা উদ্বেগ নিয়ে বেইজিং ও মস্কোর সঙ্গে ওয়াশিংটনের উত্তেজনার মধ্যেই এই মহড়া আয়োজিত হচ্ছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এখবর জানিয়েছে।

কোঅপারেশন-২০২১ নামের মহড়াটি সোমবার শুরু হয়েছে এবং চলবে শুক্রবার পর্যন্ত। এতে পদাতিক ও বিমানবাহিনীর দশ হাজারের বেশি সেনা অংশগ্রহণ করছে।

রুশ সেনাবাহিনী জানিয়েছে, মহড়ায় অংশ নিতে তারা এসইউ-৩০এসএম যুদ্ধবিমান, মোটরাইজড রাইফেল ইউনিট ও আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা চীনে পাঠিয়েছে।

এই মহড়ায় রাশিয়ার সেনারা ২০০৫ সালের প্রথমবারের মতো চীনা অস্ত্র ব্যবহার করবে। দেশ দুটি সর্বশেষ ওই সময়েই যৌথ সামরিক মহড়ায় অংশগ্রহণ করেছিল।

চীন ও রুশ কর্মকর্তারা বলছেন, এই মহড়ার লক্ষ্য হলো যৌথ সন্ত্রাসদমন অভিযানের গভীরতা বাড়ানো এবং যৌথভাবে আন্তর্জাতিক সুরক্ষা, আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার দৃঢ়তা প্রদর্শন।

চীনের রাষ্টীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়া’র খবরে বলা হয়েছে, এতে চীন ও রাশিয়ার বিস্তৃত কৌশলগত অংশীদারিত্ব সমন্বয়ের নতুন উচ্চতার প্রতিফলন।

নিংজিয়া অঞ্চলটির সঙ্গে জিনজিয়াংয়ের সীমান্ত রয়েছে। জিনজিয়াংয়ে চীনের বিরুদ্ধে দশ লাখের বেশি উইঘুর মুসলিমকে বন্দি শিবিরে রাখার অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমাদের। চীন এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

পৃথকভাবে রাশিয়া মঙ্গলবার তাজিকিস্তান ও উজবেকিস্তানের সঙ্গে আফগান সীমান্তে মহড়া চালিয়েছে। মস্কো জানিয়েছে, তারা তাজিকিস্তানে সামরিক ঘাঁটিতে অ্যাসল্ট রাইফেল ও অন্যান্য অস্ত্রের মজুদ বাড়াচ্ছে।

চীন-রাশিয়ার যৌথ সামরিক মহড়া

প্রকাশের সময় : ১২:১১:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ অগাস্ট ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

চীন ও রাশিয়া বড় ধরনের একটি সামরিক মহড়া শুরু করেছে। চীনের উত্তর-মধ্যাঞ্চলীয় নিংজিয়া অঞ্চলে এটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মানবাধিকার ও আঞ্চলিক নিরাপত্তা উদ্বেগ নিয়ে বেইজিং ও মস্কোর সঙ্গে ওয়াশিংটনের উত্তেজনার মধ্যেই এই মহড়া আয়োজিত হচ্ছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এখবর জানিয়েছে।

কোঅপারেশন-২০২১ নামের মহড়াটি সোমবার শুরু হয়েছে এবং চলবে শুক্রবার পর্যন্ত। এতে পদাতিক ও বিমানবাহিনীর দশ হাজারের বেশি সেনা অংশগ্রহণ করছে।

রুশ সেনাবাহিনী জানিয়েছে, মহড়ায় অংশ নিতে তারা এসইউ-৩০এসএম যুদ্ধবিমান, মোটরাইজড রাইফেল ইউনিট ও আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা চীনে পাঠিয়েছে।

এই মহড়ায় রাশিয়ার সেনারা ২০০৫ সালের প্রথমবারের মতো চীনা অস্ত্র ব্যবহার করবে। দেশ দুটি সর্বশেষ ওই সময়েই যৌথ সামরিক মহড়ায় অংশগ্রহণ করেছিল।

চীন ও রুশ কর্মকর্তারা বলছেন, এই মহড়ার লক্ষ্য হলো যৌথ সন্ত্রাসদমন অভিযানের গভীরতা বাড়ানো এবং যৌথভাবে আন্তর্জাতিক সুরক্ষা, আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার দৃঢ়তা প্রদর্শন।

চীনের রাষ্টীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়া’র খবরে বলা হয়েছে, এতে চীন ও রাশিয়ার বিস্তৃত কৌশলগত অংশীদারিত্ব সমন্বয়ের নতুন উচ্চতার প্রতিফলন।

নিংজিয়া অঞ্চলটির সঙ্গে জিনজিয়াংয়ের সীমান্ত রয়েছে। জিনজিয়াংয়ে চীনের বিরুদ্ধে দশ লাখের বেশি উইঘুর মুসলিমকে বন্দি শিবিরে রাখার অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমাদের। চীন এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

পৃথকভাবে রাশিয়া মঙ্গলবার তাজিকিস্তান ও উজবেকিস্তানের সঙ্গে আফগান সীমান্তে মহড়া চালিয়েছে। মস্কো জানিয়েছে, তারা তাজিকিস্তানে সামরিক ঘাঁটিতে অ্যাসল্ট রাইফেল ও অন্যান্য অস্ত্রের মজুদ বাড়াচ্ছে।