সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চেয়ারম্যানের ভাইকে হত্যা চেষ্টা,২০ জনের নামে মামলা

এস এম জুবাইদ, পেকুয়া(কক্সবাজার)।।কক্সবাজারের পেকুয়ার মগনামা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিমের ছোট ভাই ও চকরিয়া হাসপাতালের ফার্মাসিষ্ট এনায়েত উল্লাহ চৌধুরী (৩২), মামাত ভাই আরাফাত কে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় ১৪ জনের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় মামলা করা হয়েছে। যার পেকুয়া থানার মামলা নং ১৩ ও জিআর ৯৮/২১ইং।

গত ২৫ আগষ্ট রাতে মগনামা ইউপি চেয়ারম্যানের ছোট ভাই জুনায়েত ইসরাক চৌধুরী বাবু (২৬) বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। পেকুয়া থানার ওসি সাইফুল ইসলাম মজুমদার মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মামলার আসামী হলেন, মগনামা মুহুরী পাড়া গ্রামের মৃত ছদর উদ্দিনের পুত্র ও মমতাজুল ইসলাম (৪০), নুইন্যার পাড়া গ্রামের আহমদ কবির প্রকাশ পোড়া বদর পুত্র মোজ্জাম্মেল হক (২৪), হেলাল উদ্দিনের পুত্র নাছির উদ্দিন বাদশা (৫০), মৌলভী জহির উদ্দিনের তিন পুত্র জালাল উদ্দিন (৩০), জসিম উদ্দিন (৩৮), ও রুকন উদ্দিন (৩৬), আকতার হোছেন এর পুত্র মো: মিয়া (৩৪), মৃত নুরুল আমিন প্রকাশ বেইঙ্গার পুত্র মো: ছলিম (৪৮), ছাবের আহমদের পুত্র গিয়ান উদ্দিন (৩০), আকতার হোছেনের পুত্র আকিব মিয়া (২৪), মৃত জিল্লুল করিমের পুত্র ইকবাল (৩৮), মো: ছলিমের পুত্র আরফান (২৮), আরমান ও আরিফসহ আরো ৫/৬ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। মামলার উল্লেখিত আসামীরা মগনামা ইউনিয়নের মুহুরী পাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

পেকুয়া থানায় দায়েরকৃত মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেছেন, গত ২৪ আগষ্ট সকালে তার ভাই এনায়েত উল্লাহ চৌধুরীর কর্মস্থল চকরিয়া সরকারী হাসপাতাল ও তার মামাতো ভাই, মগনামা বরফ মিলের সুপারভাইজার আরফাত উদ্দিন (৩৪) বরফ বিক্রির ১০ লক্ষ টাকা নিয়ে পেকুয়ায় ব্যাংকে জমা দেওয়ার জন্য একটি মোটর সাইকেল যোগে পেকুয়া বাজারের উদ্দেশ্যে রওয়না দেন। তারা মোটর সাইকেল নিয়ে মগনামা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড়ের বেঙ্গল ঘোনার উত্তর পার্শ্বে চলাচল রাস্তায় পৌঁছালে পূর্ব থেকে সন্ত্রাসী কায়দায় উৎপেতে থাকা আসামীরা তাদের মোটর সাইকেলের গতিরোধ করে চাইনিজ কুড়াল, লোহার হাতুড়ি ও ধারালো দা-কিরিচ নিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। ধারালো কিরিচ নিয়ে এনায়েত উল্লাহকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে আসামীরা। এসময় আরফাতের সাথে থাকা বরফ বিক্রির ১০ লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেয় আসামীরা।

মামলার বাদী জুনায়েত ইসরাক চৌধুরী বাবু জানান, তার ভাই এনায়েত উল্লাহ একজন সরকারী চাকুরীজীবি এবং ন¤্র,ভদ্র ও শান্ত প্রকৃতির লোক। মমতাজের নির্দেশে একদল সন্ত্রাসী তার ভাই ও মামাতো ভাইয়ের উপর বর্বর আক্রমণ চালানো হয়েছে। তার ভাই এনায়েতের দুই চোখ উপড়ে ফেলার জন্য চেষ্টা করেছে। মাথায় কুপিয়েছে। চোখে আঘাত করেছে। তার মামাতো ভাই আরফাতকে কুপিয়ে ১০ লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে হামলাকারীরা। বাবু আরো জানান, হামলাকারীরা মগনামা ইউনিয়নজুড়ে এক নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। তারা পুলিশের উপরও হামলা করেছে। মামলার বাদী বাবু তার দায়েরকৃত মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেফতারপূর্বক আইনের কাছে সোপর্দ্দ করার জন্য পুলিশ প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: সাইফুল ইসলাম মজুমদার জানান, মগনামা ইউপি চেয়ারম্যানের ভাই ও অপর একজনের উপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

চেয়ারম্যানের ভাইকে হত্যা চেষ্টা,২০ জনের নামে মামলা

প্রকাশের সময় : ০৫:১৩:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ অগাস্ট ২০২১

এস এম জুবাইদ, পেকুয়া(কক্সবাজার)।।কক্সবাজারের পেকুয়ার মগনামা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিমের ছোট ভাই ও চকরিয়া হাসপাতালের ফার্মাসিষ্ট এনায়েত উল্লাহ চৌধুরী (৩২), মামাত ভাই আরাফাত কে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় ১৪ জনের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় মামলা করা হয়েছে। যার পেকুয়া থানার মামলা নং ১৩ ও জিআর ৯৮/২১ইং।

গত ২৫ আগষ্ট রাতে মগনামা ইউপি চেয়ারম্যানের ছোট ভাই জুনায়েত ইসরাক চৌধুরী বাবু (২৬) বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। পেকুয়া থানার ওসি সাইফুল ইসলাম মজুমদার মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মামলার আসামী হলেন, মগনামা মুহুরী পাড়া গ্রামের মৃত ছদর উদ্দিনের পুত্র ও মমতাজুল ইসলাম (৪০), নুইন্যার পাড়া গ্রামের আহমদ কবির প্রকাশ পোড়া বদর পুত্র মোজ্জাম্মেল হক (২৪), হেলাল উদ্দিনের পুত্র নাছির উদ্দিন বাদশা (৫০), মৌলভী জহির উদ্দিনের তিন পুত্র জালাল উদ্দিন (৩০), জসিম উদ্দিন (৩৮), ও রুকন উদ্দিন (৩৬), আকতার হোছেন এর পুত্র মো: মিয়া (৩৪), মৃত নুরুল আমিন প্রকাশ বেইঙ্গার পুত্র মো: ছলিম (৪৮), ছাবের আহমদের পুত্র গিয়ান উদ্দিন (৩০), আকতার হোছেনের পুত্র আকিব মিয়া (২৪), মৃত জিল্লুল করিমের পুত্র ইকবাল (৩৮), মো: ছলিমের পুত্র আরফান (২৮), আরমান ও আরিফসহ আরো ৫/৬ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। মামলার উল্লেখিত আসামীরা মগনামা ইউনিয়নের মুহুরী পাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

পেকুয়া থানায় দায়েরকৃত মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেছেন, গত ২৪ আগষ্ট সকালে তার ভাই এনায়েত উল্লাহ চৌধুরীর কর্মস্থল চকরিয়া সরকারী হাসপাতাল ও তার মামাতো ভাই, মগনামা বরফ মিলের সুপারভাইজার আরফাত উদ্দিন (৩৪) বরফ বিক্রির ১০ লক্ষ টাকা নিয়ে পেকুয়ায় ব্যাংকে জমা দেওয়ার জন্য একটি মোটর সাইকেল যোগে পেকুয়া বাজারের উদ্দেশ্যে রওয়না দেন। তারা মোটর সাইকেল নিয়ে মগনামা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড়ের বেঙ্গল ঘোনার উত্তর পার্শ্বে চলাচল রাস্তায় পৌঁছালে পূর্ব থেকে সন্ত্রাসী কায়দায় উৎপেতে থাকা আসামীরা তাদের মোটর সাইকেলের গতিরোধ করে চাইনিজ কুড়াল, লোহার হাতুড়ি ও ধারালো দা-কিরিচ নিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। ধারালো কিরিচ নিয়ে এনায়েত উল্লাহকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে আসামীরা। এসময় আরফাতের সাথে থাকা বরফ বিক্রির ১০ লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেয় আসামীরা।

মামলার বাদী জুনায়েত ইসরাক চৌধুরী বাবু জানান, তার ভাই এনায়েত উল্লাহ একজন সরকারী চাকুরীজীবি এবং ন¤্র,ভদ্র ও শান্ত প্রকৃতির লোক। মমতাজের নির্দেশে একদল সন্ত্রাসী তার ভাই ও মামাতো ভাইয়ের উপর বর্বর আক্রমণ চালানো হয়েছে। তার ভাই এনায়েতের দুই চোখ উপড়ে ফেলার জন্য চেষ্টা করেছে। মাথায় কুপিয়েছে। চোখে আঘাত করেছে। তার মামাতো ভাই আরফাতকে কুপিয়ে ১০ লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে হামলাকারীরা। বাবু আরো জানান, হামলাকারীরা মগনামা ইউনিয়নজুড়ে এক নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। তারা পুলিশের উপরও হামলা করেছে। মামলার বাদী বাবু তার দায়েরকৃত মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেফতারপূর্বক আইনের কাছে সোপর্দ্দ করার জন্য পুলিশ প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: সাইফুল ইসলাম মজুমদার জানান, মগনামা ইউপি চেয়ারম্যানের ভাই ও অপর একজনের উপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে।