শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বেনাপোল বন্দরে পরিবহন ধর্মঘটে রফতানি বন্ধ, উদ্বিগ্ন বন্দর ব্যবহারকারীরা

বেনাপোল প্রতিনিধি ।।

বেনাপোল বন্দর দিয়ে পন্য রফতানি ও বন্দর থেকে পন্যখালাশ বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান -ট্রাক পণ্যপরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশন।
আজ মংগলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে আমাদনি বানিজ্য চালূ থাকলেও বন্ধ রয়েছে রফতানি বানিজ্য। বন্দর থেকে মালামাল খালাশ বন্ধ থাকায় শতশত রফতানি পন্যবোঝাই ট্রাক আটকা পড়েছে বন্দর এলাকায়। বেনাপোল বন্দর থেকে ৫ কি: মি: ট্রাকের লম্বা লাইনে বিপর্য¯ত  হয়ে পড়েছে জনজীবন।
ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান প্রাইম মুভার (ট্রেইলার)বন্ধ রাখায় অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বন্দরে। ফলে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে আমদানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ব্যবসায়ীদের মাঝে।
দেশের সিংহভাগ শিল্প কলকারখানা ও গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রিজের শতকরা ৮০ শতাংশ কাচামাল আমদানি হয় বেনাপোল বন্দর দিয়ে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে আগামী ৭২ ঘণ্টা পর্যšত চলবে এ ধর্মঘট। ফলে সকাল থেকে কোন পণ্যবাহী ট্রাক,কাভার্ডভ্যান প্রবেশ করতে পারেনি বেনাপোল বন্দরে। ফলে বন্দরে মালামাল খালাশ প্রক্রিয়া বন্ধ রয়েছে। বিশেষ করে উচ্চ পচনশীল সাদামাছ রফতানির অপেক্ষায় পড়ে আছে বেনাপোল বন্দরে।
বেনাপোল ট্রাক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ¦ শামছুর রহমান বলেন, ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতি ও ট্রাক চালখ শ্রমিক ফেডারেশন ১৫ দফা দাবিতে ৭২ ঘণ্টা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। আমরা তাদের ডাকে সাড়া দিয়ে পন্যপরিবহন বন্ধ রেখেছি।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, বৈশ্বিক মহামারি করোনার কারনে জাতীয় অর্থনীতিতে বিরুপ প্রভাব পড়েছে, তার ওপর পরিবহন ধর্মঘটে বন্দরে অচলাবস্থা সৃষ্টি করা আত্মঘাতী। ধর্মঘটে শিল্প কলকারখানা ও গার্মেন্ট ইন্ডাস্ট্রিজে বড় ধরনের প্রভাব পড়বে। অবিলম্বে ধর্মঘট প্রত্যাহারে জোর দাবি জানাচ্ছি।

বেনাপোল বন্দরে পরিবহন ধর্মঘটে রফতানি বন্ধ, উদ্বিগ্ন বন্দর ব্যবহারকারীরা

প্রকাশের সময় : ০৫:৩৬:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

বেনাপোল প্রতিনিধি ।।

বেনাপোল বন্দর দিয়ে পন্য রফতানি ও বন্দর থেকে পন্যখালাশ বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান -ট্রাক পণ্যপরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশন।
আজ মংগলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে আমাদনি বানিজ্য চালূ থাকলেও বন্ধ রয়েছে রফতানি বানিজ্য। বন্দর থেকে মালামাল খালাশ বন্ধ থাকায় শতশত রফতানি পন্যবোঝাই ট্রাক আটকা পড়েছে বন্দর এলাকায়। বেনাপোল বন্দর থেকে ৫ কি: মি: ট্রাকের লম্বা লাইনে বিপর্য¯ত  হয়ে পড়েছে জনজীবন।
ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান প্রাইম মুভার (ট্রেইলার)বন্ধ রাখায় অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বন্দরে। ফলে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে আমদানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ব্যবসায়ীদের মাঝে।
দেশের সিংহভাগ শিল্প কলকারখানা ও গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রিজের শতকরা ৮০ শতাংশ কাচামাল আমদানি হয় বেনাপোল বন্দর দিয়ে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে আগামী ৭২ ঘণ্টা পর্যšত চলবে এ ধর্মঘট। ফলে সকাল থেকে কোন পণ্যবাহী ট্রাক,কাভার্ডভ্যান প্রবেশ করতে পারেনি বেনাপোল বন্দরে। ফলে বন্দরে মালামাল খালাশ প্রক্রিয়া বন্ধ রয়েছে। বিশেষ করে উচ্চ পচনশীল সাদামাছ রফতানির অপেক্ষায় পড়ে আছে বেনাপোল বন্দরে।
বেনাপোল ট্রাক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ¦ শামছুর রহমান বলেন, ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতি ও ট্রাক চালখ শ্রমিক ফেডারেশন ১৫ দফা দাবিতে ৭২ ঘণ্টা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। আমরা তাদের ডাকে সাড়া দিয়ে পন্যপরিবহন বন্ধ রেখেছি।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, বৈশ্বিক মহামারি করোনার কারনে জাতীয় অর্থনীতিতে বিরুপ প্রভাব পড়েছে, তার ওপর পরিবহন ধর্মঘটে বন্দরে অচলাবস্থা সৃষ্টি করা আত্মঘাতী। ধর্মঘটে শিল্প কলকারখানা ও গার্মেন্ট ইন্ডাস্ট্রিজে বড় ধরনের প্রভাব পড়বে। অবিলম্বে ধর্মঘট প্রত্যাহারে জোর দাবি জানাচ্ছি।