রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপি যাদের নিয়ে ঐক্য করেন তাদের মধ্যেই অনৈক্য -তথ্যমন্ত্রী

ফাইল ছবি

ঢাকা ব্যুরো।। বিএনপির প্রতিদিনের বাগাম্বড় জনগণ শুনতে শুনতে কান ঝালাপালা হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘খালি কলসি যেমন বাজে বেশি, বিএনপিও সে রকম বেশি বাজে।’ রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব বাজেন, কদিন বিরতি দিয়ে এখন রিজভী সাহেব বাজেন, গয়েশ্বর বাবু তালে-বেতালে বাজেন। এই নিয়ে জনগণের মধ্যে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘গত কয়েকদিন ধরে বিএনপি বলছে, সর্বশক্তি নিয়োগ করে সরকারের পতন ঘটাতে হবে। ২০১৮ সালের আগেও তারা ডান, বাম, অতিবাম সবাইকে নিয়ে ঐক্য করেছিলেন। সেই ঐক্যের শক্তি হাওয়ায় মিলিয়ে গেছে। দেখা গেছে, বিএনপি যাদের নিয়ে ঐক্য করেন তাদের মধ্যে প্রচণ্ড অনৈক্য।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘‘এখন তারা যে ঐক্যের কথা বলছেন, এই ঐক্য আগে যেমন করেছিলেন, হয়তো সেরকমই একটা কাগুজে ঐক্য করলেও করতে পারেন। আগের সেই শক্তি হাওয়ায় মিলিয়ে গেছে। দেখা গেছে এই ঐক্যের মধ্যে যারা অংশ গ্রহণ করেছিলেন, তাদের মধ্যে প্রচণ্ড অনৈক্য। সেজন্য আবার তাদের মাঝে ‘ঐক্য প্রক্রিয়া’ নামে আবার কিছু কিছু প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।’’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল মোনাফ সিকদারের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদারের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা জহির আহমদ চৌধুরী, উপজেলা চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার, আবুল কাশেম চিশতি, মেয়র শাহজাহান সিকদার, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, নজরুল ইসলাম তালুকদার, ইদ্রিছ আজগর, মুহাম্মদ আলী শাহ, ইফতেখার হোসেন বাবুল, শফিকুল ইসলাম, আকতার হোসেন খান, গিয়াস উদ্দিন খান প্রমুখ।

বিএনপি যাদের নিয়ে ঐক্য করেন তাদের মধ্যেই অনৈক্য -তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ০৯:৫২:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

ঢাকা ব্যুরো।। বিএনপির প্রতিদিনের বাগাম্বড় জনগণ শুনতে শুনতে কান ঝালাপালা হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘খালি কলসি যেমন বাজে বেশি, বিএনপিও সে রকম বেশি বাজে।’ রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব বাজেন, কদিন বিরতি দিয়ে এখন রিজভী সাহেব বাজেন, গয়েশ্বর বাবু তালে-বেতালে বাজেন। এই নিয়ে জনগণের মধ্যে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘গত কয়েকদিন ধরে বিএনপি বলছে, সর্বশক্তি নিয়োগ করে সরকারের পতন ঘটাতে হবে। ২০১৮ সালের আগেও তারা ডান, বাম, অতিবাম সবাইকে নিয়ে ঐক্য করেছিলেন। সেই ঐক্যের শক্তি হাওয়ায় মিলিয়ে গেছে। দেখা গেছে, বিএনপি যাদের নিয়ে ঐক্য করেন তাদের মধ্যে প্রচণ্ড অনৈক্য।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘‘এখন তারা যে ঐক্যের কথা বলছেন, এই ঐক্য আগে যেমন করেছিলেন, হয়তো সেরকমই একটা কাগুজে ঐক্য করলেও করতে পারেন। আগের সেই শক্তি হাওয়ায় মিলিয়ে গেছে। দেখা গেছে এই ঐক্যের মধ্যে যারা অংশ গ্রহণ করেছিলেন, তাদের মধ্যে প্রচণ্ড অনৈক্য। সেজন্য আবার তাদের মাঝে ‘ঐক্য প্রক্রিয়া’ নামে আবার কিছু কিছু প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।’’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল মোনাফ সিকদারের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদারের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা জহির আহমদ চৌধুরী, উপজেলা চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার, আবুল কাশেম চিশতি, মেয়র শাহজাহান সিকদার, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, নজরুল ইসলাম তালুকদার, ইদ্রিছ আজগর, মুহাম্মদ আলী শাহ, ইফতেখার হোসেন বাবুল, শফিকুল ইসলাম, আকতার হোসেন খান, গিয়াস উদ্দিন খান প্রমুখ।