শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শিক্ষার্থীদের ১২ বছরের কম বয়সীদের এখনই টিকা নয়: শিক্ষামন্ত্রী

ছবি: সংগৃহীত

ডেস্ক রিপোর্ট ।।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছেন, ১২ বছরের কম বয়সী শিক্ষার্থীদের এখনই করোনার টিকা দেওয়া হবে না। এছাড়া করোনার কারণে এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের চিন্তাভাবনা নেই বলেন জানান তিনি।

রবিবার সাভারের লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে (বিপিএটিসি) শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের প্রথম বিশেষ বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। দুই মাস মেয়াদী এই কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের টিকাদান কর্মসূচিটাও খুব জোরদারভাবে চলছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হলে সেই টিকাদান কর্মসূচিতে ভাটা পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। আমরা পর্যালোচনা করছি, পর্যবেক্ষণ করছি। আমরা এখনো কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোনো ধরনের সংক্রমণের খবর পাইনি। সেই সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরও এ বিষয়ে নজর রাখছে। আমরা জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে যোগাযোগে আছি, আমরা এখনো ভাবছি না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করার কথা।

দীপু মনি বলেন, সরকারি-বেসরকারি সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা তাদের পরিচয়পত্র ব্যবহার করে ভ্যাকসিন নিতে পারবে। টিকাকেন্দ্র থেকে শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন প্রদানের চলমান প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, যতদূর সম্ভব জীবন স্বাভাবিক রেখে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই করোনা মোকাবিলা করতে হবে। সেটাই সিদ্ধান্ত। অতএব আমরা এই মুহূর্তে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কথা ভাবছি না। তবে যদি তেমন বড় প্রয়োজন দেখা দেয় তখন আমরা সিদ্ধান্ত নেব।

বিপিএটিসির রেক্টর রমেন্দ্র নাথ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কোর্স উপদেষ্টা মহসীন আলী, প্রশিক্ষণার্থী নবীন কর্মকর্তাগণসহ বিপিএটিসির অন্যান্য কর্মকর্তারা।

শিক্ষার্থীদের ১২ বছরের কম বয়সীদের এখনই টিকা নয়: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ০৪:০৭:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২২

ডেস্ক রিপোর্ট ।।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছেন, ১২ বছরের কম বয়সী শিক্ষার্থীদের এখনই করোনার টিকা দেওয়া হবে না। এছাড়া করোনার কারণে এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের চিন্তাভাবনা নেই বলেন জানান তিনি।

রবিবার সাভারের লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে (বিপিএটিসি) শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের প্রথম বিশেষ বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। দুই মাস মেয়াদী এই কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের টিকাদান কর্মসূচিটাও খুব জোরদারভাবে চলছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হলে সেই টিকাদান কর্মসূচিতে ভাটা পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। আমরা পর্যালোচনা করছি, পর্যবেক্ষণ করছি। আমরা এখনো কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোনো ধরনের সংক্রমণের খবর পাইনি। সেই সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরও এ বিষয়ে নজর রাখছে। আমরা জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে যোগাযোগে আছি, আমরা এখনো ভাবছি না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করার কথা।

দীপু মনি বলেন, সরকারি-বেসরকারি সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা তাদের পরিচয়পত্র ব্যবহার করে ভ্যাকসিন নিতে পারবে। টিকাকেন্দ্র থেকে শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন প্রদানের চলমান প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, যতদূর সম্ভব জীবন স্বাভাবিক রেখে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই করোনা মোকাবিলা করতে হবে। সেটাই সিদ্ধান্ত। অতএব আমরা এই মুহূর্তে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কথা ভাবছি না। তবে যদি তেমন বড় প্রয়োজন দেখা দেয় তখন আমরা সিদ্ধান্ত নেব।

বিপিএটিসির রেক্টর রমেন্দ্র নাথ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কোর্স উপদেষ্টা মহসীন আলী, প্রশিক্ষণার্থী নবীন কর্মকর্তাগণসহ বিপিএটিসির অন্যান্য কর্মকর্তারা।