রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

হবিগঞ্জে ছোট ভাইকে পিটিয়ে হত্যা করল বড় ভাই 

মীর দুলাল, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ।।
হবিগঞ্জে সদর উপজেলার পইল গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ছোট ভাই সঞ্জব আলীকে (৪২) পিটিয়ে হত্যা করেছেন বড় ভাই তৈয়ব আলী (৪৫)। এ ঘটনায় তৈয়ব আলীকে আটক করেছে পুলিশ।
বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর)২১ ইং  দুপুরে সদর হাসপাতালে মারা যান তিনি। এর আগে মঙ্গলবার (২১সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার পইল গ্রামে পিটিয়ে গুরুতর জখম করা হয় তাকে। নিহত সঞ্জব আলী ওই গ্রামের মৃত সিরাজ মিয়া ওরফে কুটি মিয়ার ছেলে। তিনি মৌলভীবাজারে জেলায় আনসার সদস্য হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সঞ্জব আলী ও তার বড় ভাই তৈয়ব আলীর মধ্যে বাড়ির কিছু জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিরোধপূর্ণ ওই জমির একটি গাছ থেকে জাম্বুরা পাড়েন সঞ্জব আলীর পরিবারের সদস্যরা। এ নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে তৈয়ব আলী ও তার পরিবারের সদস্যরা সঞ্জব আলীকে পিটিয়ে জখম করেন।
রাতে গুরুতর অবস্থায় তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসার পর সঞ্জব আলীকে বাড়ি নিয়ে গেলে পরদিন বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তিনি আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
খবর পেয়ে হাসপাতালে যান পুলিশ সুপার এস.এম মুরাদ আলি, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলীসহ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাসুক আলী জানান, সঞ্জব আলীর মরদেহ পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।
একই সময়ে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে নিহতের বড় ভাই তৈয়ব আলীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত চলছে বলেও জানান তিনি।

হবিগঞ্জে ছোট ভাইকে পিটিয়ে হত্যা করল বড় ভাই 

প্রকাশের সময় : ০৭:২৬:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১
মীর দুলাল, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ।।
হবিগঞ্জে সদর উপজেলার পইল গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ছোট ভাই সঞ্জব আলীকে (৪২) পিটিয়ে হত্যা করেছেন বড় ভাই তৈয়ব আলী (৪৫)। এ ঘটনায় তৈয়ব আলীকে আটক করেছে পুলিশ।
বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর)২১ ইং  দুপুরে সদর হাসপাতালে মারা যান তিনি। এর আগে মঙ্গলবার (২১সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার পইল গ্রামে পিটিয়ে গুরুতর জখম করা হয় তাকে। নিহত সঞ্জব আলী ওই গ্রামের মৃত সিরাজ মিয়া ওরফে কুটি মিয়ার ছেলে। তিনি মৌলভীবাজারে জেলায় আনসার সদস্য হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সঞ্জব আলী ও তার বড় ভাই তৈয়ব আলীর মধ্যে বাড়ির কিছু জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিরোধপূর্ণ ওই জমির একটি গাছ থেকে জাম্বুরা পাড়েন সঞ্জব আলীর পরিবারের সদস্যরা। এ নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে তৈয়ব আলী ও তার পরিবারের সদস্যরা সঞ্জব আলীকে পিটিয়ে জখম করেন।
রাতে গুরুতর অবস্থায় তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসার পর সঞ্জব আলীকে বাড়ি নিয়ে গেলে পরদিন বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তিনি আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
খবর পেয়ে হাসপাতালে যান পুলিশ সুপার এস.এম মুরাদ আলি, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলীসহ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাসুক আলী জানান, সঞ্জব আলীর মরদেহ পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।
একই সময়ে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে নিহতের বড় ভাই তৈয়ব আলীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত চলছে বলেও জানান তিনি।