সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মার্কিন হামলাঃ কাবুলে ৬ শিশুসহ একই পরিবারের ৯ জন নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।

আফগানিস্তানের কাবুল বিমানবন্দরের অদূরে ড্রোন হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। এক বিবৃতিতে তারা জানায়, একটি গাড়িতে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ভরে এক মানববোমা বিমানবন্দরের দিকে যাচ্ছিল। ড্রোনের সাহায্যে বিমানবন্দর থেকে কিছুটা দূরে সেই গাড়ির উপর হামলা চালানো হয়। গাড়ির ভেতরে বিস্ফোরক থাকায় বিশাল বিস্ফোরণ হয়। 

এদিকে গতকাল রবিবার (২৯ আগস্ট) রাতে মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগন স্বীকার করেছে, ওই বিস্ফোরণের ফলে সাধারণ মানুষেরও মৃত্যু হয়েছে।

পেন্টাগনে মার্কিন সেন্ট্রাল কম্যান্ডের মুখপাত্র বিল আরবান বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, বিস্ফোরক বোঝাই গাড়িতে হামলা চালানোর ফলে সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে আমরা খবর পেয়েছি। খুবই দুঃখজনক ঘটনা। গাড়ির ভিতর প্রচুর বিস্ফোরক থাকায় হামলার পরে বিশাল বিস্ফোরণ হয়। তার জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে।

পেন্টাগনের একটি সূত্র সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে জানিয়েছে, বিস্ফোরণে একই পরিবারের নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যে ছয়টি শিশু আছে। কোনো কোনো সূত্রের দাবি, আরো বেশি সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

মার্কিন সময় গতকাল বিকেলে পেন্টাগন জানিয়েছিল, এদিন কাবুল বিমানবন্দরে বিস্ফোরণ ঘটানোর উদ্দেশ্যে একটি গাড়িতে বিস্ফোরক ভরে এক মানববোমা এয়ারপোর্টের দিকে যাচ্ছিল। সন্দেহ হওয়ায় মার্কিন গোয়েন্দারা গাড়িটিকে ফলো করে। এরপরেই ড্রোনের সাহায্যে গাড়িটি উড়িয়ে দেয়া হয়। ড্রোনটি সম্ভবত কাতার থেকে চালনা করা হয়।

এর আগে কাবুল বিমানবন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল ইসলামিক স্টেট খোরাসান (আইএস-কে)। এদিনও তারাই হামলা চালানোর চেষ্টা চালায় বলে অভিযোগ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যু্ক্তরাজ্যের গোয়েন্দারা তখনই জানিয়েছিলেন, কাবুল বিমানবন্দরে আরো হামলা চালাতে পারে আইএস।

বস্তুত রবিবারের ঘটনার পরেও নতুন করে সতর্কবার্তা জারি হয়েছে। এ ধরনের আরো আক্রমণ হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ৩১ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রসহ সব পশ্চিমা দেশের কাবুল ছাড়ার শেষ দিন। তার আগে আইএস কাবুল বিমানবন্দরে হামলা চালিয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করার চেষ্টা করছে বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা। -ডয়চে ভেলে

মার্কিন হামলাঃ কাবুলে ৬ শিশুসহ একই পরিবারের ৯ জন নিহত

প্রকাশের সময় : ০১:৪১:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ অগাস্ট ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।

আফগানিস্তানের কাবুল বিমানবন্দরের অদূরে ড্রোন হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। এক বিবৃতিতে তারা জানায়, একটি গাড়িতে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ভরে এক মানববোমা বিমানবন্দরের দিকে যাচ্ছিল। ড্রোনের সাহায্যে বিমানবন্দর থেকে কিছুটা দূরে সেই গাড়ির উপর হামলা চালানো হয়। গাড়ির ভেতরে বিস্ফোরক থাকায় বিশাল বিস্ফোরণ হয়। 

এদিকে গতকাল রবিবার (২৯ আগস্ট) রাতে মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগন স্বীকার করেছে, ওই বিস্ফোরণের ফলে সাধারণ মানুষেরও মৃত্যু হয়েছে।

পেন্টাগনে মার্কিন সেন্ট্রাল কম্যান্ডের মুখপাত্র বিল আরবান বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, বিস্ফোরক বোঝাই গাড়িতে হামলা চালানোর ফলে সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে আমরা খবর পেয়েছি। খুবই দুঃখজনক ঘটনা। গাড়ির ভিতর প্রচুর বিস্ফোরক থাকায় হামলার পরে বিশাল বিস্ফোরণ হয়। তার জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে।

পেন্টাগনের একটি সূত্র সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে জানিয়েছে, বিস্ফোরণে একই পরিবারের নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যে ছয়টি শিশু আছে। কোনো কোনো সূত্রের দাবি, আরো বেশি সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

মার্কিন সময় গতকাল বিকেলে পেন্টাগন জানিয়েছিল, এদিন কাবুল বিমানবন্দরে বিস্ফোরণ ঘটানোর উদ্দেশ্যে একটি গাড়িতে বিস্ফোরক ভরে এক মানববোমা এয়ারপোর্টের দিকে যাচ্ছিল। সন্দেহ হওয়ায় মার্কিন গোয়েন্দারা গাড়িটিকে ফলো করে। এরপরেই ড্রোনের সাহায্যে গাড়িটি উড়িয়ে দেয়া হয়। ড্রোনটি সম্ভবত কাতার থেকে চালনা করা হয়।

এর আগে কাবুল বিমানবন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল ইসলামিক স্টেট খোরাসান (আইএস-কে)। এদিনও তারাই হামলা চালানোর চেষ্টা চালায় বলে অভিযোগ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যু্ক্তরাজ্যের গোয়েন্দারা তখনই জানিয়েছিলেন, কাবুল বিমানবন্দরে আরো হামলা চালাতে পারে আইএস।

বস্তুত রবিবারের ঘটনার পরেও নতুন করে সতর্কবার্তা জারি হয়েছে। এ ধরনের আরো আক্রমণ হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ৩১ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রসহ সব পশ্চিমা দেশের কাবুল ছাড়ার শেষ দিন। তার আগে আইএস কাবুল বিমানবন্দরে হামলা চালিয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করার চেষ্টা করছে বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা। -ডয়চে ভেলে