শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পেট্রাপোলে ধর্মঘট: বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি বন্ধ

বেনাপোলের ওপারে ভারেতের পেট্রাপোল বন্দরে অনিদিষ্টকালের ডাকা ধর্মঘটের কারনে আজ সোমবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল থেকে বেনাপোল পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে দু’দেশের মধ্যে আমদানী রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। পেট্রাপোল বন্দরে এলপি ম্যানেজার কর্তৃক নানাবিধ হযরানীর প্রতিবাদে এ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পেট্রাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট স্টাফ এসোসিয়েশন, ট্রান্সপোর্ট এসোসিয়েশন, যাত্রীবাহী পরিবহন সমিতি সহ বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠন।

পেট্রাপোল বন্দরে আমদানি রফতানি কাজে নতুন এলপি ম্যানেজার নতুন নতুন আইন তৈরী করার কারনে নানা হয়রানীর শিকার হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। হয়রানী বন্ধ সহ নতুন এলপি ম্যানেজারের প্রত্যাহারের দাবীতে দফায় দফায় বৈঠক ও বিক্ষোভ সমাবেশ হলেও এলপি ম্যানেজার তার সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন। এলপি ম্যানেজার কর্তৃক হয়রানী করার প্রতিবাদে পেট্রাপোল বন্দরে অনিদিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়েছে। বন্দর ব্যবহারকারীরা আরও বলেন তাদের দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের এ আন্দোলন চলবে।

পেট্রাপোল বন্দরের স্টাফ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক কার্তিক চন্দ্র জানান, মহামারি করোনার কারণে তাদের ব্যবসা বাণিজ্যে আগের চেয়ে অনেক কমে গেছে। আগে যেখানে ২৪ ঘন্টায় ৭ শ থেকে সাড়ে ৭শ পন্যবাহী ট্রাক বাংলাদেশে রফতানি হতো । এখন মাত্র সাড়ে ৩শ ট্রাক পন্য রফতানি হচ্ছে। এরপর নতুন এলপি ম্যানেজার ব্যবসায়ীদের আলোচনা না করে বন্দর এলাকায় প্রবেশের উপর নতুন নতুন আইন তৈরী করে বাণিজ্যে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। নতুন এলপি ম্যানেজার বিএসএফকে কাজে লাগিয়ে পরিবহন স্টাফদের বন্দর অভ্যান্তরে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছেনা। পরিবহন কাজে জড়িত স্টাফদের আইসিপিতে প্রবেশের মুখে বিএসএফের বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে। তিনি আরো বলেন ইউনিক কার্ড ছাড়া কোন পরিবহন স্টাফকে আইসিপি ও বন্দর অভ্যান্তরে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। তারা বন্দর অভ্যান্তরে প্রবেশ করতে না পারায় আমদানি রফতানি কাজে জড়িতদের নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এসব হয়রানীর প্রতিবাদে প্রশাসনের সাথে বৈঠক করা হলেও এলপি ম্যানেজার তার সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন। আমদানি রফতানি কাজে বন্দর অভ্যান্তরে প্রবেশ সহ নানা হয়রানী বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত তাদের এ আন্দোল চলবে। ধর্মঘট থাকায় সকাল থেকে বেনাপোল পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি বন্ধ রয়েছে।
বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক মামুন তরফদার জানান, ভারতের পেট্রপোল বন্দরে ধর্মঘটের কারনে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। ওপারে এলপি ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ী ও ট্রান্সপোর্ট এসোসিয়েশন আন্দোলন করছেন। আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকলেও আমাদের বন্দরে লোড আনলোড প্রক্রিয়া স্বাভাবিক গতিতে চলছে বলে তিনি জানান।

 

নজরুল/বার্তাকণ্ঠ

 

পেট্রাপোলে ধর্মঘট: বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি বন্ধ

প্রকাশের সময় : ০১:০৫:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২২

বেনাপোলের ওপারে ভারেতের পেট্রাপোল বন্দরে অনিদিষ্টকালের ডাকা ধর্মঘটের কারনে আজ সোমবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল থেকে বেনাপোল পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে দু’দেশের মধ্যে আমদানী রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। পেট্রাপোল বন্দরে এলপি ম্যানেজার কর্তৃক নানাবিধ হযরানীর প্রতিবাদে এ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পেট্রাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট স্টাফ এসোসিয়েশন, ট্রান্সপোর্ট এসোসিয়েশন, যাত্রীবাহী পরিবহন সমিতি সহ বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠন।

পেট্রাপোল বন্দরে আমদানি রফতানি কাজে নতুন এলপি ম্যানেজার নতুন নতুন আইন তৈরী করার কারনে নানা হয়রানীর শিকার হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। হয়রানী বন্ধ সহ নতুন এলপি ম্যানেজারের প্রত্যাহারের দাবীতে দফায় দফায় বৈঠক ও বিক্ষোভ সমাবেশ হলেও এলপি ম্যানেজার তার সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন। এলপি ম্যানেজার কর্তৃক হয়রানী করার প্রতিবাদে পেট্রাপোল বন্দরে অনিদিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়েছে। বন্দর ব্যবহারকারীরা আরও বলেন তাদের দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের এ আন্দোলন চলবে।

পেট্রাপোল বন্দরের স্টাফ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক কার্তিক চন্দ্র জানান, মহামারি করোনার কারণে তাদের ব্যবসা বাণিজ্যে আগের চেয়ে অনেক কমে গেছে। আগে যেখানে ২৪ ঘন্টায় ৭ শ থেকে সাড়ে ৭শ পন্যবাহী ট্রাক বাংলাদেশে রফতানি হতো । এখন মাত্র সাড়ে ৩শ ট্রাক পন্য রফতানি হচ্ছে। এরপর নতুন এলপি ম্যানেজার ব্যবসায়ীদের আলোচনা না করে বন্দর এলাকায় প্রবেশের উপর নতুন নতুন আইন তৈরী করে বাণিজ্যে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। নতুন এলপি ম্যানেজার বিএসএফকে কাজে লাগিয়ে পরিবহন স্টাফদের বন্দর অভ্যান্তরে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছেনা। পরিবহন কাজে জড়িত স্টাফদের আইসিপিতে প্রবেশের মুখে বিএসএফের বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে। তিনি আরো বলেন ইউনিক কার্ড ছাড়া কোন পরিবহন স্টাফকে আইসিপি ও বন্দর অভ্যান্তরে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। তারা বন্দর অভ্যান্তরে প্রবেশ করতে না পারায় আমদানি রফতানি কাজে জড়িতদের নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এসব হয়রানীর প্রতিবাদে প্রশাসনের সাথে বৈঠক করা হলেও এলপি ম্যানেজার তার সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন। আমদানি রফতানি কাজে বন্দর অভ্যান্তরে প্রবেশ সহ নানা হয়রানী বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত তাদের এ আন্দোল চলবে। ধর্মঘট থাকায় সকাল থেকে বেনাপোল পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি বন্ধ রয়েছে।
বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক মামুন তরফদার জানান, ভারতের পেট্রপোল বন্দরে ধর্মঘটের কারনে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। ওপারে এলপি ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ী ও ট্রান্সপোর্ট এসোসিয়েশন আন্দোলন করছেন। আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকলেও আমাদের বন্দরে লোড আনলোড প্রক্রিয়া স্বাভাবিক গতিতে চলছে বলে তিনি জানান।

 

নজরুল/বার্তাকণ্ঠ