বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্বর্ণালংকার-টাকা নিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী উধাও! 

প্রতীকী ছবি

বেনাপোল প্রতিনিধি ।।
যশোরের শার্শা উপজেলার বসতপুর গ্রামে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকারসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে পালিয়েছেন এক প্রবাসীর স্ত্রী। এ ঘটনায় প্রবাসীর বড়ভাই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় প্রবাসীর ভাই মনিরুল ইসলাম জিডিটি করেন। জিডি নম্বর ১২৬০। তারিখ ০৪/০৯/২০২১।
অভিযুক্ত নারীর নাম মাফিয়া খাতুন। তিনি যশোর সদর উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের সদর আলী গাজীর মেয়ে ও প্রবাসী সাইফুল ইসলামের স্ত্রী।
প্রবাসীর বড় ভাই মনিরুল ইসলাম জিডিতে উল্লেখ করেন, তারা যৌথ পরিবারের সদস্য। তার ছোট ভাই সাইফুল ইসলাম প্রায় তিন বছর ধরে বিদেশে আছেন। গত ২৭ আগস্ট ভোরে কাউকে কিছু না জানিয়ে তার ঘরে রাখা নগদ এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা, তিন ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার ও একটি দামি মোবাইল ফোন নিয়ে পালিয়ে যান। পরে জানতে পারেন মাফিয়া যশোরে বাবার বাড়িতে অবস্থান করছেন। টাকা ও স্বর্ণ ফেরত চাইলে তিনি তা দিতে অস্বীকার করেন।
জিডির তদন্তের দায়িত্বে থাকা শার্শা থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রবিউল ইসলাম বলেন, আজ রবিবার (০৫ সেপ্টেম্বর) সকালে দুই পক্ষকে ডাকা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে বিস্তারিত শুনে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্বর্ণালংকার-টাকা নিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী উধাও! 

প্রকাশের সময় : ০৪:১২:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
বেনাপোল প্রতিনিধি ।।
যশোরের শার্শা উপজেলার বসতপুর গ্রামে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকারসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে পালিয়েছেন এক প্রবাসীর স্ত্রী। এ ঘটনায় প্রবাসীর বড়ভাই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় প্রবাসীর ভাই মনিরুল ইসলাম জিডিটি করেন। জিডি নম্বর ১২৬০। তারিখ ০৪/০৯/২০২১।
অভিযুক্ত নারীর নাম মাফিয়া খাতুন। তিনি যশোর সদর উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের সদর আলী গাজীর মেয়ে ও প্রবাসী সাইফুল ইসলামের স্ত্রী।
প্রবাসীর বড় ভাই মনিরুল ইসলাম জিডিতে উল্লেখ করেন, তারা যৌথ পরিবারের সদস্য। তার ছোট ভাই সাইফুল ইসলাম প্রায় তিন বছর ধরে বিদেশে আছেন। গত ২৭ আগস্ট ভোরে কাউকে কিছু না জানিয়ে তার ঘরে রাখা নগদ এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা, তিন ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার ও একটি দামি মোবাইল ফোন নিয়ে পালিয়ে যান। পরে জানতে পারেন মাফিয়া যশোরে বাবার বাড়িতে অবস্থান করছেন। টাকা ও স্বর্ণ ফেরত চাইলে তিনি তা দিতে অস্বীকার করেন।
জিডির তদন্তের দায়িত্বে থাকা শার্শা থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রবিউল ইসলাম বলেন, আজ রবিবার (০৫ সেপ্টেম্বর) সকালে দুই পক্ষকে ডাকা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে বিস্তারিত শুনে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।