শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্বেচ্ছায় করোনা আক্রান্ত হয়ে শিল্পীর মৃত্যু

চেক প্রজাতন্ত্রের লোকশিল্পী হানা হর্কা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

চেক প্রজাতন্ত্রের লোকশিল্পী হানা হর্কা স্বেচ্ছায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন। গত রোববার (১৬ জানুয়ারি) ৫৭ বছর বয়সী এই শিল্পী শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বুধবার (১৯ জানুয়ারি) বার্তা সংস্থা এএফপির একটি প্রতিবেদনে এতথ্য জানানো হয়েছে।

মৃত ওই শিল্পীর স্বজনদের বরাত দিয়ে এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, হানা হর্কা টিকাবিরোধী ছিলেন। থিয়েটারে যাওয়ার জন্য তার একটি হেলথ পাসের প্রয়োজন ছিল। আর ওই পাসের জন্য হয় তাকে করোনার টিকা নিতে হতো না হলে করোনা থেকে সেরে ওঠার প্রমাণ দেখাতে হতো।

আর এ জন্য টিকাবিরোধী হওয়ায় করোনায় আক্রান্ত হতে চেয়েছিলেন হানা হর্কা।

উল্লেখ্য, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন সদস্য রাষ্ট্রের দেশগুলোতে থিয়েটার, বার ও রেস্টুরেন্টে যেতে টিকা অথবা করোনা থেকে সেরে ওঠার প্রমাণ দেখাতে হয়।

হানা হর্কার ছেলে জ্যান রেক জানান, তার মা অ্যাসোন্যান্স ব্যান্ডের ভোকালিস্ট ছিলেন।

চেক প্রজাতন্ত্রের রেডিও আইরোজলাসকে রেক বলেন, বড় দিনের আগেই স্বেচ্ছায় করোনায় আক্রান্ত হন মা। তখন আমি আর বাবা দুজনই টিকা নিয়েছিলাম।

মৃত্যুর দুদিন আগে হর্কা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলেন, আমি বেঁচে গেছি। ভাইরাসটি তীব্র ছিল। তবে আমি এখন কনসার্টে ও ভ্রমণে যেতে পারব।

এদিকে মায়ের মৃত্যুর জন্য টিকাবিরোধী আন্দোলনকে দায়ী করছেন হর্কারের ছেলে রেক। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি জানি কে তাকে প্রভাবিত করেছে। এটি কেবল সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিই ছিল না। আমার মা পরিবারের চেয়ে অপরিচিত ব্যক্তিদের কথায় বেশি ভরসা করেছিল।

স্বেচ্ছায় করোনা আক্রান্ত হয়ে শিল্পীর মৃত্যু

প্রকাশের সময় : ০১:০৭:৪৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

চেক প্রজাতন্ত্রের লোকশিল্পী হানা হর্কা স্বেচ্ছায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন। গত রোববার (১৬ জানুয়ারি) ৫৭ বছর বয়সী এই শিল্পী শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বুধবার (১৯ জানুয়ারি) বার্তা সংস্থা এএফপির একটি প্রতিবেদনে এতথ্য জানানো হয়েছে।

মৃত ওই শিল্পীর স্বজনদের বরাত দিয়ে এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, হানা হর্কা টিকাবিরোধী ছিলেন। থিয়েটারে যাওয়ার জন্য তার একটি হেলথ পাসের প্রয়োজন ছিল। আর ওই পাসের জন্য হয় তাকে করোনার টিকা নিতে হতো না হলে করোনা থেকে সেরে ওঠার প্রমাণ দেখাতে হতো।

আর এ জন্য টিকাবিরোধী হওয়ায় করোনায় আক্রান্ত হতে চেয়েছিলেন হানা হর্কা।

উল্লেখ্য, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন সদস্য রাষ্ট্রের দেশগুলোতে থিয়েটার, বার ও রেস্টুরেন্টে যেতে টিকা অথবা করোনা থেকে সেরে ওঠার প্রমাণ দেখাতে হয়।

হানা হর্কার ছেলে জ্যান রেক জানান, তার মা অ্যাসোন্যান্স ব্যান্ডের ভোকালিস্ট ছিলেন।

চেক প্রজাতন্ত্রের রেডিও আইরোজলাসকে রেক বলেন, বড় দিনের আগেই স্বেচ্ছায় করোনায় আক্রান্ত হন মা। তখন আমি আর বাবা দুজনই টিকা নিয়েছিলাম।

মৃত্যুর দুদিন আগে হর্কা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলেন, আমি বেঁচে গেছি। ভাইরাসটি তীব্র ছিল। তবে আমি এখন কনসার্টে ও ভ্রমণে যেতে পারব।

এদিকে মায়ের মৃত্যুর জন্য টিকাবিরোধী আন্দোলনকে দায়ী করছেন হর্কারের ছেলে রেক। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি জানি কে তাকে প্রভাবিত করেছে। এটি কেবল সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিই ছিল না। আমার মা পরিবারের চেয়ে অপরিচিত ব্যক্তিদের কথায় বেশি ভরসা করেছিল।