শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

যশোর কারাগারে ধর্ষণ-হত্যা মামলার ২ আসামির ফাঁসি কার্যকর সোমবার

প্রতীকী ছবি

যশোর ব্যুরো ।।

চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার রায় লক্ষণপুর গ্রামের আজিজুল ও মিন্টু। ধর্ষণের পরে হত্যার দায়ে আদালত ওই দুই আসামিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন। আগামী সোমবার (৪ অক্টোবর)  যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে আজিজুল ওরফে আজিজ (৫০) ও মিন্টু ওরফে কালু (৫০) নামে দুই ফাঁসির আসামির রায় কার্যকর হতে পারে।

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্র জানায়, আজিজুল ও কালু আলমডাঙ্গার রায় লক্ষীপুর গ্রামের এক নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে। এঘটনায় ২০০৩ সালের সেপ্টেম্বরের ২৮ তারিখে মামলা (১২/২৮.০৯.২০০৩) হয়। যার জিআর নং ২৭২/২০০৩ ও নাঃ শিঃ ৩৯/০৪। দীর্ঘ সাক্ষী প্রমাণ শেষে চুয়াডাঙ্গা জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক ২০০৭ সালের জুলাই মাসের ২৬ তারিখে আসামি আজিজুল ও কালুকে মৃত্যুদণ্ড এবং দুইজনকেই দুই লাখ টাকা করে জরিমানার আদেশ দেন।

এরপরে আসামি পক্ষের লোকজন হাইকোর্টে আপিল করেন। সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে হাইকোর্ট ২০১২ সালে ১১ নভেম্বর নিন্ম আদালতের রায় বহাল রাখার আদেশ দেন। এরপরে আসামি পক্ষ মামলাটি নিয়ে যান উচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টে। চলতি বছরে ২৬ জুলাই নিন্ম আদালতের রায় বহাল রাখার আদেশ দেন। এর পরে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষা চাওয়া হলেও রাষ্ট্রপতি প্রাণ ভিক্ষা নামঞ্জুর করেন। চলতি মাসের ৬ তারিখে সুরক্ষা সেবা বিভাগ কারা অধিদফতর থেকে চিঠি দেন যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে। যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার ৮ সেপ্টেম্বর সেই চিঠি গ্রহণ করে।’

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার তুহিন কান্তি খান বলেন, আজিজুল ওরফে আজিদ ওরফে আজিজ ও মিন্টু ওরফে কালু ফাঁসির রায় কার্যকর করার জন্য আদেশ এসেছে। ফাঁসির রায় কার্যকর করার সময় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও সিভিল সার্জনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকবেন।

যশোর কারাগারে ধর্ষণ-হত্যা মামলার ২ আসামির ফাঁসি কার্যকর সোমবার

প্রকাশের সময় : ০১:২৮:৪৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১

যশোর ব্যুরো ।।

চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার রায় লক্ষণপুর গ্রামের আজিজুল ও মিন্টু। ধর্ষণের পরে হত্যার দায়ে আদালত ওই দুই আসামিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন। আগামী সোমবার (৪ অক্টোবর)  যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে আজিজুল ওরফে আজিজ (৫০) ও মিন্টু ওরফে কালু (৫০) নামে দুই ফাঁসির আসামির রায় কার্যকর হতে পারে।

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্র জানায়, আজিজুল ও কালু আলমডাঙ্গার রায় লক্ষীপুর গ্রামের এক নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে। এঘটনায় ২০০৩ সালের সেপ্টেম্বরের ২৮ তারিখে মামলা (১২/২৮.০৯.২০০৩) হয়। যার জিআর নং ২৭২/২০০৩ ও নাঃ শিঃ ৩৯/০৪। দীর্ঘ সাক্ষী প্রমাণ শেষে চুয়াডাঙ্গা জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক ২০০৭ সালের জুলাই মাসের ২৬ তারিখে আসামি আজিজুল ও কালুকে মৃত্যুদণ্ড এবং দুইজনকেই দুই লাখ টাকা করে জরিমানার আদেশ দেন।

এরপরে আসামি পক্ষের লোকজন হাইকোর্টে আপিল করেন। সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে হাইকোর্ট ২০১২ সালে ১১ নভেম্বর নিন্ম আদালতের রায় বহাল রাখার আদেশ দেন। এরপরে আসামি পক্ষ মামলাটি নিয়ে যান উচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টে। চলতি বছরে ২৬ জুলাই নিন্ম আদালতের রায় বহাল রাখার আদেশ দেন। এর পরে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষা চাওয়া হলেও রাষ্ট্রপতি প্রাণ ভিক্ষা নামঞ্জুর করেন। চলতি মাসের ৬ তারিখে সুরক্ষা সেবা বিভাগ কারা অধিদফতর থেকে চিঠি দেন যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে। যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার ৮ সেপ্টেম্বর সেই চিঠি গ্রহণ করে।’

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার তুহিন কান্তি খান বলেন, আজিজুল ওরফে আজিদ ওরফে আজিজ ও মিন্টু ওরফে কালু ফাঁসির রায় কার্যকর করার জন্য আদেশ এসেছে। ফাঁসির রায় কার্যকর করার সময় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও সিভিল সার্জনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকবেন।