বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হবিগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার!

মীর দুলাল, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ।।
 হবিগঞ্জের বদিউজ্জামান সড়কের   সালমা কুড়ি বভন থেকে লিবিয়া প্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
 স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, শহরের বদিউজ্জামান সড়কের আমিরচাঁন কমপ্লেক্স এলাকার সালমা কুড়ির ভবনের ৩ তলায়, জুলি বেগম (২৪) নামের গৃহবুধুর জুলন্ত লাশ পাওয়া যায়।
নিহত জুলি বেগম গত দুদিন আগে বৃদ্ধ নানীকে দেখতে ঐ বাসায় আসেন! সালমা কুড়ির ভবনের নিচতলায় তার নানীর সাথে তিনি থাকেন!
মঙ্গলবার গভীর রাতে ঐ ভবনের ৩য় তলায় লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় ভবনের লোকজন। তবে রুমের দরজা বাহির থেকে খোলা থাকায়, রহস্যজনক মৃত্যু বলে  ধারণা করা হয়েছে!
এই বিষয়ে নিহতের বৃদ্ধ নানীর কাছে থেকে যানা যায় দুই দিন আগে নিহত জুলি আক্তার  নানীর কাছে থাকতে আসে। তিনি এর থেকে বেশি কিছু বলতে পারেন নি বলে কান্নায় বার বার ভেঙে পরেন।
স্থানীয় সুত্রে খবর পেয়ে   হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার একদল পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
নিহতের বাড়ী নবীগঞ্জ উপজেলার ভরমপুর গ্রামের লিবিয়া প্রবাসী নজরুল আলীর স্ত্রী তার পিতার বাড়ি একই উপজেলার বড়চর গ্রামের মৃত শাহ কদ্দুস মিয়ার কন্যা।
এ বিষয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার পুলিশের তদন্তকারী কর্মকর্তা উৎসব কর্মকার  জানান, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না আসার আগ পর্যন্ত কিছু বলা যাবে না।
রিপোর্ট আসলে পরে বুঝা যাবে আত্মহত্যা নাকি হত্যা।

হবিগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার!

প্রকাশের সময় : ১১:০৪:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
মীর দুলাল, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ।।
 হবিগঞ্জের বদিউজ্জামান সড়কের   সালমা কুড়ি বভন থেকে লিবিয়া প্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
 স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, শহরের বদিউজ্জামান সড়কের আমিরচাঁন কমপ্লেক্স এলাকার সালমা কুড়ির ভবনের ৩ তলায়, জুলি বেগম (২৪) নামের গৃহবুধুর জুলন্ত লাশ পাওয়া যায়।
নিহত জুলি বেগম গত দুদিন আগে বৃদ্ধ নানীকে দেখতে ঐ বাসায় আসেন! সালমা কুড়ির ভবনের নিচতলায় তার নানীর সাথে তিনি থাকেন!
মঙ্গলবার গভীর রাতে ঐ ভবনের ৩য় তলায় লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় ভবনের লোকজন। তবে রুমের দরজা বাহির থেকে খোলা থাকায়, রহস্যজনক মৃত্যু বলে  ধারণা করা হয়েছে!
এই বিষয়ে নিহতের বৃদ্ধ নানীর কাছে থেকে যানা যায় দুই দিন আগে নিহত জুলি আক্তার  নানীর কাছে থাকতে আসে। তিনি এর থেকে বেশি কিছু বলতে পারেন নি বলে কান্নায় বার বার ভেঙে পরেন।
স্থানীয় সুত্রে খবর পেয়ে   হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার একদল পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
নিহতের বাড়ী নবীগঞ্জ উপজেলার ভরমপুর গ্রামের লিবিয়া প্রবাসী নজরুল আলীর স্ত্রী তার পিতার বাড়ি একই উপজেলার বড়চর গ্রামের মৃত শাহ কদ্দুস মিয়ার কন্যা।
এ বিষয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার পুলিশের তদন্তকারী কর্মকর্তা উৎসব কর্মকার  জানান, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না আসার আগ পর্যন্ত কিছু বলা যাবে না।
রিপোর্ট আসলে পরে বুঝা যাবে আত্মহত্যা নাকি হত্যা।