মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মার্কিনদের সহায়তাকারী আফগানদের খুঁজছে তালেবান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।। 

আফগানিস্তানে মার্কিন ও ন্যাটো সেনাদের সহায়তা করা আফগান নাগরিকদের হন্যে হয়ে খুঁজছে তালেবান। জাতিসংঘের একটি গোপন নথিতে এমনটাই উল্লেখ করা হয়েছে। 

জাতিসংঘকে গোয়েন্দা তথ্য দেয়া প্রতিষ্ঠান ‘নরওয়েজিয়ান সেন্টার ফর গ্লোবাল অ্যানালাইসিস’ এ নথি তৈরি করেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

নথিতে বলা হয়েছে, গত ২০ বছরে মার্কিন বাহিনীর হয়ে কাজ করা আফগানদের গ্রেফতার করা হচ্ছে কিংবা তাদের পরিবারের সদস্যদেরকে মেরে ফেলা বা গ্রেফতার হুমকি দেয়া হচ্ছে।

তবে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখলের পর তালেবানের প্রথম সংবাদ সম্মেলনে বিদেশি বাহিনীদের সহায়তাকারী আফগানদের ক্ষমা করে দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়। এতে তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, ‘আফগানিস্তান আর কোনো যুদ্ধক্ষেত্র নয়। যারাই এতদিন আমাদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে, সবাইকে আমরা ক্ষমা করে দিয়েছি। শত্রুতার দিন শেষ হয়েছে। কাউকেই শত্রু হিসাবে গণ্য করা হবে না।’

কিন্তু জাতিসংঘের গোপন নথিতে বলা হয়েছে, মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনীকে সহায়তাকারী আফগানদের তালিকা ধরে ধরে খুঁজ বেড়াচ্ছে তালেবান যোদ্ধারা। এমনকি বাড়ি বাড়ি গিয়েও তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

 

একই সঙ্গে আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার উদ্দেশে কাবুল বিমানবন্দরে যারা যাচ্ছেন তাদের মধ্যেও মার্কিন তথা ন্যাটো বাহিনীকে সহায়তাকারী আফগানদের খোঁজা হচ্ছে।

জাতিসংঘ নথিতে আরও বলা হয়, তালেবান যোদ্ধারা আফগানিস্তানের প্রধান নগরীগুলো দখলের আগে থেকেই তাদের তালিকা তৈরির কাজ করেছে। এখন আফগানিস্তানের নতুন শাসকদের হয়ে কাজ করার জন্য নতুন তথ্যদাতা নেটওয়ার্কের জন্য লোক নিয়োগ করছে তালেবান।

মার্কিনদের সহায়তাকারী আফগানদের খুঁজছে তালেবান

প্রকাশের সময় : ০৮:১০:১৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২০ অগাস্ট ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।। 

আফগানিস্তানে মার্কিন ও ন্যাটো সেনাদের সহায়তা করা আফগান নাগরিকদের হন্যে হয়ে খুঁজছে তালেবান। জাতিসংঘের একটি গোপন নথিতে এমনটাই উল্লেখ করা হয়েছে। 

জাতিসংঘকে গোয়েন্দা তথ্য দেয়া প্রতিষ্ঠান ‘নরওয়েজিয়ান সেন্টার ফর গ্লোবাল অ্যানালাইসিস’ এ নথি তৈরি করেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

নথিতে বলা হয়েছে, গত ২০ বছরে মার্কিন বাহিনীর হয়ে কাজ করা আফগানদের গ্রেফতার করা হচ্ছে কিংবা তাদের পরিবারের সদস্যদেরকে মেরে ফেলা বা গ্রেফতার হুমকি দেয়া হচ্ছে।

তবে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখলের পর তালেবানের প্রথম সংবাদ সম্মেলনে বিদেশি বাহিনীদের সহায়তাকারী আফগানদের ক্ষমা করে দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়। এতে তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, ‘আফগানিস্তান আর কোনো যুদ্ধক্ষেত্র নয়। যারাই এতদিন আমাদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে, সবাইকে আমরা ক্ষমা করে দিয়েছি। শত্রুতার দিন শেষ হয়েছে। কাউকেই শত্রু হিসাবে গণ্য করা হবে না।’

কিন্তু জাতিসংঘের গোপন নথিতে বলা হয়েছে, মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনীকে সহায়তাকারী আফগানদের তালিকা ধরে ধরে খুঁজ বেড়াচ্ছে তালেবান যোদ্ধারা। এমনকি বাড়ি বাড়ি গিয়েও তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

 

একই সঙ্গে আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার উদ্দেশে কাবুল বিমানবন্দরে যারা যাচ্ছেন তাদের মধ্যেও মার্কিন তথা ন্যাটো বাহিনীকে সহায়তাকারী আফগানদের খোঁজা হচ্ছে।

জাতিসংঘ নথিতে আরও বলা হয়, তালেবান যোদ্ধারা আফগানিস্তানের প্রধান নগরীগুলো দখলের আগে থেকেই তাদের তালিকা তৈরির কাজ করেছে। এখন আফগানিস্তানের নতুন শাসকদের হয়ে কাজ করার জন্য নতুন তথ্যদাতা নেটওয়ার্কের জন্য লোক নিয়োগ করছে তালেবান।