বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চিলাহাটি সীমান্ত পরিদর্শনে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার

নীলফামারী প্রতিনিধি।।নীলফামারীর ডোমার উপজেলার চিলাহাটি রেলস্টেশন ও ভারতীয় সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার সঞ্জীব কুমার ভাটী।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ টার দিকে চিলাহাটি রেলস্টেশনে এসে পৌঁছালে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার চিলাহাটি রেলস্টেশনের উন্নয়নমূলক কাজ, পাসপোর্টের মাধ্যমে দুই দেশের মানুষের চলাচল, এ পর্যন্ত এই রেলপথ দিয়ে ভারত থেকে আমদানিকৃত মালামাল, ভারতীয় ট্রেন এখানে প্রবেশের পর কিভাবে আবার পুনরায় চলে যায় এই বিষয়গুলো নিয়ে পর্যালোচনা করেন।

তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথ দিয়ে শুধু বাংলাদেশ-ভারত ট্রেন চলাচল সীমাবদ্ধ থাকবে না। এ পথ দিয়ে নেপাল ও ভুটানেরও ট্রেন চলাচল করবে। এই সীমান্ত দিয়ে দুই দেশের মধ্যে যে সমস্ত কাজ প্রক্রিয়াধীন করেছে তা দ্রুত সস্পূর্ণ করা হবে। এই রেলপথটির মাধ্যমে ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক আরও উন্নত হবে।

শেষে ডাঙ্গাপাড়া সীমান্তের মেইন পিলার ৭৮২/৩-এস পিলারের পাশ দিয়ে বাংলাদেশ-ভারতের রেল সংযোগ পথটি পরিদর্শন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, নীলফামারী কাস্টমস অফিসের রাজস্ব কর্মকর্তা তুষার কান্তি রায়, সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মোস্তাফিজার রহমান, ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম, চিলাহাটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ নুরল হক

চিলাহাটি সীমান্ত পরিদর্শনে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার

প্রকাশের সময় : ০৪:১৩:৫৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

নীলফামারী প্রতিনিধি।।নীলফামারীর ডোমার উপজেলার চিলাহাটি রেলস্টেশন ও ভারতীয় সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার সঞ্জীব কুমার ভাটী।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ টার দিকে চিলাহাটি রেলস্টেশনে এসে পৌঁছালে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার চিলাহাটি রেলস্টেশনের উন্নয়নমূলক কাজ, পাসপোর্টের মাধ্যমে দুই দেশের মানুষের চলাচল, এ পর্যন্ত এই রেলপথ দিয়ে ভারত থেকে আমদানিকৃত মালামাল, ভারতীয় ট্রেন এখানে প্রবেশের পর কিভাবে আবার পুনরায় চলে যায় এই বিষয়গুলো নিয়ে পর্যালোচনা করেন।

তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথ দিয়ে শুধু বাংলাদেশ-ভারত ট্রেন চলাচল সীমাবদ্ধ থাকবে না। এ পথ দিয়ে নেপাল ও ভুটানেরও ট্রেন চলাচল করবে। এই সীমান্ত দিয়ে দুই দেশের মধ্যে যে সমস্ত কাজ প্রক্রিয়াধীন করেছে তা দ্রুত সস্পূর্ণ করা হবে। এই রেলপথটির মাধ্যমে ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক আরও উন্নত হবে।

শেষে ডাঙ্গাপাড়া সীমান্তের মেইন পিলার ৭৮২/৩-এস পিলারের পাশ দিয়ে বাংলাদেশ-ভারতের রেল সংযোগ পথটি পরিদর্শন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, নীলফামারী কাস্টমস অফিসের রাজস্ব কর্মকর্তা তুষার কান্তি রায়, সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মোস্তাফিজার রহমান, ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম, চিলাহাটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ নুরল হক