রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কৃষককে গাছে বেঁধে মারধর, ইউপি সদস্য গ্রেফতার

নাটোর প্রতিনিধি ।। 
নাটোরের সিংড়া উপজেলায় কৃষককে গাছে বেঁধে মারধরের ঘটনায় ইউপি সদস্য মকলেছ আলীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারের পর সোমবার (২৩ আগস্ট) সকালে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।
সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর এ আলম সিদ্দিকী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ভুক্তভোগীর ছেলে বাদী হয়ে রবিবার ওই মেম্বারের বিরুদ্ধে মামলা করার পর রাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কিশোর কুমার জানান, রবিবার (২২ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ইটালী ইউনিয়নের শালমারা-বাঁশবাড়িয়ায় শালমারা-বাঁশবাড়িয়া মাঠে বাঁশবাড়িয়া গ্রামের কৃষক শাহাদত (৬০) ও বেলায়েতের (৭০) ১০-১১টি গরু মাঠে ঘাস খাচ্ছিল। এক পর্যায়ে গরুগুলো ইউপি সদস্য মকলেছ আলীর জমির ধানের চারাগাছ নষ্ট করে।
তিনি আরও জানান, খবর পেয়ে ওই মেম্বার ও তার লোকজন গরুগুলো বেঁধে রাখে। এরপর গরুর মালিক স্থানীয় কৃষক বেলায়েত ও শাহাদত ঘটনাস্থলে আসেন। কথা বলার এক পর্যায়ে তারা শাহাদতকে লাঠি দিয়ে পেটায়। এ সময় উপস্থিত গ্রামবাসীর অনুরোধে দুই কৃষককে গরু নিয়ে চলে যেতে বলেন ইউপি সদস্য।  মামলায় বাদীর দাবি, শাহাদতকে গাছের সঙ্গে দুই ঘণ্টা বেঁধে রেখে মারধর করা হয়েছে।
ওসি নূর এ আলম সিদ্দিকী বলেন, ঘটনা তদন্তের পর জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কৃষককে গাছে বেঁধে মারধর, ইউপি সদস্য গ্রেফতার

প্রকাশের সময় : ০৩:৩৮:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ অগাস্ট ২০২১
নাটোর প্রতিনিধি ।। 
নাটোরের সিংড়া উপজেলায় কৃষককে গাছে বেঁধে মারধরের ঘটনায় ইউপি সদস্য মকলেছ আলীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারের পর সোমবার (২৩ আগস্ট) সকালে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।
সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর এ আলম সিদ্দিকী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ভুক্তভোগীর ছেলে বাদী হয়ে রবিবার ওই মেম্বারের বিরুদ্ধে মামলা করার পর রাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কিশোর কুমার জানান, রবিবার (২২ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ইটালী ইউনিয়নের শালমারা-বাঁশবাড়িয়ায় শালমারা-বাঁশবাড়িয়া মাঠে বাঁশবাড়িয়া গ্রামের কৃষক শাহাদত (৬০) ও বেলায়েতের (৭০) ১০-১১টি গরু মাঠে ঘাস খাচ্ছিল। এক পর্যায়ে গরুগুলো ইউপি সদস্য মকলেছ আলীর জমির ধানের চারাগাছ নষ্ট করে।
তিনি আরও জানান, খবর পেয়ে ওই মেম্বার ও তার লোকজন গরুগুলো বেঁধে রাখে। এরপর গরুর মালিক স্থানীয় কৃষক বেলায়েত ও শাহাদত ঘটনাস্থলে আসেন। কথা বলার এক পর্যায়ে তারা শাহাদতকে লাঠি দিয়ে পেটায়। এ সময় উপস্থিত গ্রামবাসীর অনুরোধে দুই কৃষককে গরু নিয়ে চলে যেতে বলেন ইউপি সদস্য।  মামলায় বাদীর দাবি, শাহাদতকে গাছের সঙ্গে দুই ঘণ্টা বেঁধে রেখে মারধর করা হয়েছে।
ওসি নূর এ আলম সিদ্দিকী বলেন, ঘটনা তদন্তের পর জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।