রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আগে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন তারপর নির্বাচনের কথা বলুন – ডা.শাহাদাত হোসেন

ইসমাইল ইমন, চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি।। 

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক ডা.শাহাদাত হোসেন বলেছেন, বিএনপি’র চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি রেখে এই দেশে কোনো নির্বাচন হবে না। এক দলীয় সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন নয়। এই সরকার ক্ষমতায় এসে ফ্যাসিস্ট কায়দায় দেশ শাসন করছে। দেশে মানুষের গণতন্ত্র নেই,মানুষের কথা বলার অধিকার নেই, ভোটাধিকার নেই। নির্বাচনের আগে নির্দলীয় নিরপেক্ষ স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। সকল রাজনৈতিক মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। তারপর নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই নির্বাচন দিন। অন্যতায় এক দলীয় সরকারের অধীনে আওয়ামীলীগ মার্কা একদলীয় নির্বাচন এই দেশের জনগণ মেনে নিবে না।
তিনি আজ ১২ সেপ্টেম্বর বিকালে চাঁদগাও ফরিদা পাড়ায় বিএনপি’র ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে হাজী কামাল উদ্দিনের উদ্যোগে আয়োজিত ত্রাণ বিতরণকালে এসব কথা বলে।
ডা.শাহাদাত হোসেন আরো বলেন,
এই সরকার দেশকে এমন একটা পর্যায় নিয়ে গেছেন প্রতিটি ক্ষেত্রে দুর্নীতি ও দুঃশাসন এবং দলীয়করণ করেছে। বিচার বিভাগকে দলীয়করন করেছে, প্রশাসনকে দলীয়করণ করেছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দলীয়করণ করেছে। সর্বক্ষেত্রে দলীয়করণ করছে সরকার। সাংবাদিক ভাইয়েরা সরকারের বিরুদ্ধে কিছু লিখলেই তাদেরকে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে আইন ছড়াও বিভিন্ন আইনে মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়। তাই এই সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন হলে তা নিরপেক্ষ নির্দলীয় হবে না।
দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান বলেন, এই দেশের মানুষ গণতান্ত্রিক একটি সরকার চায়। সেই সরকার হবে জনগণের সরকার।আওয়ামীলীগ জোর করে ক্ষমতায় আসার পর থেকে স্বাধীনতার সকল আশাগুলো ভেঙে খান খান করেছে। ভবিষ্যত প্রজন্মকে ভ্রান্ত ইতিহাস জানিয়ে বিভ্রান্তি করা হচ্ছে। জনগনের আশা আকাংখা ভেঙে চুরমার করা হয়েছে। এমন একটি সমাজ, একটি রাষ্ট্র গঠন করা হচ্ছে যেখানে ন্যায় বিচার দুষ্প্রাপ্য। বৈষ্যম আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।
ত্রাণ বিতরণ কালে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য সাবেক কাউন্সিলর মাহবুবুল আলম, আনোয়ার হোসেন লিপু, গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ, চাঁদগাও থানা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক কাউন্সিলর আজম উদ্দিন, থানা বিএনপি নেতা মো.এসকান্দর,কৃষক দলনেতা জসীম উদ্দীন, চাঁদগাও ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধূরী, বিএনপি নেতা নুহ গাজী সেলিম, হাজী কামাল উদ্দিন, আবু সৈয়দ, নগর যুবদল নেতা এমদাদুল হক বাদশা, নাসির উদ্দিন চৌধুরী নাসিম, নগর স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা জিয়াউর রহমান জিয়া, যুবদল নেতা গোলজার হোসেন, সাইদুল ইসলাম, মোরশেদ কামাল, ইউসুফ আলী, লিটন, ইস্কান্দর হোসেন, শফিউল্লাহ মামুন, মুরাদ, স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা মোহাম্মদ আলমগীর, শহীদুজ্জামান শহীদ, জহিরুল ইসলাম, ছাত্রদল নেতা আসাদুজ্জামান, ইকবাল কবীর প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

আগে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন তারপর নির্বাচনের কথা বলুন – ডা.শাহাদাত হোসেন

প্রকাশের সময় : ০৯:৫১:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১

ইসমাইল ইমন, চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি।। 

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক ডা.শাহাদাত হোসেন বলেছেন, বিএনপি’র চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি রেখে এই দেশে কোনো নির্বাচন হবে না। এক দলীয় সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন নয়। এই সরকার ক্ষমতায় এসে ফ্যাসিস্ট কায়দায় দেশ শাসন করছে। দেশে মানুষের গণতন্ত্র নেই,মানুষের কথা বলার অধিকার নেই, ভোটাধিকার নেই। নির্বাচনের আগে নির্দলীয় নিরপেক্ষ স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। সকল রাজনৈতিক মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। তারপর নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই নির্বাচন দিন। অন্যতায় এক দলীয় সরকারের অধীনে আওয়ামীলীগ মার্কা একদলীয় নির্বাচন এই দেশের জনগণ মেনে নিবে না।
তিনি আজ ১২ সেপ্টেম্বর বিকালে চাঁদগাও ফরিদা পাড়ায় বিএনপি’র ৪৩ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে হাজী কামাল উদ্দিনের উদ্যোগে আয়োজিত ত্রাণ বিতরণকালে এসব কথা বলে।
ডা.শাহাদাত হোসেন আরো বলেন,
এই সরকার দেশকে এমন একটা পর্যায় নিয়ে গেছেন প্রতিটি ক্ষেত্রে দুর্নীতি ও দুঃশাসন এবং দলীয়করণ করেছে। বিচার বিভাগকে দলীয়করন করেছে, প্রশাসনকে দলীয়করণ করেছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দলীয়করণ করেছে। সর্বক্ষেত্রে দলীয়করণ করছে সরকার। সাংবাদিক ভাইয়েরা সরকারের বিরুদ্ধে কিছু লিখলেই তাদেরকে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে আইন ছড়াও বিভিন্ন আইনে মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়। তাই এই সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন হলে তা নিরপেক্ষ নির্দলীয় হবে না।
দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান বলেন, এই দেশের মানুষ গণতান্ত্রিক একটি সরকার চায়। সেই সরকার হবে জনগণের সরকার।আওয়ামীলীগ জোর করে ক্ষমতায় আসার পর থেকে স্বাধীনতার সকল আশাগুলো ভেঙে খান খান করেছে। ভবিষ্যত প্রজন্মকে ভ্রান্ত ইতিহাস জানিয়ে বিভ্রান্তি করা হচ্ছে। জনগনের আশা আকাংখা ভেঙে চুরমার করা হয়েছে। এমন একটি সমাজ, একটি রাষ্ট্র গঠন করা হচ্ছে যেখানে ন্যায় বিচার দুষ্প্রাপ্য। বৈষ্যম আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।
ত্রাণ বিতরণ কালে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য সাবেক কাউন্সিলর মাহবুবুল আলম, আনোয়ার হোসেন লিপু, গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ, চাঁদগাও থানা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক কাউন্সিলর আজম উদ্দিন, থানা বিএনপি নেতা মো.এসকান্দর,কৃষক দলনেতা জসীম উদ্দীন, চাঁদগাও ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধূরী, বিএনপি নেতা নুহ গাজী সেলিম, হাজী কামাল উদ্দিন, আবু সৈয়দ, নগর যুবদল নেতা এমদাদুল হক বাদশা, নাসির উদ্দিন চৌধুরী নাসিম, নগর স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা জিয়াউর রহমান জিয়া, যুবদল নেতা গোলজার হোসেন, সাইদুল ইসলাম, মোরশেদ কামাল, ইউসুফ আলী, লিটন, ইস্কান্দর হোসেন, শফিউল্লাহ মামুন, মুরাদ, স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা মোহাম্মদ আলমগীর, শহীদুজ্জামান শহীদ, জহিরুল ইসলাম, ছাত্রদল নেতা আসাদুজ্জামান, ইকবাল কবীর প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।