রবিবার, ২৬ মার্চ ২০২৩, ১২ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শেখ হাসিনার সরকার উন্নয়নের রোল মডেল-শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

শার্শা প্রতিনিধি ।।  সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার এ দেশের ইতিহাসে উন্নয়নের রোল মডেল। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন সোনার বাংলা গড়তে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে দেশকে ডিজিটাল এবং উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের আমলে যে উন্নয়ন হয়েছে তা কোনো সরকারের আমলে হয়নি। তাই এবারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন থেকে শুরু করে জাতীয় নির্বাচনে আবারো উন্নয়নের মার্কা নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে হবে।

শনিবার শার্শার কায়বা ইউনিয়নের চালতিবাড়িয়া হাইস্কুল মাঠে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজনে বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহম্মেদ টিংকু’র সভাপতিত্বে এ বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ আফিল উদ্দিন আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অন্তর দৃষ্টি ছিলো পা ফাঁটা বাঙালি জাতির মেরুদন্ড শক্ত করে বেঁচে থাকার আশীর্বাদ। তাঁর উন্নয়নের স্বপ্ন, রূপরেখা ও দেশের প্রতি মমত্ববোধ এদেশের কুচক্রীমহল কখনও মেনে নিতে পারেনি। তাই তারা স্বাধীনতার মাত্র ৪ বছরের মাথায় নির্মমভাবে হত্যা করেছিলো নিজ জাতির জনককে। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া বাংলাদেশকে তারা দাবিয়ে রাখতে পারেনি। ঠিকই, তার যোগ্য কন্যা মাত্র ১৩ বছরের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় একের পর এক দেশ উন্নয়নের রুপরেখা এঁকে জাতির জনকের স্বপ্ন দুরন্ত গতিতে বাস্তবায়ন করে চলেছেন।

এ জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ সিরাজুল হক মঞ্জু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস, শার্শা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য অহিদুজ্জামান,শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, উলাশি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান আলহাজ আয়নাল হক, পুটখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার হাদিউজ্জামান,কায়বা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, ইউনিয়ন ছাত্রলীগ,যুবলীগ, ইউপি সদস্য, বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড থেকে আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিভিন্ন স্তরের জনসাধারণ জনসভায় অংশ নেন।

জনপ্রিয়

শেখ হাসিনার সরকার উন্নয়নের রোল মডেল-শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৭:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ অক্টোবর ২০২১

শার্শা প্রতিনিধি ।।  সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার এ দেশের ইতিহাসে উন্নয়নের রোল মডেল। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন সোনার বাংলা গড়তে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে দেশকে ডিজিটাল এবং উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের আমলে যে উন্নয়ন হয়েছে তা কোনো সরকারের আমলে হয়নি। তাই এবারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন থেকে শুরু করে জাতীয় নির্বাচনে আবারো উন্নয়নের মার্কা নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে হবে।

শনিবার শার্শার কায়বা ইউনিয়নের চালতিবাড়িয়া হাইস্কুল মাঠে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজনে বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহম্মেদ টিংকু’র সভাপতিত্বে এ বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ আফিল উদ্দিন আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অন্তর দৃষ্টি ছিলো পা ফাঁটা বাঙালি জাতির মেরুদন্ড শক্ত করে বেঁচে থাকার আশীর্বাদ। তাঁর উন্নয়নের স্বপ্ন, রূপরেখা ও দেশের প্রতি মমত্ববোধ এদেশের কুচক্রীমহল কখনও মেনে নিতে পারেনি। তাই তারা স্বাধীনতার মাত্র ৪ বছরের মাথায় নির্মমভাবে হত্যা করেছিলো নিজ জাতির জনককে। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া বাংলাদেশকে তারা দাবিয়ে রাখতে পারেনি। ঠিকই, তার যোগ্য কন্যা মাত্র ১৩ বছরের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় একের পর এক দেশ উন্নয়নের রুপরেখা এঁকে জাতির জনকের স্বপ্ন দুরন্ত গতিতে বাস্তবায়ন করে চলেছেন।

এ জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ সিরাজুল হক মঞ্জু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস, শার্শা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য অহিদুজ্জামান,শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, উলাশি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান আলহাজ আয়নাল হক, পুটখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার হাদিউজ্জামান,কায়বা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, ইউনিয়ন ছাত্রলীগ,যুবলীগ, ইউপি সদস্য, বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড থেকে আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিভিন্ন স্তরের জনসাধারণ জনসভায় অংশ নেন।