রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টিকার দ্বিতীয় ডোজের ব্যবধান কমানোর পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফাইল ছবি

ঢাকা ব্যুরো ।।

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজের সময় মাস থেকে কমিয়ে ১৫ দিন করার চিন্তা করা হচ্ছে বলে মন্ত্রিসভার বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।  

এছাড়া টিকার দুই ডোজের মধ্যে ব্যবধান কমিয়ে আনার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ সোমবার (২৩ আগস্ট) ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক একথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন দ্বিতীয় সময়টা একটু কমিয়ে দেয়া যায় কিনা। এখন আমরা এক মাস দিচ্ছি। এক মাসের পরিবর্তে ১৫ বা ২০ দিন করে দিতে পারি কিনা, এটা বলেছেন। যদি সম্ভব হয় আমরা সেটাও করবো। অন্যান্য দেশে ১৫ দিনের মধ্যে দেয়া হয়, সেই দেশের রেফারেন্স টেনে বলা হয়েছে। এখন আমরা ডব্লিউএইচওর সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।

বার্তা সংস্থা বাসসের খবরে বলা হয়েছে, গতকাল রবিবার পর্যন্ত প্রায় ২ কোটি ২৪ লাখ করোনার টিকার ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ১ কোটি ৬৬ লাখ ৬১ হাজার ৪১২ জন ও দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৬৫ লাখ ৭৫ হাজার ৪৭৩ জন।

টিকার দ্বিতীয় ডোজের ব্যবধান কমানোর পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশের সময় : ০২:৫১:১৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ অগাস্ট ২০২১

ঢাকা ব্যুরো ।।

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজের সময় মাস থেকে কমিয়ে ১৫ দিন করার চিন্তা করা হচ্ছে বলে মন্ত্রিসভার বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।  

এছাড়া টিকার দুই ডোজের মধ্যে ব্যবধান কমিয়ে আনার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ সোমবার (২৩ আগস্ট) ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক একথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন দ্বিতীয় সময়টা একটু কমিয়ে দেয়া যায় কিনা। এখন আমরা এক মাস দিচ্ছি। এক মাসের পরিবর্তে ১৫ বা ২০ দিন করে দিতে পারি কিনা, এটা বলেছেন। যদি সম্ভব হয় আমরা সেটাও করবো। অন্যান্য দেশে ১৫ দিনের মধ্যে দেয়া হয়, সেই দেশের রেফারেন্স টেনে বলা হয়েছে। এখন আমরা ডব্লিউএইচওর সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।

বার্তা সংস্থা বাসসের খবরে বলা হয়েছে, গতকাল রবিবার পর্যন্ত প্রায় ২ কোটি ২৪ লাখ করোনার টিকার ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ১ কোটি ৬৬ লাখ ৬১ হাজার ৪১২ জন ও দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৬৫ লাখ ৭৫ হাজার ৪৭৩ জন।