মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউএনওর বাসভবনে হামলা, বিজিবি মোতায়েনের সিদ্ধান্ত

বরিশাল প্রতিনিধি ।। 
বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুনিবুর রহমানের সরকারি বাসভবনে দফায় দফায় হামলার ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে জরুরি সভা করেছে জেলা ও বিভাগীয় কোর কমিটি।
 বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে অনুষ্ঠিত সভায় নগরীতে ১০ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন ও অতিরিক্ত ১০ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে মাঠে নামানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।
সভায় উপস্থিত জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন হায়দার বলেন, রাতের ঘটনা পর্যালোচনা এবং করণীয় নির্ধারণে বিভাগীয় কমিশনারের সরকারি বাসভবনে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ইউএনওর বাসভবনে হামলার বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। একই সঙ্গে নগরীর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ১০ প্লাটুন বিজিবি এবং ১০ জন ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে নামানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। সাত-আট প্লাটুন বিজিবি এবং আট জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সন্ধ্যার মধ্যে বরিশালে এসে পৌঁছাবে। বাকি দুই প্লাটুন বিজিবি ও দুজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিস্থিতি দেখে নামানো হবে। একই সঙ্গে ঘটনাটি খতিয়ে দেখে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ব্যানার-পোস্টার অপসারণকে কেন্দ্র করে বুধবার রাতে বরিশাল সদর উপজেলা ইউএনওর বাসভবনে আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের দফায় দফায় হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় আনসার সদস্যরা গুলি চালান। হামলা ও সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হন ওসি ও প্যানেল মেয়রসহ সাত জন। এছাড়া পুলিশের লাঠিচার্জে কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন।

উদ্বোধনের ৫মাসের মধ্যেই ‘বিপর্যয়’ রাম মন্দিরের, ছাদ চুইয়ে পানি পড়ছে

ইউএনওর বাসভবনে হামলা, বিজিবি মোতায়েনের সিদ্ধান্ত

প্রকাশের সময় : ০৬:১১:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ অগাস্ট ২০২১
বরিশাল প্রতিনিধি ।। 
বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুনিবুর রহমানের সরকারি বাসভবনে দফায় দফায় হামলার ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে জরুরি সভা করেছে জেলা ও বিভাগীয় কোর কমিটি।
 বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে অনুষ্ঠিত সভায় নগরীতে ১০ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন ও অতিরিক্ত ১০ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে মাঠে নামানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।
সভায় উপস্থিত জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন হায়দার বলেন, রাতের ঘটনা পর্যালোচনা এবং করণীয় নির্ধারণে বিভাগীয় কমিশনারের সরকারি বাসভবনে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ইউএনওর বাসভবনে হামলার বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। একই সঙ্গে নগরীর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ১০ প্লাটুন বিজিবি এবং ১০ জন ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে নামানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। সাত-আট প্লাটুন বিজিবি এবং আট জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সন্ধ্যার মধ্যে বরিশালে এসে পৌঁছাবে। বাকি দুই প্লাটুন বিজিবি ও দুজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিস্থিতি দেখে নামানো হবে। একই সঙ্গে ঘটনাটি খতিয়ে দেখে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ব্যানার-পোস্টার অপসারণকে কেন্দ্র করে বুধবার রাতে বরিশাল সদর উপজেলা ইউএনওর বাসভবনে আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের দফায় দফায় হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় আনসার সদস্যরা গুলি চালান। হামলা ও সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হন ওসি ও প্যানেল মেয়রসহ সাত জন। এছাড়া পুলিশের লাঠিচার্জে কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন।