শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৪৪ ধারা

ডেস্ক রিপোর্ট।।

জেলা বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। 

অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরো শহরে শনিবার (৮ জানুয়ারি) সকাল ৬টা থেকে রাত ১২ পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করেছে জেলা প্রশাসন। এ সময়ে নিষিদ্ধ করা হয়েছে সব ধরনের সভা সমাবেশ।

এদিকে ভোর থেকেই সমাবেশস্থল ফুলবাড়ীয়া কনভেনশন সেন্টারের আশপাশ এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও সমাবেশ আয়োজকরা জানান, গত কয়েক দিন আগে জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে শহরের ফুলবাড়ীয়া কনভেনশন সেন্টারের সামনে বিএনপির পক্ষ থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে সমাবেশ আহ্বান করা হয়।

এই সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ কুমিল্লা সাংগঠনিক বিভাগের নেতারা উপস্থিত থাকার কথা ছিল। কিন্তু গত কয়েক দিন আগে একই স্থানে জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের সমাবেশ আহ্বান করা হয়। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কাউকে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

দুটি রাজনৈতিক দল পাল্টাপাল্টি সমাবেশ করার ব্যাপারে অনড় থাকায় রাজনৈতিক পরিবেশ অনেকটা ঘোলাটে হতে থাকে। পরে গতকাল শুক্রবার দুপুরে জেলা বিএনপি চার শীর্ষ নেতাকে আটক করে পুলিশ।

এরপর থেকে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আজ সকাল ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত পুরো শহরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। সেই সঙ্গে সব ধরনের সভা, সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়।

এ ছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহর এবং শহরতলীর ৪০টি পয়েন্টে অন্তত ৫ শতাধিক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জানান, যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রত্যেকটি পয়েন্টে পুলিশ তৎপর রয়েছে। কেউ যদি ১৪৪ ধারা ভঙ্গসহ আইনশৃঙ্খলা বিঘ্ন ঘটানোর চেষ্টা করে তাহলে তাদের কঠোরভাবে দমন করা হবে বলেও জানান তিনি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৪৪ ধারা

প্রকাশের সময় : ১২:২৪:১৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ জানুয়ারী ২০২২

ডেস্ক রিপোর্ট।।

জেলা বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। 

অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরো শহরে শনিবার (৮ জানুয়ারি) সকাল ৬টা থেকে রাত ১২ পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করেছে জেলা প্রশাসন। এ সময়ে নিষিদ্ধ করা হয়েছে সব ধরনের সভা সমাবেশ।

এদিকে ভোর থেকেই সমাবেশস্থল ফুলবাড়ীয়া কনভেনশন সেন্টারের আশপাশ এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও সমাবেশ আয়োজকরা জানান, গত কয়েক দিন আগে জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে শহরের ফুলবাড়ীয়া কনভেনশন সেন্টারের সামনে বিএনপির পক্ষ থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে সমাবেশ আহ্বান করা হয়।

এই সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ কুমিল্লা সাংগঠনিক বিভাগের নেতারা উপস্থিত থাকার কথা ছিল। কিন্তু গত কয়েক দিন আগে একই স্থানে জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের সমাবেশ আহ্বান করা হয়। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কাউকে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

দুটি রাজনৈতিক দল পাল্টাপাল্টি সমাবেশ করার ব্যাপারে অনড় থাকায় রাজনৈতিক পরিবেশ অনেকটা ঘোলাটে হতে থাকে। পরে গতকাল শুক্রবার দুপুরে জেলা বিএনপি চার শীর্ষ নেতাকে আটক করে পুলিশ।

এরপর থেকে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আজ সকাল ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত পুরো শহরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। সেই সঙ্গে সব ধরনের সভা, সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়।

এ ছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহর এবং শহরতলীর ৪০টি পয়েন্টে অন্তত ৫ শতাধিক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জানান, যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রত্যেকটি পয়েন্টে পুলিশ তৎপর রয়েছে। কেউ যদি ১৪৪ ধারা ভঙ্গসহ আইনশৃঙ্খলা বিঘ্ন ঘটানোর চেষ্টা করে তাহলে তাদের কঠোরভাবে দমন করা হবে বলেও জানান তিনি।