শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যে শর্তে তালেবানদের অর্থ দেবেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর

বরিস জনসন। ফাইল ছবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন তালেবানদের অর্থ দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন। মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) রাতে জি-৭ এর পক্ষ থেকে তিনি প্রস্তাব দিয়েছেন পশ্চিমারা আটকে থাকা শত শত মিলিয়ন পাউন্ড তালেবান নেতৃত্বের কাছে ছেড়ে দেবে। তবে এক্ষেত্রে তাদেরকে কয়েকটি শর্ত মানতে হবে।

এরমধ‌্যে প্রধান শর্ত ৩১ আগস্ট নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই আফগানিস্তান থেকে বিদেশি ও দেশ ছাড়তে ইচ্ছুক আফগানদের  সরানো  সম্ভব না হলে  জি-৭ ভুক্ত দেশগুলোর যে সব বাহিনী সেখানে কাজ করছে তাদের অভিযানের সময়সীমা বাড়ানো। অন্যান্য শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে আফগান মেয়েদের লেখাপড়া করার সুযোগ দিতে হবে ও দেশটি যাতে সন্ত্রাস ও মাদকের আখড়ায় পরিণত না হয় তার জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নিজেই গত রাতে জরুরি ভিত্তিতে ভার্চুয়াল এই  সম্মেলন আহ্বান করেন। এর আগে তালেবান সরকারকে পৃথকভাবে স্বীকৃতি দেবে না বলে জানিয়েছিল তিনি। তবে কয়েকদিন আগে সেই অবস্থান থেকে সরে এসে প্রয়োজনে তালেবানদের সঙ্গে কাজ করবেন বলে জানান বরিস জনসন।

বরিস জনসন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি মানুষকে আশ্বস্ত করতে চাই, আফগানিস্তানের জন্য একটি সমাধান বের করতে রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। প্রয়োজন হলে অবশ্যই তালেবানদের সঙ্গে আমরাও কাজ করবো।

যে শর্তে তালেবানদের অর্থ দেবেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশের সময় : ০২:১৬:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ অগাস্ট ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন তালেবানদের অর্থ দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন। মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) রাতে জি-৭ এর পক্ষ থেকে তিনি প্রস্তাব দিয়েছেন পশ্চিমারা আটকে থাকা শত শত মিলিয়ন পাউন্ড তালেবান নেতৃত্বের কাছে ছেড়ে দেবে। তবে এক্ষেত্রে তাদেরকে কয়েকটি শর্ত মানতে হবে।

এরমধ‌্যে প্রধান শর্ত ৩১ আগস্ট নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই আফগানিস্তান থেকে বিদেশি ও দেশ ছাড়তে ইচ্ছুক আফগানদের  সরানো  সম্ভব না হলে  জি-৭ ভুক্ত দেশগুলোর যে সব বাহিনী সেখানে কাজ করছে তাদের অভিযানের সময়সীমা বাড়ানো। অন্যান্য শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে আফগান মেয়েদের লেখাপড়া করার সুযোগ দিতে হবে ও দেশটি যাতে সন্ত্রাস ও মাদকের আখড়ায় পরিণত না হয় তার জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নিজেই গত রাতে জরুরি ভিত্তিতে ভার্চুয়াল এই  সম্মেলন আহ্বান করেন। এর আগে তালেবান সরকারকে পৃথকভাবে স্বীকৃতি দেবে না বলে জানিয়েছিল তিনি। তবে কয়েকদিন আগে সেই অবস্থান থেকে সরে এসে প্রয়োজনে তালেবানদের সঙ্গে কাজ করবেন বলে জানান বরিস জনসন।

বরিস জনসন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি মানুষকে আশ্বস্ত করতে চাই, আফগানিস্তানের জন্য একটি সমাধান বের করতে রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। প্রয়োজন হলে অবশ্যই তালেবানদের সঙ্গে আমরাও কাজ করবো।