রবিবার, ১১ জুন ২০২৩, ২৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কিশোরগঞ্জের দুই উপজেলার ১৫ ইউপিতে চলছে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ

সাজ্জাদ হোসেন হৃদয়, কিশোরগঞ্জ।। 
কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম ও মিঠামইন এ  দুই উপজেলার ১৫ ইউপিতে পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে। বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে সকাল ৮টা থেকে প্রচণ্ড কুয়াশা ও শীত উপেক্ষা করে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন, বিশেষ করে নারী ভোটারদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। তীব্র শীত ও কুয়াশার মাঝেও প্রতিটি ইউপিতে ভোটারদের উৎসব আমেজে জমজমাট কেন্দ্রগুলো।
এবার হাওর অধ্যুষিত এ দুই উপজেলায় দলীয় প্রতীক ছাড়াই হচ্ছে পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন নির্বাচন। এর ফলে রাজনৈতিক চাপ না থাকায় প্রার্থী ও ভোটাররা ব্যাপক খুশি।
ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত ভোটাররা জানান, আজ সকাল থেকেই প্রচুর কুয়াশা ও ঠান্ডা বাতাসের ফলে শীতের তীব্রতা বেশি। কিন্তু এবারের ইউপি নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি অতীতের চেয়ে একেবারেই ভিন্ন। প্রতিটি ইউনিয়নে ভোটারদের মাঝে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। ভোট কেন্দ্রগুলোতে সকল বয়সের নারী-পুরুষ ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতিই প্রমাণ করেছে উৎসাহ ও উদ্দীপনার মাত্রা।
অবাধ-সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রতিটি কেন্দ্রেই প্রশাসনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল চোখে পড়ার মতো। যে কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা এড়াতে প্রতিটি কেন্দ্রেই পুলিশ, র‍্যাব, আনসার ও অতিরিক্ত স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োজিত ছিল। এছাড়াও প্রতিটি ইউপির ভোটকেন্দ্রে সর্বক্ষণিক নজরদারিতে রয়েছে প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।
দুই উপজেলার ১৫ ইউপি নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতির বিষয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার মো. আশ্রাফুল আলম জানান, এখন পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। ভোটকেন্দ্রে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের অনুরোধ করা হয়েছে। দুই উপজেলার ১৫ ইউনিয়নে মোট ২ লাখ ১৬ হাজার ৮৭৬ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন বলেও জানান তিনি।

নির্বাচনে সবকটি ভোট কেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা থাকবে-প্রধান নির্বাচন কমিশনার

কিশোরগঞ্জের দুই উপজেলার ১৫ ইউপিতে চলছে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ

প্রকাশের সময় : ০২:৫৫:৫২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জানুয়ারী ২০২২
সাজ্জাদ হোসেন হৃদয়, কিশোরগঞ্জ।। 
কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম ও মিঠামইন এ  দুই উপজেলার ১৫ ইউপিতে পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে। বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে সকাল ৮টা থেকে প্রচণ্ড কুয়াশা ও শীত উপেক্ষা করে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন, বিশেষ করে নারী ভোটারদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। তীব্র শীত ও কুয়াশার মাঝেও প্রতিটি ইউপিতে ভোটারদের উৎসব আমেজে জমজমাট কেন্দ্রগুলো।
এবার হাওর অধ্যুষিত এ দুই উপজেলায় দলীয় প্রতীক ছাড়াই হচ্ছে পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন নির্বাচন। এর ফলে রাজনৈতিক চাপ না থাকায় প্রার্থী ও ভোটাররা ব্যাপক খুশি।
ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত ভোটাররা জানান, আজ সকাল থেকেই প্রচুর কুয়াশা ও ঠান্ডা বাতাসের ফলে শীতের তীব্রতা বেশি। কিন্তু এবারের ইউপি নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি অতীতের চেয়ে একেবারেই ভিন্ন। প্রতিটি ইউনিয়নে ভোটারদের মাঝে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। ভোট কেন্দ্রগুলোতে সকল বয়সের নারী-পুরুষ ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতিই প্রমাণ করেছে উৎসাহ ও উদ্দীপনার মাত্রা।
অবাধ-সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রতিটি কেন্দ্রেই প্রশাসনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল চোখে পড়ার মতো। যে কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা এড়াতে প্রতিটি কেন্দ্রেই পুলিশ, র‍্যাব, আনসার ও অতিরিক্ত স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োজিত ছিল। এছাড়াও প্রতিটি ইউপির ভোটকেন্দ্রে সর্বক্ষণিক নজরদারিতে রয়েছে প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।
দুই উপজেলার ১৫ ইউপি নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতির বিষয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার মো. আশ্রাফুল আলম জানান, এখন পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। ভোটকেন্দ্রে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের অনুরোধ করা হয়েছে। দুই উপজেলার ১৫ ইউনিয়নে মোট ২ লাখ ১৬ হাজার ৮৭৬ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন বলেও জানান তিনি।