রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যশোরে মার্কেন্টাইল ব্যাংক কর্মকতার বিরুদ্ধে যৌতুক মামলা

যশোর ব্যুরো।।যশোর যৌতুক নিরোধ আইনে মার্কেন্টাইল ব্যাংকের কর্মকর্তা মমিনুর রহমানকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা হয়েছে। রোববার যশোর সদরের বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামের জসিম উদ্দিনের মেয়ে হাজেরা খাতুন বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুদ্দীন হোসাইন অভিযোগটি আমলে নিয়ে আসামির প্রতি সমন জারির আদেশ দিয়েছেন। আসামি মমিনুর ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুরের শ্যামকুড় গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে। তিনি বর্তমানে মার্কেন্টালইল ব্যাংক ঢাকা উত্তরা শাখার ইনভেস্টমেন্ট অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ২০ অক্টোবর মমিনুর ছাত্র জীবনে হাজেরা খাতুনকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর শ্বশুর বাড়িতে থেকে তিনি পড়াশুনা শেষ করেন। বিমান বাহিনীনির বে-সামরিক কর্মকর্তা শ্বশুরের শুপারিশে মমিনুরের মার্মেন্টাইল ব্যাংকে চাকরি হয়। এরপর তারা ঢাকায় বসবাস শুরু করেন। মমিনুরের বাড়িতে জমি ক্রয়ের জন্য ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। একপর্যালে বাধ্য হয়ে খাতুন তার পিতার বাড়ি থেকে দাবিকৃত যৌতুকের ২ লাখ টাকা এনে দেন। বাকি তিন লাখ টাকার জন্য মমিনুর তার স্ত্রীর উপর মানষিক ও শারিরীক নির্যাতন শুরু করেন। গত ৯ এপ্রিল যৌতুকের টাকা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় স্ত্রী হাজের খাতুনকে এক বস্ত্রে ঢাকা তার পিতার বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। গত ২০ আগস্ট বিয়টি মীমাংসায় ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন। #

যশোরে মার্কেন্টাইল ব্যাংক কর্মকতার বিরুদ্ধে যৌতুক মামলা

প্রকাশের সময় : ০৯:৫৫:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ অগাস্ট ২০২১
যশোর ব্যুরো।।যশোর যৌতুক নিরোধ আইনে মার্কেন্টাইল ব্যাংকের কর্মকর্তা মমিনুর রহমানকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা হয়েছে। রোববার যশোর সদরের বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামের জসিম উদ্দিনের মেয়ে হাজেরা খাতুন বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুদ্দীন হোসাইন অভিযোগটি আমলে নিয়ে আসামির প্রতি সমন জারির আদেশ দিয়েছেন। আসামি মমিনুর ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুরের শ্যামকুড় গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে। তিনি বর্তমানে মার্কেন্টালইল ব্যাংক ঢাকা উত্তরা শাখার ইনভেস্টমেন্ট অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ২০ অক্টোবর মমিনুর ছাত্র জীবনে হাজেরা খাতুনকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর শ্বশুর বাড়িতে থেকে তিনি পড়াশুনা শেষ করেন। বিমান বাহিনীনির বে-সামরিক কর্মকর্তা শ্বশুরের শুপারিশে মমিনুরের মার্মেন্টাইল ব্যাংকে চাকরি হয়। এরপর তারা ঢাকায় বসবাস শুরু করেন। মমিনুরের বাড়িতে জমি ক্রয়ের জন্য ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। একপর্যালে বাধ্য হয়ে খাতুন তার পিতার বাড়ি থেকে দাবিকৃত যৌতুকের ২ লাখ টাকা এনে দেন। বাকি তিন লাখ টাকার জন্য মমিনুর তার স্ত্রীর উপর মানষিক ও শারিরীক নির্যাতন শুরু করেন। গত ৯ এপ্রিল যৌতুকের টাকা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় স্ত্রী হাজের খাতুনকে এক বস্ত্রে ঢাকা তার পিতার বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। গত ২০ আগস্ট বিয়টি মীমাংসায় ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন। #